জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পরিধি বাড়বে: রব

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:১৭, জুন ১০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:০৮, জুন ১০, ২০১৯

প্রেস-ব্রিফিং-করছেন-আ-স-ম-আবদুর-রবজাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পরিধি বাড়বে বলে জানিয়েছেন জোটটির স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য ও জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব। তিনি বলেন, ‘সরকারের বিরুদ্ধে প্রবল আন্দোলন গড়ে তুলতে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্ব আগামী সভা করবো। এই আন্দোলনের রূপ হবে বৃহত্তর ঐক্য। ঐক্যফ্রন্টকে আরও বিস্তৃত ও ব্যাপক করতে হবে।’ সোমবার (১০ জুন) সন্ধ্যায় উত্তরায় আ স ম রবের বাসায় জোটটির শীর্ষ নেতাদের বৈঠক শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

আ স ম রব বলেন, ‘সরকারবিরোধী যত রাজনৈতিক দল আছে, সেসব দলকে নিয়ে বৃহত্তর ঐক্য গড়ার মাধ্যমে স্বৈরাচারী সরকারের হাত থেকে গণতন্ত্র উদ্ধারের আন্দোলন অব্যাহত রাখবো।’

উন্নয়নের নামে রাষ্ট্রীয় সম্পদের হরিলুট চলছে অভিযোগ করে আ স ম রব বলেন, ‘একটা বালিশ তুলতে ১ হাজার টাকা লাগে, এটা কেউ শোনেনি। একটা বালিশের দাম ৬ হাজার টাকা, সারা দুনিয়ায় এমন ইতিহাস নেই।’ তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচনের আগে জাতির কাছে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠাসহ রাজনীতির গুণগত পরিবর্তন করা। এই প্রতিশ্রুতিতে নির্বাচনে গিয়েছিলাম। এটা এখনও আদায় করতে পারিনি। আদায় না করা পর্যন্ত আন্দোলন ও ঐক্য অব্যাহত থাকবে।’

রাষ্ট্রীয়ভাবে ভোট ডাকাতি হয়েছে অভিযোগ করে রব বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আপনাদের প্রশ্ন থাকতে পারে। কিন্তু এর উত্তর আজকে আমরা দেবো না। আমাদের নেতা ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে বৈঠক করার পর আপনাদের মাধ্যমে জনগণের উত্তর দেবো।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশে রব বলেন, ‘আপনারা জনগণের অংশ, আমাদের অংশ। আশা করি পজেটিভ নিউজ করবেন, যা করলে জনগণের ক্ষতি না হয়।’

আ স ম রব আরও বলেন, ‘সরকার রাষ্ট্রীয় বাহিনীকে বেআইনিভাবে প্রয়োগ করে রাষ্ট্র ও সমাজ জীবনে অন্যায়ের বিস্তার করে দিয়েছে। আজকে প্রতিদিন নারী- শিশু নির্যাতন হচ্ছে, কৃষক ধানের দাম পাচ্ছে না। যারা বিদেশে চাল রফতানি করছে, তাদের ভর্তুকি দিচ্ছে, কৃষককে দিচ্ছে না।’

ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যুর প্রসঙ্গ উল্লেখ করে রব বলেন, ‘তাকে গ্রেফতার করা হয়নি। একটি নির্যাতনের বিচার হয়নি। রিপোর্ট পাওয়া যায় না। ফলে ঘুষ, দুর্নীতি বেড়েই চলেছে। অন্যায় করলে বিচার হবে, এই কথা দেশের মানুষ ভুলে গেছে। অন্যায় করলে তোমার বিচার হবে, এটা বোঝাতে হবে।’

ঐক্যফ্রন্টের এই নেতা বলেন, ‘কাদের সিদ্দিকী যে চিঠি দিয়েছেন, ড. কামাল হোসেনসহ ঐক্যফ্রন্টের কাছে এই চিঠি উত্তর কী হবে? যদি সংসদ অবৈধ হয়, তাহলে আপনাদের দলের লোকেরা কেন গেলো?’ তিনি আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়া কারাগারে। তার হাসপাতালে বোমা পাওয়া গেছে। তার জীবন হুমকির মুখে। হাজার হাজার কর্মী কারাগারে। তাদের কারাগারে রেখে আমরা ঘুমাতে পারি না।’ খালেদা জিয়াসহ সরকারবিরোধী সব নেতাকর্মীকে কারামুক্ত না করা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

 

 

/এএইচআর/এমএনএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ