সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির ‘বয়স্ক’ নেতারা

Send
আদিত্য রিমন
প্রকাশিত : ২৩:০৭, জুন ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৯, জুন ১৪, ২০১৯

ছাত্রদলছাত্রদলের কমিটি গঠন নিয়ে সৃষ্ট সংকট সমাধানের জন্য আরও এক-দুইদিন অপেক্ষা করবেন সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির ‘বয়স্ক’ নেতারা। এ সময়ের মধ্যে বিএনপির পক্ষ থেকে সমাধান আসতে পারে বলেও তারা আশা করছেন। না হলে দাবি আদায়ে আবারও কর্মসূচিতে যাবেন তারা। ছাত্রদলের একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

‘বয়সসীমা না রেখে ধারাবাহিক কমিটি গঠনের দাবিতে’ গত ১১ জুন নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা লাগানোসহ ভবনের বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন সদ্য বিলুপ্ত ছাত্রদলের ‘বয়স্ক’ নেতাকর্মীরা। অবস্থান নেন দলটির কার্যালয়ের নিচে একটি রুমে। একইসঙ্গে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ‘অসুস্থ’ রুহল কবির রিজভীকে কার্যালয় ছেড়ে যাওয়ার দাবিও তোলেন তারা। ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই সংকটের সমাধান করা হবে বলে ওই রাতেই বিএনপির শীর্ষনেতারা আশ্বাস দেন। তাদের ওই আশ্বাসেই তখন কার্যালয়ের তালা খুলে দেন ছাত্রদল নেতারা।
এরপর ২৪ ঘণ্টা পরও দাবির বিষয়ে কোনও সমাধান না পেয়ে গত ১৩ জুন নয়াপল্টন বিএনপির কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেন ছাত্রদলের ‘বয়স্ক’ নেতারা। পরে আবারও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে কথা বলে তাদের দাবির সমাধান করা হবে বলে দলটির নেতারা আশ্বাস দেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করেন আন্দোলনরত ছাত্রদল নেতারা। কিন্তু এরপর দুইদিন পেরিয়ে গেলেও সংকট নিরসনে কোনও সমাধান পায়নি ছাত্রদল।

ছাত্রদলের নেতারা জানান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী যে আশ্বাস দিয়েছেন, গত ৩ দিনেও সে বিষয়ে তারা কোনও সমাধান বের করতে পারেননি। আগামী ১-২ দিনের মধ্যে তারেক রহমানের সঙ্গে কথা বলে সংকট সমাধান করবেন বলে জানানো হয়েছে। ছাত্রদল নেতাদের ভাষ্য, এ সময়ের মধ্যে কোনও সমাধান না এলে তারা আবারও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ঘোষণা করতে বাধ্য হবেন। কারণ, সংগঠন করতে গিয়ে অনেক নেতাকর্মী নির্যাতন সহ্য করেছেন, গুম হয়েছেন, জেল খেটেছেন, হারিয়েছেন চাকরির বয়সও। এখন হঠাৎ নিয়মিত ছাত্রদের নিয়ে ছাত্রদলের কমিটি হলে তাদের মধ্যে যাদের বয়স নেই, তারা কোথায় যাবেন?

জানতে চাইলে সদ্য ছাত্রদলের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট বলেন, ‘ছাত্রদলের কমিটি গঠন নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার এখনও কোনও সমাধান হয়নি। সমাধানের অপেক্ষায় আছি। আশা করি আমাদের অভিভাবকরা একটা সমাধান দেবেন।’

‘বয়সসীমা না রেখে ধারাবাহিক কমিটির গঠনের দাবিতে’ বয়স্ক ছাত্রনেতাদের চলমান আন্দোলনকে সমর্থন করেন না ছাত্রদলের তরুণ নেতাকর্মীরা। তারা বলছেন, ছাত্রদলের ‘বয়স্ক’ যেসব নেতা আন্দোলন করছেন, বিএনপি ও ছাত্রদলে তাদের অনেক অবদান রয়েছে। অনেকে সংগঠন করতে গিয়ে অত্যাচার, নির্যাতন সহ্য করেছেন। কিন্তু অন্যান্য ছাত্র সংগঠনের মতো ছাত্রদলের কমিটিও নিয়মিত ছাত্রদের দিয়ে হওয়া উচিত। বয়স্কদের দিয়ে কমিটি করার কারণে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির কেউ অংশ নিতে পারেননি। শুধু তা-ই নয়, প্রচারণায়ও অংশ নিতে পারেননি। নির্বাচনে ভরাডুবির অন্যতম কারণ এটি। তবে বয়স্ক ছাত্রনেতাদের যেন অন্য সংগঠনগুলোর কমিটিতে স্থান হয়, এটিও চান তরুণ ছাত্রদলের নেতারা।
ছাত্রদল থেকে ডাকসু নির্বাচনে ভিপি (সহ-সভাপতি) পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আন্দোলনকারী ছাত্রদল নেতাদের অনেক অবদান আছে বিএনপি ও ছাত্রদলে। তারা অনেকে আন্দোলন সংগ্রাম করতে গিয়ে নির্যাতিত হয়েছেন। অনেকে জেলও খেটেছেন। ফলে তাদের রাজনৈতিকভাবে সঠিক মূল্যায়ন হওয়া উচিত। অন্যান্য ছাত্রসংগঠনের মতো ছাত্রদলেরও নিয়মিত ছাত্রদের দিয়ে কমিটি গঠন করা সময়ের দাবি।’

গত ৩ জুন এক বিজ্ঞপ্তিতে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘ছাত্রদলের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে দিয়ে আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে কাউন্সিলরদের অভিমতের ভিত্তিতে নতুন কেন্দ্রীয় সংসদ গঠন করা হবে। কাউন্সিলে প্রার্থী হতে হলে তাকে হতে হবে কোনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র। কেবল ২০০০ সাল থেকে পরবর্তী সময়ে যেকোনও বছরে এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে তাকে।’

ছাত্রদলের আগামী দিনের কাণ্ডারি খুঁজে বের করতে তিনটি বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়। এর একটিতে আছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু। তিনি ছাত্রদলের চলমান সংকট নিরসনেও কাজ করছেন।

ছাত্রদলের চলমান সংকট নিরসন কতদূর—জানতে চাইলে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘ছাত্রদলের সমস্যা নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেছি। আগামী ১-২ দিনের মধ্যে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলবো।’ এরপরই একটা সমাধান করা হবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

/এমএনএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ