বন্যা মোকাবিলায় সরকারকে জাতীয় সংলাপ আয়োজনের আহ্বান ড. কামালের

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৩:৪১, জুলাই ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৫৫, জুলাই ২২, ২০১৯

সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল হোসেনবন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব রাজনৈতিক দলকে নিয়ে জাতীয় সংলাপ আয়োজন করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গণফোরামের সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, জাতীয় সংলাপ অপরিহার্য। বন্যা থেকে বাঁচতে কী কী করা দরকার এবং ঘাটতি পূরণ করে কীভাবে আগাতে হবে সেগুলো চিহ্নিত করা প্রয়োজন। এজন্য অবশ্যই জাতীয় সংলাপের প্রয়োজন।’

সোমবার (২২ জুলাই) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। বানভাসী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে গণফোরাম।

কামাল হোসেন বলেন, ‘আমাদের দলীয় সংকীর্ণতা থেকে বেরিয়ে এসে জাতীয় সংলাপের মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করতে হবে।’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনকে সামনে রেখে আমরা এই জোট করেছি। আমি মনে করি, বন্যাসহ জাতীয় সমস্যাগুলো থেকে উত্তরণের জন্য আমাদের সত্যিকারের ঐক্য দরকার।’

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাঈদ। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, টিআইবির রিপোর্টে বলা হয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকল্পগুলো সরকারি আমলা, আওয়ামী লীগের নেতারা প্রভাবিত করেন। দেশের ৯৩ ভাগ জনগণ পানি উন্নয়ন বার্ডের কাজ সম্পর্কে জানেন না। পানি উন্নয়ন বোর্ড ও ঠিকাদারদের দুর্নীতির কারণে যথাসময়ে বাঁধ নির্মিত না হওয়ায় ২০১৭ সালে কৃষকের ফসল ডুবে ১০ লাখ টন খাদ্য নষ্ট হয়ে যায়। জনগণের চাপে দুদুক ৩৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা করতে বাধ্য হয়।

তিনি আরও বলেন, বন্যাদুর্গত ১২ লাখ মানুষের জন্য দেড় সপ্তাহে সরকার বরাদ্দ হচ্ছে জনপ্রতি ১ টাকা ১২ পয়সা, ৬৬ গ্রাম চাল এবং ৩ হাজার শুকনো খাবার। এটি রিলিফের নামে প্রহসন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, প্রেসিডিয়াম সদস্য জগলুল হায়দার আফ্রিক, সাংগঠনিক সম্পাদক হামিম বারী প্রমুখ।

 

 

/এএইচআর/এসটি/

লাইভ

টপ