খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ: রিজভী

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৩:৫৭, আগস্ট ০৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৫৯, আগস্ট ০৯, ২০১৯

রুহুল কবির রিজভী (ফাইল ফটো)

কারাবন্দি চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখনও গুরুতর অসুস্থ বলে দাবি করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ‘বারবার ইনসুলিন পরিবর্তন এবং মাত্রা বাড়ানোর পরেও কোনও অবস্থাতেই খালেদা জিয়ার সুগার নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। কোনও কোনও সময় এটি ২৩ মিলিমোল পর্যন্ত উঠে যাচ্ছে। তিনি গুরুতর অসুস্থ।’

শুক্রবার (৯ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে গত ৬ আগস্ট খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেন তার ছোট ছেলের স্ত্রী শর্মিলা রহমানসহ পরিবারের ছয় সদস্য।

সরকার বিএনপি চেয়ারপারসনের জীবন নিয়ে গভীর মাস্টার প্ল্যানে ব্যস্ত, এমন মন্তব্য করে রিজভী বলেন, ‘এই প্ল্যান হচ্ছে,  গণতন্ত্রের ধ্বংসস্তূপের ওপর জাতীয়তাবাদী শক্তিকে নির্মূল করে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে অন্যের কাছে বিকিয়ে দেওয়া।’

তিনি আরও বলেন, ‘‘আদালতের কথাতেই মনে হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ছাড়া কিছু হবে না। আইনজীবীরা যখন আদালতে শুনানি করেন, তখন তারা জানান— সরকারের পক্ষ থেকে ওবায়দুল কাদেরসহ শীর্ষ নেতারা বলেছেন, ‘খালেদা জিয়ার জামিনে বাধা দেওয়া হবে না।’ আদালত প্রতিউত্তরে বলেছেন-‘শেখ হাসিনার কথা আর ওবায়দুল কাদেরের কথা এক নয়, ওবায়দুল কাদেরের কথা রাস্তার কথা।’ এতে পরিষ্কার প্রমাণিত যে, শেখ হাসিনাই কারাগারে তাকে (খালেদা জিয়া) আটকিয়ে রেখেছেন।’’

শেখ হাসিনার নির্দেশ ছাড়া খালেদা জিয়ার জামিনও মিলবে না বলে অভিযোগ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘প্রত্যাশা ছিল যে, ঈদুল আজহার আগেই তিনি কারামুক্ত হবেন। কিন্তু মানুষের সেই প্রত্যাশা পূরণ হয়নি।’

ঈদুল আজহার আগে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানান রিজভী।

‘ডেঙ্গু এলিট শ্রেণির মশা’ স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রীর এই বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘‘মন্ত্রীর এ বক্তব্য শুনে ‘টক অব দি সেঞ্চুরি’ বলবো নাকি ‘শক অব দি সেঞ্চুরি’ বলবো, এ নিয়ে দ্বিধায় আছি। মধ্যরাতের নির্বাচন করে আওয়ামী মন্ত্রিসভায় এডিস মশা বিস্তারের মতো গবুচন্দ্রের মন্ত্রীদেরও বিস্তার ঘটেছে।’

রিজভীর দাবি, উন্নয়নের নামে পকেট ভারী করার জন্যই আজকে ডেঙ্গুর মতো এই দুর্যোগ মোকাবিলায় অক্ষম সরকার। মশা নিধনে যদি সত্যিকারের কার্যকরী ওষুধ আনা হতো, তাহলে ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়তো না। মানুষ বাঁচাতে সরকারের কোনও দায়দায়িত্ব নেই। তারা লোক দেখানো মশা নিধনের নামে ক্যামেরা শ্যুটিং করছে।’

/এএইআর/এপিএইচ/

লাইভ

টপ