টিআর-কাবিখা থেকে মেগা প্রজেক্ট পর্যন্ত চলছে ভাগ-বাটোয়ারা: মির্জা ফখরুল

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:৩৫, আগস্ট ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:০২, আগস্ট ২০, ২০১৯

বর্তমান সরকারকে প্রতারক বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘গ্রাম থেকে শহর, যেখানকার মানুষের সঙ্গেই কথা বলেন, ইনভেস্টার, ব্যাংকারদের সঙ্গে যদি কথা বলেন, তাহলে দেখবেন, সব দিকে শুধু লুট চলছে। সম্পদ ও টাকা ভাগ-বাটোয়ারা করে নিচ্ছেন আওয়ামী লীগের নেতারা। টিআর, কাবিখা থেকে শুরু করে মেগা প্রজেক্ট পর্যন্ত সব জায়গায় এখন ভাগ-বাটোয়ারা চলছে।’

মঙ্গলবার ২০ আগস্ট জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে ন্যাশনালিস্ট রিসার্চ সেন্টার (এনআরসি) আয়োজিত ‘আমার দেশ আমার শিল্প’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, ‘কাল একটা কথা শুনলাম, মেট্রোরেল ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের একেকটা পিলার নাকি সরকারি দলের লোকজনকে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। তো আমি জিজ্ঞেস করলাম, এখানে তো বিদেশি বিনিয়োগকারীরা রয়েছে, এখানে তারা কাজ করছেন। তারা বলছেন, তাদের বাধ্য করা হয়েছে, একেকটা পিলার সরকারি দলের একেকজনকে দেওয়ার জন্য।’

তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্রকে বলা হয়- গভর্নমেন্ট অব দ্য পিপল, বাই দ্য পিপল, ফর দ্য পিপল। আজকের গভর্নমেন্ট হয়ে গেছে ফর দ্য লুটেরাস, বাই দ্য লুটেরাস, অব দ্য লুটেরাস। এখানে লুট ছাড়া আর কিছু নেই।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তাই, দেশকে বাঁচাতে হলে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হবে। দেশপ্রেমিক নেতাকে ফিরিয়ে আনতে হবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে নিয়ে আসতে হবে।’

তিনি বলেন, আজকে আমাদের শিল্পের যদি বিকাশ ঘটাতে হয় তাহলে বাংলাদেশকে নিয়ে চিন্তা করতে হবে। সরকারের ব্যর্থতা এই জায়গাতেই। এই সরকারকে দিয়ে এটা হবে না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের এখানে ম্যানুফেকচারিং ইন্ডাস্ট্রিজ গড়ে উঠছে না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ইন্ডাস্ট্রিজ বলতেই গার্মেন্টস। বিশেষ একটি প্রতিষ্ঠানের জন্য জনতা ব্যাংকের লোন বন্ধ হয়েছে। এগুলো ঠিকমতো নিয়ে আসতে না পারলে হবে না। কারণ, সরকার আসলে পুরোপুরি প্রতারক সরকারে পরিণত হয়েছে। এখানে লুট ছাড়া কিছু নেই, একেবারে তৃণমূল থেকে শুরু করে উপর পর্যন্ত শুধু লুটপাট চলছে।’

চামড়া শিল্প নিয়ে তিনি বলেন, বর্তমানে চামড়া শিল্প চরম বিপাকের মধ্যে পড়েছে। এই কোরবানি ঈদে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও এতিমখানাগুলো। যে এতিমখানাগুলো কোরবানির চামড়া থেকে বছরের অর্ধেক সময়ের অর্থের সংস্থান করতো তারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অত্যন্ত কৌশলের মধ্যে দিয়ে কারসাজি করে চামড়ার দাম না দিয়ে নষ্ট করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সময়মতো চামড়া বিক্রি না হওয়ায় অর্ধেকের বেশি চামড়া নষ্ট হয়ে গেছে।’ 

আলোচনা সভায় ন্যাশনালিস্ট রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক বাবুল তালুকদার, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

/এইচএন/টিটি/এমএমজে/

লাইভ

টপ