গোপনে চিঠি দিয়ে ছাত্রদলের প্রার্থীদের তথ্য যাচাই

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০৩:০১, আগস্ট ২৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:১৪, আগস্ট ২৮, ২০১৯

২৭ বছর পর ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর। সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হবেন সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। এরই মধ্যে যাচাই কমিটির বাছাইয়ে পাস করেছেন ৪৫ জন প্রার্থী। সংগঠনের শীর্ষ দুই পদে আবেদনকারীদের বেশিরভাগই বাছাইয়ে বাদ পড়েছেন।

বাছাই কমিটি ও প্রার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে ১১০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এরপর সংশ্লিষ্ট প্রার্থীদের বিষয়ে জানতে তাদের নিজ নিজ জেলায় চিঠি পাঠায় বিএনপি। স্থানীয় বিএনপি এবং দলটির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের দায়িত্বশীল নেতাদের কাছে পত্র মারফত সহযোগিতা চাওয়া হয়। তথ্য যাচাইয়ে নিজস্ব উদ্যোগে খবর নেওয়া হয় প্রার্থীদের নিজ এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও।
সভাপতি প্রার্থী মামুন খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমার এলাকা ঝালকাঠি। এই কয়েকদিনে কমপক্ষে ৫০টি ফোন এসেছে আমার কাছে। আমাকে বলা হয়েছে, আমার সম্পর্কে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে ঢাকা থেকে। আমি প্রচারণায় আছি, ফোনে এসব তথ্য জানানো হচ্ছে। বাছাই কমিটি সুন্দরভাবে আমাদের কাউন্সিল উপহার দেওয়ার জন্যই এই উদ্যোগ নিয়েছেন। এই খোঁজখবর নেওয়ার মানে হচ্ছে- কাউন্সিল কেমন হবে তার বার্তা হাইকমান্ড আমাদের দিচ্ছেন।’
বাছাই কমিটির সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য সাবেক সভাপতি আল মেহেদি তালুকদার ছিলেন ছাত্রদলের দুটো সিন্ডিকেটের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী প্রার্থী। কিন্তু তার বিয়ের তথ্য বাছাই কমিটির কাছে প্রমাণিত হওয়ায় মনোনয়নপত্র অবৈধ হয়। কমিটির সূত্র বলছে, আল মেহেদির বিয়ে নিয়ে চারটি কাবিননামা বাছাই কমিটির হাতে পৌঁছে। এর মধ্যে একটি সঠিক, অন্য তিনটি কাগজ ভুয়া প্রমাণিত হয়েছে। এছাড়া অনেক প্রার্থী বয়স কমিয়ে দেখালেও স্থানীয় তথ্য এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্য মিলিয়ে দেখা হচ্ছে। তথ্য ভুল প্রমাণিত হওয়ায় অনেকের প্রার্থিতা বাতিল হয়েছে।
ছাত্রদলের নির্বাচন পরিচালনা কমিটি জানায়, ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩১ আগস্ট। চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হবে ২ সেপ্টেম্বর। প্রার্থীরা প্রচার চালাতে পারবেন ৩ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ সেপ্টেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত। আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর এই দু’টি পদে ভোট হবে।
খসড়া তালিকায় সভাপতি পদে বৈধ ১৫ প্রার্থী হচ্ছেন, কাজী সুলাইমান হোসেন, রিয়াদ মো. তানভীর রেজা রুবেল, মো. সুরুজ মণ্ডল, রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, মো. মামুন খান, আশরাফুল আলম ফকির, মো. ফজলুর রহমান খোকন, মো. আবদুল মাজেদ, মাহমুদুল হাসান বাপ্পি, হাফিজুর রহমান, মো. এরশাদ খান, মো. শামীম হোসেন, মো. ইলিয়াস, এস এম সাজিদ হাসান বাবু, এবিএম মাহমুদ আলম সরদার। এ পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন ২৭ জন।
সাধারণ সম্পাদক পদে খসড়া তালিকায় ৩০ জন বৈধ প্রার্থী রয়েছেন। তারা হলেন, মো. আরিফুল হক, শেখ আবু তাহের, শাহ নাওয়াজ, মো. মহিউদ্দিন রাজু, আবদুল মোমেন মিয়া, রাকিবুল ইসলাম রাকিব, মো. জাকিরুল ইসলাম জাকির, মো. কারিমুল হাই, মাজেদুল ইসলাম, মো. আলাউদ্দিন খান, ডালিয়া রহমান, মো. মিজানুর রহমান সজীব, নাজমুল হক হাবিব, ওমর ফারুক শাকিল, মো. আমিনুর রহমান আমিন, মুন্সি আনিসুর রহমান, মো. ইকবাল হোসেন শ্যামল, মো. জুয়েল হাওলাদার, মো. হাসান, মো. মিজানুর রহমান শরিফ, মো. রাশেদ ইকবাল খান, রিয়াদ মো. ইকবাল হোসাইন, মো. আজিজুল হক সোহেল, শেখ মো. মশিউর রহমান রনি, মোস্তাফিজুর রহমান, মো. আবুল বাশার, মো. আসাদুজ্জামান রিংকু, সোহেল রানা, কাজী মাজহারুল ইসলাম, এ এ এম ইয়াহ ইয়া। এ পদে ৪৯ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। বিভিন্ন কারণে বাকিদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়।
যাচাই-বাছাই কমিটির আহ্বায়ক, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলনের সভাপতিত্বে খসড়া তালিকা প্রকাশের সভায় উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক খায়রুল কবির খোকন, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ। কাউন্সিলের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কাউন্সিলের অন্যতম দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘বিএনপি ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিল সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যেই সবাই কাজ করছেন।’

প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে পারেন অনেকে
বাছাই কমিটির সূত্র জানায়, ১০ শতাংশ ভোট না পেলে কোনও পদই পাওয়া যাবে না- এমন শর্ত থাকায় অনেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে ষষ্ঠ কাউন্সিলে শক্ত প্রার্থিতা দেখা যেতে পারে। বাছাই কমিটির এই কার্যক্রমের পরও কয়েকজন বৈধ প্রার্থীর আশঙ্কা- এখনও সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রণ অব্যাহত রয়েছে। হাইকমান্ড শক্ত হাতে পরিস্থিতি সামাল না দিলে কাউন্সিলে কোনও ফল আসবে না।

আরও পড়ুন:  ছাত্রদলের শীর্ষ দুই পদে বৈধ প্রার্থী ৪৫ জন

                ছাত্রদলের কমিটি বাতিল, ৪৫ দিনের মধ্যে কাউন্সিলের নির্দেশ

                ছাত্রদলের নতুন নেতৃত্বের খোঁজে ৩ বিশেষ কমিটি

 

 

/এসটিএস/ওআর/

লাইভ

টপ