ঢাবিতে সব সংগঠনের সহাবস্থান নিশ্চিত করাই ছাত্রদলের প্রথম টার্গেট

Send
আদিত্য রিমন
প্রকাশিত : ২৩:০৩, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৪৯, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯

ছাত্রদলসারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রায় এক যুগ ধরে বিএনপির ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রদলের কোনও অবস্থান নেই। যা দৃশ্যমান হয়েছে দীর্ঘ ২৮ বছর পরে অনুষ্ঠিত হওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে ছাত্রদলের ভরাভুবির মাধ্যমে। তবে, এবার সংগঠনকে গুছিয়ে আনতে চায় ছাত্রদলের নবনির্বাচিত কমিটি। এরই অংশ হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)সহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোয় অন্যান্য সংগঠনের সঙ্গে নিজেদের সহ-অবস্থান নিশ্চিত করাই প্রথম টার্গেট হিসেবে নিয়েছে সংগঠনটি।   

এই প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ছাত্রদলের নব নির্বাচিত কমিটির সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, ‘ঢাবিসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় ছাত্রদলের সহ-অবস্থান তৈরি করা আমাদের প্রধান টার্গেট। বিশেষ করে, ঢাবির মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের অবস্থান নিয়মিত করতে চাই। এই বিষয়গুলোয় আমরা বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ ২৮ বছর পর গত ১৮ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের শাহজাহানপুরের বাড়িতে ৪৮১ জন কাউন্সিলরের প্রত্যক্ষ ভোটে ছাত্রদলের সভাপতি নির্বাচিত হন ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল।

ওই নির্বাচনের  পর শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে একান্ত আলাপকালে ছাত্রদলের নবনির্বাচিত সভাপতি বলেন, ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় ছাত্রদলের সহ-অবস্থান নিশ্চিত করতে আমরা ছাত্রলীগসহ অন্যান্য ছাত্রসংগঠনের সঙ্গে আলোচনা করবো। এরপর যে পরিবেশ-পরিস্থিতি দাঁড়াবে, সেই অনুযায়ী আমাদের পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবো।’

খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন ত্বরান্বিত করাকে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজের পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান ছাত্রদলের সভাপতি। তিনি বলেন, ‘অতীতের দেশনেত্রীর মুক্তি আন্দোলনের ব্যর্থতার কারণে আমাদের অভিভাবক তারেক রহমান কাউন্সিলের মাধ্যমে ছাত্রদলের নেতৃত্ব নির্বাচন করেছেন। আশা করি, শিগগিরই আপনারা জানতে পারবেন, কোনও কৌশলে খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনকে ত্বরান্বিত করবো আমরা।’ বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজেদের সহাবস্থান নিশ্চিত করার পাশাপাশি ছাত্রদের অধিকার আদায় নিশ্চিতে আন্দোলনেরও পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

ছাত্র রাজনীতির গুণগত পরিবর্তন ও যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে শিক্ষা, ঐক্য ও প্রগতি—এই তিন মূলনীতিকে সামনে রেখে ১৯৭৯ সালে ছাত্রদল প্রতিষ্ঠা করেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান। প্রতিষ্ঠার ৪০ বছর পার হলেও ছাত্রদলের নিজস্ব কোনও গঠনতন্ত্র নেই।  

এক প্রশ্নের জবাবে ছাত্রদলের সভাপতি খোকন বলেন, ‘আমাদের গঠনতন্ত্র নিয়ে কাজ চলছে। আশা করি, দ্রুত গঠনতন্ত্র পেয়ে যাবো।’

কবে নাগাদ ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে—জানতে চাইলে খোকন বলেন, ‘নির্দিষ্ট দিন-তারিখ বলা তো মুশকিল। তবে,  তাড়াতাড়ি পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেওয়া হবে।’

কেন্দ্রীয় কমিটির মতো সারাদেশে জেলা-থানা ও বিশ্ববিদ্যালগুলোয় কাউন্সিল করে ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হবে জানান খোকন। তিনি বলেন, ‘তারেক রহমানের সরাসরি নির্দেশে সব জেলা-থানা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে কাউন্সিলের মাধ্যমে ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হবে।’ সরাসরি ভোটের মাধ্যমে বাকি কমিটিগুলো গঠন করা বলেও তিনি জানান।

 

/এমএনএইচ/

লাইভ

টপ