কোনও প্রতিষ্ঠান ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করলে আমরা নাক গলাবো না: নুর

Send
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:৪২, অক্টোবর ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:২১, অক্টোবর ১২, ২০১৯

মধুর ক্যান্টিনে ভিপি নুরের সংবাদ সম্মেলনঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, ‘একটি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের স্বার্থে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ কিংবা বৃহত্তর সিদ্ধান্ত নিতে পারে। সেটা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। আমরা এটাতে নাক গলাবো না।’

শনিবার (১২ অক্টোবর) মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলনে ভিপি নুর একথা বলেন।

নুর বলেন, ‘তারা তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করছে না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) হল কারা চালাচ্ছে, সেটা ওপেন সিক্রেট। বেশিরভাগ হল ক্ষমতাসীন দল ছাত্রলীগ চালাচ্ছে। হাউস টিউটর, প্রভোস্ট সেখানে থাকেন। তারা পাবলিকের টাকায় বেতন নেন, তারা শিক্ষক কিনা, সেই প্রশ্ন উঠছে। শিক্ষকরা দায়িত্ব পালন না করে পছন্দের ছাত্র সংগঠনকে দিয়ে হল চালান, সেটি সমগ্র জাতিকে ব্যথিত করে।’

বুয়েটের শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এদেশের ছাত্র রাজনীতির গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা স্মরণ আছে আপনাদের। ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি কেন এলো? ক্ষমতাসীন রাজনীতির বেপরোয়া সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণে এসেছে। লেজুড়বৃত্তিক ছাত্র রাজনীতি বন্ধ আমাদের সবার দাবি। ইতোমধ্যে তারা তাদের বক্তব্যে স্পষ্ট করেছে, তারা ছাত্র রাজনীতি বা স্টুডেন্ট অ্যাক্টিভিজম নিষিদ্ধের দাবি জানাননি। সাংগঠনিক ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি জানিয়েছেন।’

ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, ‘ক্যাম্পাসগুলোতে যে ছাত্র হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, এটি নতুন কোনও বিষয় নয়। ১৯৭৪ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ১৫১টি ছাত্র হত্যাকাণ্ড হয়েছে। একমাত্র ঢাবির মুহসীন হলে সাত হত্যাকাণ্ড ছাড়া কোনও একটি ঘটনার বিচার হয়নি। যার কারণে, এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের পুনরাবৃত্তি ঘটছে। তাই আমরা চাই ক্যাম্পাসগুলোতে ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের যে আধিপত্য রয়েছে, তা বন্ধ হোক। এই কলুষিত ছাত্র রাজনীতির জন্য শুধু ছাত্ররাই দায়ী নয়, প্রশাসনও প্রত্যক্ষভাবে দায়ী।’ 

ছাত্র সমাজের ৫ দফার আলোকে যে আন্দোলন চলছে তা অব্যাহত থাকবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের আন্দোলন চলবে এবং আগামীকাল শাহবাগে ছাত্র সমাবেশের ডাক দেন তিনি।’

সংবাদ সম্মেলন শুরুর আগে ঢাবি সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিদ ইসলাম গত কয়েক দিনের আন্দোলনের বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, ‘আবরার হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে গত কয়েকদিন আমরা তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ মিছিল ও পরবর্তীতে গণজমায়েত, গণপদযাত্রাসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছি।’

/ইউআই/এসটি/এমএমজে/

লাইভ

টপ