behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

জমিয়তের নির্বাহী সভাপতি ওয়াক্কাছ, মহাসচিব নূর হোসাইন কাসেমী

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।১৬:৪২, নভেম্বর ০৭, ২০১৫

ওয়াক্কাছ-কাসেমীজমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের ত্রিবার্ষিক কাউন্সিলে  মুফতি ওয়াক্কাছকে নির্বাহী সভাপতি ও মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমীকে মহাসচিব করা হয়েছে। শনিবার সকালে রাজধানীর আজিমপুর এলাকায় একটি কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত এই কাউন্সিলে দলটির আট শতাধিক কাউন্সিলর যোগ দেন।

যদিও কাউন্সিলের আগে থেকেই দলের নির্বাহী সভাপতি ও মহাসচিব পদ নিয়ে লবিং শুরু হয় এবং বড় পরিবর্তনেআভাস পাওয়া যায়।  ২০ দলীয় জোটের শরিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একাধিক বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলেছে নাটকীয়তা। দলের গুরুত্ব পূর্ণ পদে নিজেদের অবস্থান  ধরে রাখতেজমিয়তে মধ্যরাতে ঝড় বয়ে যায়।

সূত্র জানায়, দলের পদ পাওয়া-না পাওয়ার জেরে ভাঙতে-ভাঙতে শেষ পর্যন্ত রক্ষা পেয়েছে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ। শুক্রবার বিকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলেছে নাটকীয়তা। অবশেষে শুক্রবার দিবাগত মধ্যরাতে সিদ্ধান্ত হয়েছে ২৪ বছরের অভিজ্ঞ মহাসচিব মুফতি ওয়াক্কাছকে নির্বাহী সভাপতি ও মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমীকে মহাসচিব করার। যদিও  বিগত এক বছরের বেশি সময় ধরে মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমীর প্রশ্রয়ে একটি বিরোধী গ্রুপ তাকে মহাসচিব পদ থেকে সরাতে তৎপর ছিল। এই গ্রুপে মাওলানা আবদুর রব ইউসূফী, মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক, শাহীনূর পাশা চৌধুরী, মাওলানা জিয়াউদ্দীনসহ আরও অনেকে ছিলেন। কিন্তু  নির্বাহী সভাপতি বা আগের পদ মহাসচিব না পেলে মুফতি ওয়াক্কাছের নেতৃত্ব নতুন জমিয়ত দাঁড়িয়ে যেত। এমনকি শনিবারই অন্য অংশের কাউন্সিলের পাশাপাশি রাজধানীর কোনও অডিটোরিয়ামে তারা নতুন কমিটির ঘোষণা হতো। এই কমিটিতে হবিগঞ্জের মাওলানা তাফাজ্জুল হক, শায়খ নোমানের নাম সভাপতি হিসেবে প্রস্তুত ছিল। পাশাপাশি মানসুরুল হক রায়পুরী, মহিউদ্দীন ইকরাম, অলিউল্লাহ নোমানসহ অনেকে কেন্দ্রীয় বড় পদ থাকত।

শনিবার সকালে রাজধানীর আজিমপুরে ঢাকা কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত  কাউন্সিলে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকেই দলটির আট শতাধিক কাউন্সিলর যোগ দেন। এরমধ্যে নব নির্বাচিত মহাসচিব মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমীর অনুসারীদের প্রভাব বেশি দেখা যায়। কাউন্সিলের শুরুতে দলের নেতারা বক্তব্য রাখেন। কাউন্সিলে মজলিসে আমেলার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১০১ সদস্যের নতুন কমিটির নাম প্রস্তাব করেন মাওলানা জহুরুল হক ভূইয়া। কণ্ঠভোটে এই কমিটি অনুমোধিত হয়।

নতুন কমিটিতে যারা আছেন

সভাপতি মাওলানা শেখ আব্দুল মুমিন, নির্বাহী সভাপতি মুফতি ওয়াক্কাছ, মহাসচিব মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী, সহ-সভাপতি- মাওলানা মহিউদ্দীন খান, মাওলানা তাফাজ্জল হক হবিগঞ্জী, মাওলানা মোস্তফা আজাদ, মাওলানা জিয়া উদ্দিন, মাওলানা জহিরুল হক ভূইয়া, মাওলানা আব্দুর রব ইউসূফী, মাওলানা জোনায়েদ আল হাবীব, কারী আব্দুল খালেক, মাওলানা তৈয়ব নেজামী, মাওলানা আনোয়ারুল করীম, মাওলানা মনসূর হাসান রায়পূরী, মাওলানা গোলামুর রহমান, মাওলান আব্দুর রহিম ইসলামাবাদী,  যুগ্ম মহাসচিব- মাওলনা মঞ্জুরুল ইসলাম, মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া, মাওলানা শাহীনুর পাশা, মাওলানা নাজমুল হাসান, মাওলনা ফজলুল করীম, মাওলানা তাফাজ্জল হক আজীজ, মাওলানা মোহাম্মদুল্লাহ জামী, মাওলানা শেখ মুজিবুর রহমান, মাওলানা মহিউদ্দিন ইকরাম, সহকারি মহাসিচব মাওলানা মাসউদুল করীম, মাওলানা আব্দুল বছীর, মাওলনা আতাউর রহমান, মাওলানা মতিউর রহমান কাসেমী, মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ সাদী, মাওলানা আরিফ বিল্লাহ, মাওলানা আব্দুল হক কাউছারী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক, অর্থ সম্পাদক মাওলানা মুনীর হোসাইন, কৃষি সম্পাদক মাওলানা ওয়ালী উল্লাহ আরমান, প্রচার সম্পাদক মাওলানা যয়নুল আবেদীন প্রমুখ।

/সিএ/এমএনএইচ/  

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ