আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র আমরা সততা দিয়ে জয় করেছি: প্রধানমন্ত্রী

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট২১:০২, মার্চ ১৮, ২০১৬

যুদ্ধের একেবারে শেষ দিকে নিজ দেশের নাগরিকদের নিরাপদে সরিয়ে নিতে বঙ্গোপসাগরে সপ্তম নৌবহর পাঠানোর ঘোষণা দেয় আমেরিকা। জবাবে, সোভিয়েত ইউনিয়নও তাদের নৌবহর পাঠানোর ঘোষণা দিলে নিজেদের অবস্থান থেকে সরে যায় যুক্তরাষ্ট্র।

শেখ হাসিনা বলেন, তাই তাদের ষড়যন্ত্র চলছিল। আর সেই ষড়যন্ত্রের শিকার হলো জাতির পিতা ১৯৭৫ এর ১৫ অগাস্টে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্র পরিচালনা করতে গিয়ে যেখানেই কাজ করতে হাত দেই, সেখানেই দেখি বঙ্গবন্ধুর হাত, তার অবদান। বঙ্গবন্ধু সব জায়গায় কাজ শুরু করে গিয়েছিলেন। একজন মানুষ, একটি সরকার মাত্র সাড়ে তিন বছরে কীভাবে এত কাজ করতে পারে, তা ভাবতেই অবাক হতে হয়।

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা বলেন, একটি স্বাধীন দেশ গড়ে তুলতে বঙ্গবন্ধু শিক্ষা স্বাস্থ্যসহ সব সেক্টরেই কাজ শুরু করেছিলেন। তিনি সকলকে পুনর্বাসিত করেছিলেন, লাঞ্চিত মা-বোনদের আশ্রয়ের ব্যবস্থা করেছিলেন। একটি স্বাধীন দেশের আইন-কানুন তৈরির কাজ শুরু করেছিলেন। জাতিকে একটি সংবিধান দিয়েছিলেন। একইসঙ্গে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের স্বীকৃতি সমর্থন এবং জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্যপদ লাভ করেছিলেন।

বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, যারা পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করে। বাস, ট্রাক, লঞ্চ, স্কুল কোনও কিছুই তাদের হাত থেকে রেহাই পায় না, তারা পুড়িয়ে সবকিছু ধ্বংস করে দিতে চায়। যাদের আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে তাদের পরিবারের লোকজনের কীভাবে জীবন কাটছে, কেমন আছেন সেই পোড়া মানুষেরা, সেই খবর তিনি একবারও ভাবেন না।

লাইভ

টপ