Vision  ad on bangla Tribune

দলীয় নেতাদের সংযত হওয়ার পরামর্শ শেখ হাসিনারঅর্থমন্ত্রীর ওপর চটেছেন আ. লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা

এমরান হোসাইন শেখ০৩:২৮, মার্চ ২১, ২০১৬

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতঅর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের ওপর চটেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। রবিবার অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে অধিকাংশ নেতাই বাংলাদেশ ব্যাংকের সদ্য বিদায়ী গভর্নর ড. আতিউর রহমানকে জড়িয়ে অর্থমন্ত্রীর দেওয়া ‘বিতর্কিত’ মন্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। তারা বলেন, অর্থমন্ত্রী রিজার্ভ খোয়া যাওয়ার মতো স্পর্শকাতর বিষয়টিকে ব্যক্তিগত পর্যায়ে নিয়ে অকারণে গভর্নরের ওপর তার আক্রোশ মিটিয়েছেন। এতে সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে।  বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী  আওয়ামী লীগের নেতাদের বেফাঁস কথাবার্তা না বলে সংযতভাবে কথা বলার পরামর্শ দেন। রবিবার গণভবনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দলের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে এসব কথা ওঠে। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক শীর্ষ নেতা বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য জানান।
এদিকে, বাংলাদেশ ব্যাংকের গর্ভনরকে নিয়ে দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নূহ-উল আলম লেনিনের ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়েও সমালোচনা করা হয়। বৈঠকে মানবতাবিরোধী  অপরাধীদের বিচারের রায় নিয়ে প্রধান বিচারপতিকে জড়িয়ে খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হোসেনের সমালোচনা করেন কয়েকজন নেতা।
সূত্র জানায়, দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনার জের ধরে অর্থমন্ত্রীর সাম্প্রতিক মন্তব্য নিয়ে আলোচনার সূত্রপাত ঘটান। পরে সাংগঠিক সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাছিম, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমসহ প্রায় সব নেতাই এই প্রসঙ্গে কথা বলেন। তারা বলেন, অর্থমন্ত্রী একটি স্পর্শকাতর বিষয়কে ব্যক্তি পর্যায়ের রেষারেষিতে নিয়ে গেছেন। তার আচরণে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। সরকার বিব্রত হয়েছে।

লাইভ

টপ