জাপার কাউন্সিল: ভেন্যু ইঞ্জিনিয়ার্স-সোহরাওয়ার্দী, আসবেন ৩ দেশের অতিথি

Send
সালমান তারেক শাকিল
প্রকাশিত : ১৯:০২, এপ্রিল ২৪, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:১২, এপ্রিল ২৪, ২০১৬

জাপাআগামী ১৪ মে অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় পার্টির ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের ভেন্যু হিসেবে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের একাংশ চূড়ান্ত করা হয়েছে। এ দিন সকাল ১০টায় শুরু হবে উদ্বোধনী পর্ব। কাউন্সিলে গঠনতন্ত্র সংশোধন, আগামী দিনের নেতৃত্ব ও রাজনৈতিক বক্তব্য—এই তিনটি লক্ষ্যকে সামনে রেখে প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছেন দলটির নেতাকর্মীরা। এদিকে, এখন পর্যন্ত জাপার কাউন্সিলে রওশনপন্থীদের অংশগ্রহণ নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকলেও এরশাদ অংশের নেতারা আশাবাদী, তারা কাউন্সিলে অংশ নেবেন। এছাড়া,  যুক্তরাষ্ট্র, ‍যুক্তরাজ্য ও ভারত থেকে দলীয় লোকদের আনার কথা রয়েছে। একই সঙ্গে এই তিনটি দেশের বেশ কয়েজন বিশিষ্ট নাগরিকও  আমন্ত্রিত অথিতি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।  জাপার কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।
জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক গোলাম মোহাম্মদ কাদের বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমাদের কাউন্সিলের ভেন্যু হিসেবে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের একটি অংশকে চূড়ান্ত করেছি। আমরা ভাড়া করেছি।
জানা গেছে, ভেন্যু চূড়ান্ত করেই ঢাকা মহানগর পুলিশের কাছে কাউন্সিল অনুষ্ঠানের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছে জাপা। তবে অনুমতি দিতে ডিএমপি আরও সময় নিতে পারে।

জাপা সূত্র জানায়, ১৪ মে’র কাউন্সিলে প্রা ১৯ হাজার কাউন্সিলর, ২৫ হাজারের মতো ডেলিগেট ও আমন্ত্রিত অতিথি মিলিয়ে ৫০ হাজার লোকের প্রস্তুতি নিচ্ছে জাপা। এর মধ্যে দেশের রাজনৈতিক দলগুলোকে কাউন্সিলে আসার আমন্ত্রণ জানানো হবে।  তবে, নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধন স্থগিত থাকায় জামায়াতকে দাওয়াত দেবে না জাপা।

ইতোমধ্যে বিদেশি মেহমানদের দাওয়াত দেওয়ার কথা আলোচনা হয়েছে। আমন্ত্রণপত্র ড্রাফট করা হলেও এখন পর্যন্ত কোথাও পাঠানো হয়নি। এছাড়া, আমেরিকা, ব্রিটেন ও ভারত থেকে দলীয় লোকদের আনার কথা জানিয়েছেন জাপার একাধিক দায়িত্বশীল নেতা।

আরও পড়তে পারেন: সাত ব্যাংক২০১৫ সালে এক পয়সাও মুনাফা হয়নি ৭ ব্যাংকের

দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছোটভাই জাপার কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমাদের কাউন্সিলের প্রস্তুতি পুরোদমে চলছে। শনিবারও আমরা বসেছি। বৈঠক করেছি। ইনশাল্লাহ কাউন্সিল সফল হবে। তবে প্রশাসনের অনুমতি পেতে সময় লাগবে। এটা হয়তো কাউন্সিলের দুই-চারদিন আগে দেবে।

গোলাম মোহাম্মদ কাদের জানান, কাউন্সিলে প্রধানত তিনটি কাজকে সামনে রাখা হচ্ছে। একটি হচ্ছে, গঠনতন্ত্র সংশোধন, আগামী দিনের নেতৃত্ব ও রাজনৈতিক অবস্থান বা বক্তব্য। দলের চেয়ারম্যান এ নিয়ে দেশবাসীকে জাপার অবস্থান সম্পর্কে অবহিত করবেন। পরবর্তী রাজনৈতিক কর্মপরিকল্পনা নিয়েও জানাবেন তিনি।

কাউন্সিলের সেশন সম্পর্কে জিএম কাদের জানান, এখন পর্যন্ত আমরা দুটো সেশনের কথা ভাবছি। তিনটিও হতে পারে। তবে এ মাসের শেষ নাগাদ এ বিষয়গুলো নিশ্চিত করতে পারব। তিনি আরও জানান, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ভারতের বেশ কয়েজন বিশিষ্ট নাগরিকও  আমন্ত্রিত অথিতি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। 

আরও পড়তে পারেন:ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ যেভাবে সরকারের মুঠোয় যাচ্ছে ইসলামী ব্যাংক

প্রসঙ্গত, জাপার কাউন্সিলের প্রথম তারিখ ছিল ১৬ এপ্রিল। পরে তা পিছিয়ে করা হয় ২৩ এপ্রিল। ওই তারিখে রংপুরে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচন হবে। এ জন্য পুনরায় পিছিয়ে করা হয় ৩০ এপ্রিল। সেটিও পিছিয়ে এখন ১৪ মে নির্ধারিত আছে।

এদিকে, জাপার কাউন্সিলে রওশনপন্থীদের অংশগ্রহণ নিয়ে অনিশ্চয়তা এখনও কাটেনি। যদিও জাপার কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটি, সাব কমিটিগুলোয় ওই গ্রুপটির নেতাদের নাম রয়েছে।

গোলাম মোহাম্মদ কাদের আশা প্রকাশ করছেন, তাদের আমরা যথাযথ সম্মান করছি। তাদের প্রাপ্য সম্মান তারা পাচ্ছেন। সাব-কমিটির বৈঠকেও অনেকে অংশ নিচ্ছেন। ফলে আমরা বিভাজন চাই না। হতে পারে দুই-একজন নাও আসতে পারেন।

/ এমএনএইচ/

লাইভ

টপ