behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

বার্সেলোনার জন্য রোনালদোর দাম ১৭ মিলিয়ন ইউরো!

স্পোর্টস ডেস্ক১২:২০, ডিসেম্বর ০২, ২০১৬

ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো খেলছেন বার্সেলোনার জার্সি গায়ে, লিওনেল মেসির পাস থেকে পূরণ করলেন আরও একটি হ্যাটট্রিক! অবাস্তব লাগছে, তাই তো? অথচ এই দৃশ্যটা বাস্তবও হতে পারতো, যদি ২০০৩ সালে প্রস্তাবটা লুফে নিতেন হুয়ান লাপোর্তা। বার্সেলোনার সাবেক সভাপতি চাইলে নাকি ১৭ মিলিয়ন ইউরোতেই পতুর্গিজ যুবরাজকে ভিড়াতে পারতেন দলে!

বার্সেলোনাকে নতুন রূপে হাজির করে বিশ্ব শাসন করার ভিত গড়ে দিয়েছেন এই লাপোর্তাই। ২০০৩ থেকে ২০১০ পর্যন্ত কাতালান ক্লাবটির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করার পথে সাফল্যের বৃষ্টি ঝরিয়েছেন ন্যু ক্যাম্পে। সাফল্যের পথে যোগ করতে পারতেন রোনালদোকেও। দলবদলের বিশ্ব রেকর্ড গড়ে ২০০৯ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে ৯৪ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে তাকে কিনেছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ। অথচ ২০০৩ সালে চাইলে ১৭ মিলিয়ন ইউরোতেই তাকে পেয়ে যেত বার্সেলোনা। তখনকার সভাপতি লাপোর্তা কেন কেনেননি, তার ব্যাখ্যা দিলেন এভাবে, ‘দায়িত্ব নেওয়ার পর আমরা (তার প্রশাসন) সবকিছু নতুন করে শুরু করার চেষ্টায় ছিলাম। ওই সময় আমরা রোনালদিনহো, রাফায়েল মারকুয়েস, রিকার্দো কারেসমার মতো খেলোয়াড়দের কেনায় আর খরচ করতে চাইছিলাম না। এই তিন জনের এজেন্ট হোর্হে মেন্দিস আমাকে বলেছিলেন, আরেকজন ভালো খেলোয়াড় আছে। সেটা ছিল ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো।’

রোনালদোর তখনকার ক্লাব স্পোর্তিং লিসবনের সঙ্গে আলোচনা সে সময় অনেক দূরই এগিয়ে গেছে ম্যানইউয়ের। এর পরও পতুর্গিজ তারকার এজেন্ট চেয়েছিলেন রোনালদো খেলুক বার্সেলোনাতেই। সে কারণেই হয়তো প্রস্তাবটা ছিল ম্যানইউয়ের চেয়ে ২ মিলিয়ন ইউরো কমের। শনিবারের এল ক্লাসিকোর আগে ওই কথাটাও জানিয়ে রাখলেন লাপোর্তা, ‘তিনি (মেন্দিস) ম্যানইউয়ের সঙ্গে চুক্তি চূড়ান্ত করেছিলেন ১৯ মিলিয়ন ইউরোতে, তবে আমাদের জন্য প্রস্তাবটা ছিল ১৭ মিলিয়ন ইউরোর।’ মার্কা

/কেআর/

ULAB
Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ