শ্রীলঙ্কার অভাবনীয় জয় চ্যাম্পিয়নস ট্রফির বড় চমক

Send
গাজী আশরাফ হোসেন লিপু
প্রকাশিত : ১৪:৪৪, জুন ০৯, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩২, আগস্ট ২৯, ২০১৭

.শ্রীলঙ্কার এই অনভিজ্ঞ দলের কাছে ভারতের পরাজয় ছিল এ টুর্নামেন্টের একটা বড় চমক। এই গ্রুপের পরবর্তী দুটি ম্যাচই কোয়ার্টার ফাইনাল। আমরা অনেকেই ভেবেছিলাম প্রায় নিশ্চিতভাবে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা গ্রুপটি থেকে অনায়াসে সেমিফাইনালে পৌঁছে যাবে। কিন্তু পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটাররা দারুণ নৈপুণ্য প্রদর্শণের মাধ্যমে তাদের দ্বিতীয় ম্যাচে ফিরে এলেন। কাল দিন শেষে ৮ বল হাতে রেখে ৭ উইকেটে এত বড় জয় শ্রীলঙ্কা তুলে নেবে, এটা তাদের ইনিংস শুরুর আগে আমিও ভাবিনি।

কাল ভারত ভালো ব্যাটিং উপযোগী পিচে ব্যাটিং শুরু করে এবং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সেই পিচ আরও ব্যাটিং সহায়ক হয়েছে। শ্রীলঙ্কার ব্যাটিংয়ে শুরুর কয়েকটি ওভার বাদ দিলে এ টুর্নামেন্টের অন্যতম সেরা পিচে তারা ব্যাট করেছে।
ভারতের এত চমৎকার সূচনার পরও তাদের ৩২১ রানে সীমাবদ্ধ রাখার কৃতিত্ব দলনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজকে দিতে হয়। এছাড়া একাধিক খেলোয়াড়দের সংযোজন নিয়ে শ্রীলঙ্কা লড়ার ও ম্যাচ জেতার যে আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ করেছে সেটা ছিল অত্যন্ত ইতিবাচক। তাদের নিয়মিত পেস বোলাররা একটু খরুচে হলেও তারা বিরাট কোহলি, যুবরাজ সিং বা হার্দিক পান্ডিয়ার মতো ব্যাটসম্যানদের উইকেটে থিঁতু হতে দেননি এবং এ কারণেই ভারতের ব্যাটিং মাঝ পর্যায় থেকে রান সংগ্রহে যে গতি সঞ্চার করার কথা ছিল তা পায়নি। তবে কেদার যাদব ও ধোনি ফিনিশিংটা চমৎকার করেছিলেন।

কাল তাদের ভারপ্রাপ্ত দলনায়ক উপুল থারাঙ্গাকে সরিয়ে ধানুশকা গুনাতিলাকাকে সংযোজনের মাধ্যমে ম্যাথুজ একটি চমৎকার অলরাউন্ড পারফরম্যান্স তার কাছ থেকে আদায় করে নিয়েছেন। গুনাতিলাকার সঙ্গে কুশল মেন্ডিসের সময়োপযোগী বীরোচিত ব্যাটিং তাদের জয়ের ভিত গড়ে দিয়েছে। ভারতের কোনও বোলারই তাদের লাইন, গতি বা বাউন্সের মাধ্যমে তাদের বিচলিত করতে পারেনি। ভারতের চমৎকার ফিল্ডিংয়ের কারণে এই দুজনকে যখন রান আউট হয়ে ফিরতে হলো, ঠিক সেই সময়ই এই ম্যাচে ভারতের ফেরত আসার একমাত্র সুযোগ সৃষ্টি হয়েছিল।

পুরো আইপিএলে দেখেছি রবীন্দ্র জাদেজা ব্যাট ও বল হাতে একদমই অনুজ্জ্বল, তার ব্যতিক্রম হয়নি চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতেও। কালও বল হাতে একদমই নিষ্প্রভ, তার অসাধারণ ফিল্ডিংটাই এখন দলে সরাসরি মূল অবদান। জাদেজার বোলিং ফর্ম ফেরত পাওয়াটা বিরাট কোহলির মূল প্রত্যাশা থাকবে, যদি তিনি ভবিষ্যতে একাদশে থাকেন।

অ্যাঞ্জেলা ম্যাথুজের প্রায় ১০ মাস পর সুস্থ হয়ে দলে ফেরত আসলেন। ঠাণ্ডা মাথায় দলকে নেতৃত্ব দিলেন, জয়ের দীক্ষায় উজ্জীবিত করলেন। এবং তার ব্যাটিং দেখে বোঝাই গেল না ২২ গজে তিনি এত দীর্ঘদিন অনুপস্থিত ছিলেন। পার্টনার নিয়ে ম্যাচটার দারুণ সমাপ্তি দিলেন এবং একটি বার্তা দিলেন- দেশের ক্রিকেটকে উজ্জীবিত করতে এই টুর্নামেন্টের শেষ পর্যন্ত তারা লড়বেন।

/এফএইচএম/

লাইভ

টপ