তামিম-সৌম্যর সেঞ্চুরি সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি

Send
রবিউল ইসলাম
প্রকাশিত : ১৮:৪৮, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:০৮, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৮

ঝড়ো ইনিংস খেলার পথে সৌম্য সরকার।ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে ফলাফল ছাপিয়ে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় ছিলেন চোট কাটিয়ে ফেরা তামিম ইকবাল। ওয়ানডের প্রস্তুতিটা বিধ্বংসী ইনিংস খেলে সেরে নিলেন বাঁহাতি ওপেনার। সিরিজের আগে চোট কাটিয়ে ছন্দে ফিরতে এমন ইনিংস খেলা প্রয়োজন ছিলো তার।

প্রস্তুতি এই ম্যাচটি বাকিদের জন্যও ছিলো নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার মিশন। সৌম্য-ইমরুল-মাশরাফিদের দিকেও আলাদা নজর ছিলো। কারণ ওয়ানডে সিরিজের আগে বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপকে নেতৃত্ব দিতে তামিম-সৌম্যর ব্যাটটা ধারালো হওয়া প্রয়োজন ছিলো। সেই ব্যাটকে ধারালো করতে ক্যারিবীয়দের বোলারদের ভালোভাবেই জবাব দিয়েছেন দুজন।

চোটের কারণে দীর্ঘদিন ২২ গজের বাইরে থাকতে হয়েছে তামিমকে। এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মাঠে নেমে লাকমালের বলে পুরানো আঘাতের জায়গাতে ব্যথা পেয়ে ছিটকে যান। তাতে জিম্বাবুয়ে সিরিজের পুরোটা মিস করার সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজেও খেলা হয়নি।

তবে বৃহস্পতিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে ফিরেই দুর্দান্ত ব্যাটিং শৈলী উপহার দিয়েছেন। কয়েকদিন আগেও অনুশীলনে কিছুটা জড়তা ছিল তামিমের। সেই জড়তা কাটাতে বিকেএসপির ২২ গজে খুব ভালো করে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে এলেন ঝড়ো ইনিংস খেলে।

তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার।তবে শুরুতেই লেগ বিফরের ফাঁদে পড়ে বেঁচে গিয়েছেন অল্পের জন্যে। এরপর সেঞ্চুরির পথে ক্যারিবিয়ান বোলারদের কোন সুযোগই দেননি। ব্যক্তিগত ১০৭ রান করে স্টাম্পিংয়ের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরার আগে ৭৩ বলে ১৩ চার ও ৪ ছক্কায় দুর্দান্ত এই ইনিংস উপহার দেন। ৩৪ বলে প্রথম পঞ্চাশ ছোঁয়া তামিম বাকি পঞ্চাশ ছুঁয়েছেন ৩৬ বলে।

অথচ এমন ইনিংস খেলার পূর্বে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ব্যাটিং অনুশীলন করেও তৃপ্ত ছিলেন না। ওয়ানডে সিরিজে তামিমের ১০৭ রানের ইনিংসটি তাকে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাস যোগাবে।

প্রস্তুতি ম্যাচে তামিমের মতো অসাধারণ ইনিংস খেলে নিজের ঘরে রোমাঞ্চ ছড়িয়েছেন সৌম্য সরকারও। বিকেএসপির সাবেক এই ছাত্রের ব্যাটিং তাণ্ডবে দিশেহারা হয়ে পড়ে কিমো পল-রোচ-ব্র্যাথওয়েটদের নিয়ে গড়া বোলিং লাইনআপ। ৭৫ বলে ৭ চার ও ৬ ছক্কায় সৌম্য সেঞ্চুরির মাইলফলকে পৌঁছান সৌম্য। কেমার রোচকে স্কয়াল লেগ দিয়ে বিশাল ছক্কা মেরে সেঞ্চুরি পূরণ করেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ড্রেসিংরুমে গিয়ে পড়া বিশাল এই ছক্কাই জানান দিচ্ছে পুরনো সৌম্যর ফিরে আসার কথা! তিন নম্বরে নামা সৌম্য শেষ পর্যন্ত ৮৩ বলে ৭ চার ও ৬ ছক্কায় ১০৩ রানে অপরাজিত থাকেন।

ওপেনারে ভরপুর এই লাইন আপে তামিম, সৌম্য সফল হলেও ব্যর্থ হয়েছেন ইমরুল কায়েস, মোহাম্মদ মিঠুন ও আরিফুল হক। তাতে জিম্বাবুয়ে সিরিজে দুটি সেঞ্চুরি ও একটি হাফসেঞ্চুরি পাওয়া ইমরুল ব্যর্থ হওয়াতে ওপেনিংয়ে সৌম্যর কপাল খুলে যেতে পারে। প্রস্তুতি ম্যাচে দুর্দান্ত শুরুর পরও ২৭ রানের বেশি করতে পারেননি ইমরুল।

এছাড়া লেট অর্ডারে কপাল পুড়তে পারে আরিফুল হকের। ২১ রানের ইনিংস খেলে বাজে শটে ফিরে গেছেন সাজঘরে। অপর দিকে নির্বাচনি ঝামেলায় থাকা মাশরাফি বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংটাও ঝালিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছেন। খেলেছেন ২২ রানের অপরাজিত ইনিংস।

ব্যাটিংটা মোটের ওপর ভালো হলেও বোলিংটা খুব একটা ভালো হয়নি বিসিবি একাদশের। অনেকদিন পর ম্যাচ খেলতে নেমে অধিনায়ক মাশরাফি ছন্দে ছিলেন না বল হাতে। দুই স্পেলে ৮ ওভার বোলিং করে ৩৭ রান খরচায় নিয়েছেন একটি উইকেট। রুবেল দুটি উইকেট নিলেও ছিলেন বেশ খরুচে। ১০ ওভারে ৫৫ রান খরচায় নেন দুটি উইকেট। বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল হাসান পেয়েছেন দুটি উইকেট। বোলাররা ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে ছড়ি ঘোড়াতে পারেনি বলেই সফরকারীরা ৩৩১ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করাতে সক্ষম হয়েছে।

দলের প্রস্তুতি ম্যাচ থেকে ধারণা নিতে তামিমের ব্যাটিংয়ের পুরোটাই মাঠে বসে দেখেছেন প্রধান কোচ স্টিভ রোডস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। তামিমের ওমন ইনিংসের পরও শিষ্যকে পরামর্শ দিলেন মিনিটে দশেক। দেশ সেরা ওপেনার পুরো সময়টাতে মনোযোগ দিয়ে শুনেছেন কোচের কথা।

অপর দিকে প্রস্তুতি ম্যাচের পুরোটা বিকেএসপিতে থেকে দেখেছেন স্টিভ রোডস। ড্রেসিরুমের ছাঁদে বসে শিষ্যদের ব্যাটিং তৃপ্তি দিয়েছে তাকে! তামিম-সৌম্যর একেকটি শটে সেই তৃপ্তির আভাস ফুটে উঠছিল তার চোখে মুখে। সবমিলিয়ে তাদের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট হলেও ভাবনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে বাকিদের ব্যাটিং! 

/এফআইআর/

লাইভ

টপ