‘পিছিয়ে থেকেও পাল্টা আক্রমণ করা যায়’

Send
রবিউল ইসলাম, সিলেট থেকে
প্রকাশিত : ১৮:৫২, জানুয়ারি ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৫২, জানুয়ারি ১৪, ২০১৯

জুনায়েদ সিদ্দিকীটানা চার ম্যাচ হেরে কোণঠাসা খুলনা টাইটানস। চলতি বিপিএলে এখনও পর্যন্ত জয়ের দেখা নেই তাদের। যদিও ঢাকার ব্যর্থতার বৃত্ত সিলেটে ভাঙার প্রত্যাশা দলটির ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকীর। মঙ্গলবার রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে ম্যাচটিকে জয়ের মঞ্চ বানাচ্ছেন তিনি।

ঢাকার প্রথম পর্ব শেষে বিপিএল এখন সিলেটে। মঙ্গলবার থেকে শুরু হতে যাওয়া সিলেট পর্বের প্রথম দিনেই মাঠে নামবে খুলনা। রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে ওই ম্যাচের আগে বাজে পরিস্থিতিতে মাহমুদউল্লাহরা। চার ম্যাচ শেষ হয়ে গেছে, এখন পর্যন্ত কোনও পয়েন্ট যোগ করতে পারেনি তারা! শেষ চারে থাকাটাও পড়ে গেছে হুমকির মুখে। যদিও জুনায়েদ জানিয়েছেন, নির্ভার আছে দল।

অতীত নিয়ে পড়ে থাকতে চায় না খুলনা। তাই সামনের ম্যাচগুলোতে চোখ রাখছেন জুনায়েদ। সোমবার বাংলা ট্রিবিউনকে এই ওপেনার বলেছেন, ‘টানা চার ম্যাচ হারলেও আমাদের সামনে এখনও ৮ ম্যাচ বাকি। এমন অনেক হয়েছে, পিছিয়ে থেকেও পাল্টা আক্রমণ করা যায়। আমাদের মধ্যে সেই বিশ্বাস আছে। আমরা হয়তো তেমন কিছু করতে পারি। তবে এই মুহূর্তে কে কী ভাবছে, সেগুলো নিয়ে আমরা ভাবছি না। আমাদের একমাত্র লক্ষ্য জয়, এজন্য আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে।’

খুলনার টিম কম্বিনেশন নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনে জানিয়েছিলেন, চোটের কারণে সেরা কম্বিনেশন গড়া যাচ্ছে না। জুনায়েদ অবশ্য মনে করছেন, হারের কারণে কম্বিনেশন নিয়ে প্রশ্নের জন্ম হচ্ছে, ‘ম্যাচ জিতলে সবকিছু ঠিক থাকে। এই মুহূর্তে আমাদের একটা ম্যাচ জেতা খুবই জরুরি। জিতলে কম্বিনেশনটা আরও ভালো মনে হবে। টিম ম্যানেজমেন্ট সেরা দলই খেলাচ্ছে। ম্যাচ না জিতলে অনেক কথা আসবে, এটাই স্বাভাবিক।’

তাই সমালোচকদের মুখ বন্ধ করতে যে জয়ের বিকল্প নেই, সেটা খুব ভালোমতো বুঝতে পারছেন এই ওপেনার। তাই রাজশাহীর বিপক্ষে সামনের ম্যাচটিতেই করছেন পাখির চোখ, ‘আশা করছি আমরা (রাজশাহীর বিপক্ষে) সামনের ম্যাচ থেকে ঘুরে দাঁড়াতে পারব। পুরো দলই জয়ের জন্য ক্ষুধার্ত হয়ে আছে।’

আগের দুই আসরের ওপেনিং জুটিতে খুব ভুগেছিল খুলনা। এবার সেই ব্যর্থতা কাটিয়ে উঠলেও নতুন করে সমস্যা তৈরি করেছে মিডল অর্ডারের রান খরা। রংপুরের বিপক্ষে ওপেনিং জুটিতে ৯০ রান করেও হারতে হয়েছিল মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায়। জুনায়েদ অবশ্য মিডল অর্ডার নয়, দায়িত্বটা নিজেদের কাঁধেই নিচ্ছেন, ‘২০ ওভারের ম্যাচে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের বল খেলার সুযোগ কম। যে কারণে দায়িত্বটা ওপেনিংয়ে নিতে হবে। ফিল্ডিং সীমাবদ্ধতার কারণে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা সেভাবে শটও খেলতে পারেন না। সবকিছু মিলিয়ে আসলে শুরুটা ভালো করা জরুরি।’

ঢাকার চার ম্যাচে জুনায়েদ ভালো শুরু পেলেও ইনিংস বড় করতে পারেননি। তবে সামনের ম্যাচগুলোতে বড় ইনিংস খেলার প্রতিশ্রুতি তার, ‘আমার পারফরম্যান্সে আমি সন্তুষ্ট। তবে ইনিংসটাকে আরেকটু বড় করতে পারলে দলের উপকার হতো। যেহেতু আমি রানে আছি, সেদিক থেকে সামনের ম্যাচে আরও দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবে। আরও ১৫-২০ রান বাড়িয়ে দিতে পারলে দলের জন্য ভালো হবে।’

/আরআই/কেআর/

লাইভ

টপ