চেন্নাই থেকে সরিয়ে আইপিএল ফাইনাল হায়দরাবাদে

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২১:২৯, এপ্রিল ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:২৯, এপ্রিল ২২, ২০১৯

হায়দরাবাদ অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ও চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিশঙ্কা আগে থেকেই ছিল, চেন্নাই সুপার কিংসের মাঠ এমএ চিদাম্বরম স্টেডিয়াম থেকে এবারের আইপিএল ফাইনাল সরে যাওয়ার। সত্যিই শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচটি চেন্নাই রাখতে পারলো না তাদের মাঠে। ১২ মে’র ফাইনালের ভেন্যু এখন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মাঠ রাজীব গান্ধী ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম।

আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী, আগেরবারের চ্যাম্পিয়নের মাঠে ফাইনাল ও উদ্বোধনী ম্যাচ হবে। সেই অনুযায়ী চেন্নাইয়ের মাঠ এমএ চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে এবারের আসর শুরু হলেও ফাইনাল হচ্ছে না সেখানে। স্টেডিয়ামটির তিনটি (আই, জে, কে) স্ট্যান্ড বন্ধ থাকায় বিসিসিআই আগেই আভাস দিয়ে রেখেছিল চেন্নাই থেকে ফাইনাল সরিয়ে নেওয়ার। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সেই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এসেছে সোমবার।

তামিল নাড়ু ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনকে (টিএনসিএ) স্ট্যান্ডগুলো খুলে দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। যদিও চেন্নাই মিউনিসিপালিটির সঙ্গে দ্বন্দ্ব তারা মেটাতে না পারায় গ্যালারির প্রায় ১২ হাজার আসনের তিনটি স্ট্যান্ড বন্ধই থাকবে। যে কারণে চেন্নাইতে হচ্ছে না এবারের আইপিএলের ফাইনাল।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘পিটিআই’কে বিসিসিআইয়ের কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের প্রধান বিনোদ রাই বলেছেন, ‘চেন্নাইয়ের স্টেডিয়ামটির তিনটি স্ট্যান্ড খোলার অনুমতি পায়নি টিএনসিএ, তাই আমরা চেন্নাই থেকে ফাইনাল হায়দরাবাদের সরিয়ে নিতে বাধ্য হচ্ছি।’

চলতি আইপিএলে দর্শকখরা চলছে চেন্নাইয়ের মাঠে। গ্যালারির তিনটি স্ট্যান্ড বন্ধ থাকার কারণে মূলত ফাঁকা দেখা যাচ্ছে স্টেডিয়াম। ফাইনালেও যদি সেগুলো বন্ধ থাকে, তাহলে আইপিএল ও তার সঙ্গে জড়িত স্পন্সররা ক্ষতির মুখে পড়তে পারে, সেই আশঙ্কা থেকেই শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচটি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে হায়দরাবাদে।

২০১১ সালের বিশ্বকাপের জন্য এমএ চিদাম্বরম স্টেডিয়ামের কাজ নতুন করে করা হলেও চেন্নাই কর্তৃপক্ষ তাতে সন্তুষ্ট ছিল না। তাই ২০১২ সালের ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ বাদে স্টেডিয়ামের তিনটি স্ট্যান্ডে তালা লাগিয়ে দেওয়া হয়। এবারের ফাইনালে বিসিসিআই সেই তালা খোলার কথা বললেও স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষ পারেনি। তাই ১২ মে’র ফাইনাল আয়োজন করতে পারছে না চেন্নাই। ক্রিকইনফো

/কেআর/

লাইভ

টপ