সমালোচনা উপভোগ করেন সৌম্য!

Send
রবিউল ইসলাম
প্রকাশিত : ২১:৪৩, এপ্রিল ২৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৪৭, এপ্রিল ২৪, ২০১৯

লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির পর সৌম্যসৌম্য সরকারের জীবন যেন একটা রোলার কোস্টার। কখনও রানের ফোয়ারা ছুটিয়ে সবার চোখের মণি, কখনও ব্যর্থতার বৃত্তে ঘুরপাক খেয়ে সমালোচনার তীরে বিদ্ধ। এখন অবশ্য তিনি প্রশংসার জোয়ারে ভাসছেন। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ডাবল সেঞ্চুরি করার পরদিন বাংলা ট্রিবিউনকে জানালেন, সমালোচনাকে একদমই পাত্তা দেন না। বরং এটা তার কাছে উপভোগের বিষয়!

ক্রাইস্টচার্চের ভয়ঙ্কর ঘটনার স্মৃতি নিয়ে দেশে ফিরে কয়েকদিন বিশ্রাম নিয়েছিলেন। তারপর আবাহনীর হয়ে নামলেন ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে। কিন্তু রান যেন তার জন্য ‘সোনার হরিণ’। প্রথম ১১ ম্যাচে মাত্র ১৯৭ রান করে নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারছিলেন না। তবু তার ওপরে আস্থা হারাননি নির্বাচকরা, সুযোগ দিয়েছেন বিশ্বকাপ দলে। সেই আস্থার প্রতিদান দিয়ে জ্বলে উঠলেন সৌম্য, লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে করলেন ১০৬ রান। শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিপক্ষে পরের ম্যাচ, মানে লিগের শেষ ম্যাচে তো খেললেন ‘অতিমানবীয়’ ইনিংস। বিকেএসপিতে ১৫৩ বলে ১৬টি ছক্কায় গড়া অপরাজিত ২০৮ রানে ঠিকরে বেরোচ্ছিল আত্মবিশ্বাস।

সমালোচকদের জবাবও কি ছিল না? প্রশ্নটা উঠতে আবাহনীর শিরোপা জয়ের নায়ক (সৌম্যর অসাধারণ ইনিংসে আবাহনী ৩১৭ রান তাড়া করেছে সহজেই) বিনয়ের সঙ্গে বললেন, ‘সমালোচনা তো থাকবেই। তবে আমি সমালোচনা উপভোগ করি। এতদিন যারা সমালোচনা করেছেন, তারাই এখন আমার সম্পর্কে ভালো কথা বলছেন। রান না করলে সমালোচনা হবেই। এটাকে নেতিবাচকভাবে দেখার সুযোগ নেই।’

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করে তিনি অভিভূত, ‘ইনিংসের শুরুতে একটু নার্ভাস ছিলাম, কারণ আমাদের সামনে ছিল ৩০০ প্লাস রানের লক্ষ্য। তবে স্বাভাবিক ব্যাটিংয়ের পরিকল্পনা নিয়ে আমরা নেমেছিলাম। দেশের পক্ষে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করে খুব ভালো লাগছে। আসলে সব প্রথমের অনুভূতি অন্যরকম।’

লিগের শুরুটা ভালো না হলেও শেষ দুই ইনিংসে জ্বলে উঠতে পেরে তিনি দারুণ খুশি, ‘বারবার ৩০/৪০ রান করে আউট হয়ে যাওয়ায় খুব আফসোস হচ্ছিল। অবশ্য ১/২ করার চেয়ে ৩০/৪০ করা ভালো। তবে আরও ভালো করার তাগিদ অনুভব করছিলাম। শেষ দুই ম্যাচে বড় ইনিংস খেলার চেষ্টা করেছি, সেঞ্চুরির পর ডাবল সেঞ্চুরি পেয়েছি। লিগের শেষ দিকে সব কিছু ঠিকঠাক হওয়ায় ভালো লাগছে।’

বিশ্বকাপের আগে দুটি সেঞ্চুরি কতটা আত্মবিশ্বাস জোগাবে? সৌম্যর জবাব, ‘যে প্রতিযোগিতাই হোক, রান করলে ব্যাটসম্যানের আত্মবিশ্বাস বাড়বেই। লিগের শেষ দুই ম্যাচে বড় ইনিংস খেলে আত্মবিশ্বাস নিয়ে আয়ারল্যান্ডে যেতে পারবো। সেখানে ত্রিদেশীয় সিরিজে ভালো খেলে বিশ্বকাপেও জ্বলে ওঠার চেষ্টা করবো।’

/আরআই/এএআর/

লাইভ

টপ