প্রতিশোধের ম্যাচে দারুণ জয় আবাহনীর

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:৩১, মে ১৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৫২, মে ১৫, ২০১৯

আবাহনীর একটি গোল উদযাপনএকে তো আগের ম্যাচে হারের ধাক্কা, তার ওপরে ইনজুরিতে দু-দুজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়ের মৌসুম শেষ। ভারতের চেন্নাইয়ান এএফসি’র মুখোমুখি হওয়ার আগে তাই স্বস্তিতে ছিল না ঢাকা আবাহনী। তবে মাঠে নামার পরই ভিন্ন চেহারা বাংলাদেশের লিগ ও ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়নদের। শুরুতে গোল খেয়ে পিছিয়ে পড়লেও দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে আবাহনী জিতেছে ৩-২ গোলে।

এএফসি কাপের ‘ই’ গ্রুপে দুই দলে তাই সাম্যাবস্থা। চারটি করে ম্যাচ খেলে দুই দলের ৭ পয়েন্ট। গোল গড়ে অবশ্য চেন্নাইয়ান (+২) এগিয়ে আবাহনীর (+১) চেয়ে। গ্রুপের অন্য দুই দল ভারতের মিনার্ভা পাঞ্জাবের ৪ এবং নেপালের মানাং মার্সিয়াংদির ২ পয়েন্ট।

৩০ এপ্রিল চেন্নাইয়ানের মাঠে ১-০ গোলে হেরে যাওয়া আবাহনীর সামনে ছিল প্রতিশোধের মিশন। তবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শুরুটা ভালো হয়নি আকাশি-হলুদ শিবিরের। ষষ্ঠ মিনিটেই সি কে ভিনিতের গোলে পিছিয়ে পড়ে তারা।

ম্যাচে ফিরতে মরিয়া আবাহনী কখনও মাঝমাঠ, কখনও দুই উইং দিয়ে আক্রমণ করে গোল করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু প্রথমার্ধে সফল হয়নি। ২০ মিনিটে হাইতির ফরোয়ার্ড কেরভেন্স বেলফোর্টের শট ঠেকিয়ে দেন চেন্নাইয়ান গোলকিপার করনজিত সিং। চার মিনিট পর ডিফেন্ডার ওয়ালি ফয়সালের কর্নার পোস্টে ঢোকার ঠিক আগে হেড করে বিপদমুক্ত করেন প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়।

২৭ মিনিটে ওয়ালির চিপ থেকে নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার সানডে চিজোবার হেড ধরে ফেলেন গোলকিপার। পাঁচ মিনিট পর বক্সে ঢুকে পড়া সানডের জোরালো শট চলে যায় ক্রসবার ‍উঁচিয়ে। ৩৬ মিনিটে স্ট্রাইকার নাবিব নেওয়াজ জীবনের হেড থেকে বক্সের ভেতরে বল পেলেও গোল করতে ব্যর্থ হন জুয়েল রানা।

প্রথমার্ধে অজস্র সুযোগ নষ্ট করা আবাহনী দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে দুই গোলে পিছিয়ে পড়তে পারতো। তবে তাদের ভাগ্য ভালো, প্রতিপক্ষের মিডফিল্ডার আইজ্যাক সাওমার প্রচেষ্টা বাধা পেয়েছে ক্রসবারে।

৬৪ মিনিটে সমতা ফিরেছে ম্যাচে। আফগান ডিফেন্ডার মাসিহ সাইগানির থ্রু ধরে বক্সে ঢুকে গোল করেছেন বেলফোর্ট। ৬৯ মিনিটে আবার আবাহনীর গোল। দুর্দান্ত ফ্রি-কিকে চেন্নাইয়ান গোলকিপারকে পরাস্ত করেছেন সাইগানি।

৭৪ মিনিটে সাওমার গোলে সমতা নিয়ে এসেছে অতিথি দল। কিন্তু আবাহনীকে ঠেকাতে পারেনি চেন্নাইয়ান। ৮৭ মিনিটে রায়হানের লম্বা থ্রো-ইন ফিরিয়ে দিয়েছিলেন প্রতিপক্ষের এক ডিফেন্ডার। ফিরতি বলে অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার মামুনুল ইসলামের ডান পায়ের জোরালো শটে নিশ্চিত হয়েছে তিন পয়েন্ট প্রাপ্তি।

এএফসি কাপে আবাহনীর পরের ম্যাচ ১৯ জুন। সেদিন ঢাকায় মানাং মার্সিয়াংদির মুখোমুখি হবে তারা।

/টিএ/এএআর/

লাইভ

টপ