এফএ কাপ জিতে ম্যানসিটির ইতিহাস

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ০০:১৯, মে ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৪৬, মে ১৯, ২০১৯

স্টারলিংয়ের হ্যাটট্রিকে জিতেছে ম্যানসিটিচ্যাম্পিয়নস লিগে কখনও কোয়ার্টার ফাইনালের বাধা পার হতে না পারলেও পেপ গার্দিওলার হাত ধরে ইংলিশ ফুটবলে অভূতপূর্ব অর্জন করলো ম্যানচেস্টার সিটি। প্রথম দল হিসেবে ঘরোয়া ত্রিমুকুট জিতলো সিটিজেনরা। এই ইতিহাস গড়ার পথে শনিবার এফএ কাপের ফাইনালে ৬-০ গোলে তারা বিধ্বস্ত করেছে ওয়াটফোর্ডকে।

ওয়েম্বলিতে রহিম স্টারলিংয়ের হ্যাটট্রিকে গোল উৎসব করেছে ম্যানসিটি। এতে লিগ কাপ ও প্রিমিয়ার লিগের পর এফএ কাপেও চ্যাম্পিয়ন হয়ে ইতিহাস গড়লো তারা। টুর্নামেন্টের ফাইনালে সর্বোচ্চ গোল করার যৌথ রেকর্ডও গড়েছে গার্দিওলার শিষ্যরা। ১৯০৩ সালে ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে বিউরির গোল উৎসবের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছে তারা।

শুরুতে একাধিক সুযোগ তৈরি করেছিল ওয়াটফোর্ড। ১১ মিনিটে জেরার্দ দেউলোফেউ ডান দিকে ঢুকে বল পাঠান পেরেইরার কাছে, তার জোরালো শট দারুণ দক্ষতায় রুখে দেন ম্যানসিটি গোলরক্ষক এদারসন।

ট্রফি হাতে ম্যানসিটির উল্লাসম্যানসিটি এগিয়ে যায় ২৬ মিনিটে। বক্সের মধ্যে স্টারলিংয়ের হেড থেকে বল পেয়ে জালে বল জড়ান দাভিদ সিলভা। গত ডিসেম্বরের পর এটা ছিল তার প্রথম গোল। ৩৮ মিনিটে বের্নার্দো সিলভার পাস থেকে গোলমুখে বল ঠেলে দেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস, কিন্তু লাইন পার হওয়ার আগেই বল ঠেলে জালে জড়ান স্টারলিং।

দ্বিতীয়ার্ধে পাত্তাই পায়নি ওয়াটফোর্ড। ৫৫ মিনিটে রিয়াদ মাহরেজের বদলি নামেন কেভিন ডি ব্রুইন। বেলজিয়ান তারকা ৬ মিনিট পর নাম লিখেন গোলদাতার খাতায়। গোলটি বানিয়ে দেওয়ার পর জেসুসও লক্ষ্যভেদ করেন ৬৮ মিনিটে।

ম্যানসিটির ইতিহাস লিখার দিনে শেষ ৯ মিনিটে দুটি গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন স্টারলিং। বের্নার্দো সিলভার শট থেকে ৮১ মিনিটে পঞ্চম গোল করেন ইংলিশ ফরোয়ার্ড। ৮৭ মিনিটে ওয়াটফোর্ডের কফিনে শেষ পেরেক ঠুঁকে দেন তিনি। শেষ মুহূর্তে ওয়াটফোর্ড গোলরক্ষক জন স্টোনসের চেষ্টা রুখে দেওয়ায় ম্যানসিটি এফএ কাপ ফাইনালে গোলের রেকর্ড গড়তে ব্যর্থ হয়।

২০১১ সালের পর প্রথমবার এফএ কাপ চ্যাম্পিয়ন হলো ম্যানসিটি। সব মিলিয়ে ৬ বার এই ট্রফি জিতেছে তারা। গোল ডটকম

/এফএইচএম/

লাইভ

টপ