প্রস্তুতি ম্যাচের হারই তাতিয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশকে!

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:৪০, মে ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৪৬, মে ১৯, ২০১৯

সংবাদ মাধ্যমে কথা বলছেন ফরহাদ রেজা। আয়ারল্যান্ডের কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে বেশ কষ্টই হয়েছিল বাংলাদেশের। প্রচন্ড ঠাণ্ডায় প্রায় জবুথবু হয়ে স্বাগতিক ‘এ’ দলের বিপক্ষে হার দিয়ে শুরু হয় প্রস্তুতি। মূল টুর্নামেন্টে এই হারই মূলত তাতিয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশ দলকে! ৮৮ রানে হারের পর ড্রেসিংরুমে অধিনায়ক মাশরাফির প্রেরণাই তেতে উঠতে ভূমিকা রেখেছে বলে জানালেন অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার ফরহাদ রেজা।

প্রস্তুতি ম্যাচের পর ত্রিদেশীয় সিরিজের পারফরম্যান্স সবারই জানা। বৃষ্টির বাধায় একটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। বাকি চারটি ম্যাচের সবকটিতেই প্রভাব বিস্তার করে জিতেছে বাংলাদেশ। ডাবলিনে অনুষ্ঠিত ফাইনালে ২৪ ওভারে ২১০ রান চেজ করতে গিয়ে সাত বল হাতে রেখে ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন হয় মাশরাফিরা।

এমন অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশের পেছনের রহস্যটা তুলে ধরেছেন ফরহাদ রেজা, ‘আসলে প্রথম থেকে তিন বিভাগেই আমরা খুব ভালো ক্রিকেট খেলেছি। অনুশীলন ম্যাচে ভালো খেলতে পারিনি। প্রচণ্ড ঠাণ্ডা ছিল, আমাদের জন্য মানিয়ে নেওয়া কঠিন ছিল। পরে মাশরাফি ভাই ড্রেসিংরুমে অনেক কথা বলেছেন। যা সবাইকে প্রেরণা দিয়েছে। ফাইনালতে তো সবাই খুব ভালো করেছে। এই জয়, সত্যিকার অর্থেই অসাধারণ।’

ডি/এল মেথডে ২৪ ওভারে ২১০, এতো বড় লক্ষ্য তাড়া করে জেতার রেকর্ড খুব একটা নেই বাংলাদেশের। ফাইনালে এমন লক্ষ্য স্থির হওয়ার পর মনের অবস্থা কী হয়েছিল সবার? এর উত্তরটা শুনুন রেজার মুখেই ‘কখনোই একমুহূর্ত মনে হয়নি ম্যাচটা হারব আমরা। কারণ সবার মধ্যে এই জেদটা ছিল। যেভাবেই হোক শেষ পর্যন্ত লড়াই করার একটা মানসিকতা ছিল।’

গত কয়েক মৌসুম ধরে ঘরোয়া ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করার পুরস্কার  হিসেবেই ত্রিদেশীয় সিরিজ সুযোগ পেয়েছিলেন ফরহাদ রেজা। সিরিজের মূল ম্যাচে সুযোগ হয়নি, তবে প্রস্তুতি ম্যাচটি খেলেছিলেন। সেই ম্যাচে ৬৬ রান খরচায় এক উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে করেছেন ১৫ রান। দীর্ঘদিন পর জাতীয় দলের হয়ে সফর করার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে ফরহাদ বলেছেন, ‘অনেক দিন পর গিয়েছি সবার সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার ব্যাপার ছিল। সব কিছুই ঠিকভাবে হয়েছে। খুব ভালো লেগেছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আমরা যেভাবে খেলতে চেয়েছি সেভাবেই খেলতে পেরেছি।’

রেজা শনিবার রাতে দেশে ফিরে রবিবার সকালে যোগ দিয়েছেন এলিট স্কিল ক্যাম্পে। ঈদের আগে ক্যাম্পে বেশ কিছুদিন কাজ করবেন বলে জানালেন তিনি, ‘আমরা যখন সেখানে গিয়েছি নামার পরপরই অনুশীলনে যোগ দিয়েছি। কয়েকদিন অনুশীলন করে তারপর বাড়ি যাবো।’

/আরআই/এফআইআর/

লাইভ

টপ