আবাহনীর কঠিন বাধা পার করলো বসুন্ধরা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:১৯, মে ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৫৬, মে ২০, ২০১৯

Abaahni (Blue) Vs  Bahundhara(Red) aবাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে অভিষেকেই শিরোপার স্বপ্ন এখন আরও ভালোভাবে দেখতে পারে বসুন্ধরা কিংস। নবাগত এই ক্লাবটি রবিবার বড় বাধাই পেরিয়ে গেলো সাফল্যের সঙ্গে। আবাহনী লিমিটেডকে ১-০ গোলে হারিয়ে তাদের চেয়ে ৭ পয়েন্টে এগিয়ে গেলো শীর্ষ দলটি।

১৪ ম্যাচ খেলে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে বসুন্ধরা। কয়েক দিন আগে এএফসি কাপে চেন্নাইয়ান এফসিকে ৩-২ গোলে হারানো আবাহনী (৩৩) সমান খেলে ‍তৃতীয় হারে দ্বিতীয় স্থানে। সমান খেলে একই পয়েন্টে তিনে শেখ রাসেল।

লিগে আগের দেখায় বসুন্ধরার কাছে ৩-০ গোলে হেরেছিল আবাহনী। আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত জয়ের তরতাজা স্মৃতি কাজে লাগিয়ে প্রতিশোধ নিতে পারলো না তারা। কিন্তু বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আক্রমণের বিচারে শুরু থেকে এগিয়ে ছিল মারিও লেমসের দল। একের পর এক আক্রমণ গড়েও কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায়নি আকাশী-নীল জার্সিধারীরা।

অগণিত গোলের সুযোগ নষ্ট করেছে আবাহনী। জীবন ও সানডে চিজোবা লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি। ম্যাচের ১৭ মিনিটে ফরোয়ার্ড জুয়েল রানা বক্সে বল পেয়ে ঠিকমতো শট নিতে পারেননি। ডিফেন্ডার রায়হান তো লম্বা থ্রো-ইন করে কয়েকবার আতঙ্ক সৃষ্টি করেছেন। যদিও তাতে কোনও কাজ হয়নি। ২৯ মিনিটে মামুনুলের ফ্রি কিক থেকে মাসিহ সাইগানির হেড সাইড বারের পাশ দিয়ে যায়।

এত চেষ্টার পরও যখন ব্যর্থ আবাহনী, তখন তারা বড় ধাক্কা খায় একটি গোল হজম করে। ম্যাচের একমাত্র গোলটি হয় ৩৮ মিনিটে। বসুন্ধরার কিরগিজ মিডফিল্ডার বখতিয়ার দেশোবিকোভ প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে দুর্দান্ত ফ্রি কিকে লক্ষ্যভেদ করেন।

বিরতির এক মিনিট আগে বসুন্ধরার ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড মার্কোস ভিনিসিয়াসের জোরালো শট গোলকিপার সোহেল লাফিয়ে রুখে দেন। ইনজুরি সময়ে অবশ্য বেলফোর্টের দুরন্ত শট গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকো ধরে ফেলে আবাহনীকে হতাশ করেন।

১-০ গোলে পিছিয়ে থাকা আবাহনী বিরতির পর আবার ক্ষুরধার আক্রমণ চালায়। কিন্তু এবারও লক্ষ্যভ্রষ্ট তাদের সব চেষ্টা। ৫০ মিনিটে বক্সের ভিতরে নাবীব নেওয়াজ জীবনের শট এক ডিফেন্ডার ফিরিয়ে দেওয়ার পর বল পান সানডে, এই নাইজেরিয়ানের কাটব্যাকে মামুনুলের শট হয় লক্ষ্যভ্রষ্ট। ৬০ মিনিটে জটলা থেকে সানডের বাঁ পায়ের শট গোলকিপারের গায়ে লেগে ব্যর্থ হয়। তিনি মিনিট পর সোহেলের ক্রসে জীবন-বেলফোর্ট কেউই শট নিতে পারেননি।

মাঝে বসুন্ধরা ৬৮ মিনিটে সুযোগ পেয়েছিলো। প্রতি আক্রমণ থেকে মিডফিল্ডার আলমগীর কবির রানার জোরালো শট ক্রসবারের উপর দিয়ে চলে যায়।

আবারও তাদের রক্ষণভাগ কাঁপিয়ে দেন সানডে। ৭৪ মিনিটে আবাহনীর এই ফরোয়ার্ড ক্রসবারের উপর দিয়ে বল মারেন। ম্যাচ শেষ হওয়ার তিন মিনিট আগে ফাঁকা গোলপোস্ট পেয়েও লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি। পরের মিনিটে বেলফোর্টের হেড ক্রসবারে লাগলে হার এড়াতে পারেনি আবাহনী।

/টিএ/এফএইচএম/

লাইভ

টপ