কোচের মন জয় করতে চান রিয়াদুল-আরিফুর

Send
তানজীম আহমেদ
প্রকাশিত : ২০:২১, মে ২৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:২৭, মে ২৪, ২০১৯

বামে রিয়াদুল, ডানে আরিফুর। বিশ্বকাপ প্রাক বাছাই পর্বে লাওসের বিপক্ষে ৬ ও ১১ জুন দুটি ম্যাচ খেলতে হবে বাংলাদেশকে। বাছাইয়ে জায়গা হয়েছে দুই নতুন মুখ ডিফেন্ডার রিয়াদুল হাসান ও ফরোয়ার্ড আরিফুর রহমানের। এই দুজনের লক্ষ্য এখন একটাই-জাতীয় দলের একাদশে জায়গা করে নেওয়া।  

দুই লেগের ম্যাচে ইতিবাচক ফল করতে পারলে বাংলাদেশের মিলবে বাছাই পর্বের টিকিট। এরই মধ্যে জেমি ডে তার ২৩ সদস্যের দল নিয়ে শুক্রবার দুপুরে ব্যাংককের বিমানে চড়েছেন। ব্যাংককের এই ১০ দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্পে কোচের মন জয় করতে পারলেই সুযোগ মিলবে একাদশে। তাই প্রস্তুতি ক্যাম্পে নিজেদের সেরাটা দেওয়ার পরিকল্পনা রিয়াদুল ও আরিফুরের।

আরামবাগের হয়ে এই মৌসুমে তিন গোল করেছেন আরিফুর রহমান। বাম প্রান্তের উইং দিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছেন। তেমনি তার দ্রুত গতিতে বল নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়াটাও ছিলো চোখে পড়ার মতো। তাতে মুগ্ধ ইংলিশ কোচ জেমি ডে কম্বোডিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে আরিফুরকে রাখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ইনজুরির কারণেই আরিফুরের দলে ডাকা পাওয়াটা হয়েছে বিলম্বিত।

এবার অবশ্য পুরোপুরি ফিট আরিফুর। জাতীয় দলের চ্যালেঞ্জ নিতেও প্রস্তুত অনূর্ধ্ব-১৬, ১৯ ও ২৩ দলে খেলা এই ফরোয়ার্ড, ‘কম্বোডিয়ার বিপক্ষে খেলার ইচ্ছা ছিলো। কিন্তু ইনজুরির কারণে ডাক পাইনি। জেমি ডে তখন বলেছিলেন- সুস্থ হও। তোমাকে জাতীয় দলে দরকার। তখন পণ করেছিলাম, আবারও কোচের দৃষ্টি কাড়তে হবে। শেষ পর্যন্ত আমি সফল হয়েছি। তাই ডাক পেয়ে অনেক খুশি।’

ডাক পেলেও ২৩ সদস্যের দল থেকে একাদশে জায়গা করে নেওয়াটা কঠিনই তার জন্য। চট্টগ্রাম আবাহনীর পর বর্তমানে আরামবাগে খেলা আরিফুর তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার কথা মেনে নিলেও কোচের মন জয় করতে পারার ব্যাপারে ভীষণ আত্মবিশ্বাসী তিনি, ‘আমার জায়গায় একাধিক ভালো খেলোয়াড় আছে। তাদের সঙ্গে লড়াই করে জায়গা করে নেওয়াটা সহজ হবে না। তবে আমি আত্মবিশ্বাসী কোচের মন জয় করতে পারবো।’

আরিফুরের মতো স্বপ্ন দেখছেন সাইফ স্পোর্টিংয়ের ডিফেন্ডার রিয়াদুল হাসান। তারও একই কথা, ‘জাতীয় দলে জায়গা পাওয়াটা আসলেই গর্বের। অবশ্য আমি আশাবাদী ছিলাম। লিগে ভালো পারফর্ম করে আসছি। অবশেষে সেই সুযোগ এসেছে। এখন প্রস্তুতি ক্যাম্পে ভালো করে একাদশে সুযোগ করে নিতে চাই।’

তিনিও মনে করেন দলে জায়গা পাওয়াটা এত সহজ কাজ নয়, ‘আমার পজিশনে একাধিক সিনিয়র খেলোয়াড় আছে। তারপরেও অপেক্ষায় আছি। একাদশে জায়গা পেলে তখন লাওস বধে নিজের সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করবো।’

/টিএ/এফআইআর/

লাইভ

টপ