ইংল্যান্ডে রোচের অনুপ্রেরণা লয়েড-ভিভরা

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২২:৪১, মে ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৪৪, মে ২৬, ২০১৯

কেমার রোচচতুর্থবার ইংল্যান্ড মঞ্চস্থ করতে যাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ, ১৯৭৫ সালে যেখানে টুর্নামেন্টের প্রথম শিরোপা জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং চার বছর পর আবারও লর্ডসে তারাই হয় বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। ক্লাইভ লয়েড-স্যার ভিভ রিচার্ডসের ওই কিংবদন্তিতুল্য দলের সাফল্য আরেকবার ধরা দিক এই লন্ডনে, এমন প্রত্যাশা কেমার রোচের।

বিশ্বকাপের প্রথম আসরে লয়েডের নেতৃত্বে ট্রফি জিতেছিল ক্যারিবিয়ানরা। লর্ডসে তার সেঞ্চুরি ও কেইথ বয়েসের দুর্দান্ত বোলিংয়ে অস্ট্রেলিয়াকে ১৭ রানে হারিয়ে বিশ্বে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে তারা। ভিভ ও অ্যান্ডি রবার্টসের মতো গ্রেটরাই চার বছর পর আবারও সেই লন্ডনের ক্রিকেট পুণ্যভূমিতে দ্বিতীয়বার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়।

এরপর আর কখনও উইন্ডিজদের ছোঁয়া হয়নি ট্রফিটা। আবারও সেই লন্ডন, ভিভ-লয়েডদের দেখানো পথ অনুসরণ করে আবারও কি সোনালি ট্রফিটা হাতে নিতে পারবেন হোল্ডার-গেইলরা! সেটা সময়ই বলে দেবে। তবে রোচ অনুপ্রাণিত, ‘অনেক বছর আগে এখানেই আমাদের পূর্বসূরিরা বিশ্বকাপ জিতেছিল, এটা দারুণ অনুভূতি। ইংল্যান্ডের মাটিতে এই টুর্নামেন্টে আমাদের ইতিহাস কতটা সমৃদ্ধ আমরা জানি এবং এটা আমাদের সবাইকে অনুপ্রাণিত করে।’

লন্ডনে দর্শকদের কাছ থেকে অন্যরকম সমর্থন পাওয়ার কথা জানালেন ৩০ বছর বয়সী এই পেসার, ‘আমাদের পূর্বসূরিরা যা করেছিল তাতে করে এই দেশে এখনও আমরা চমৎকার সমর্থন পাই। এখানে ভক্তরা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ভালোবাসে এবং তাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে চাই আমরা। যাই হোক, এখন আমাদের নিজেদের ইতিহাস গড়তে হবে এবং এটাই চ্যালেঞ্জ। আমরা এর জন্য প্রস্তুত।’

বিশ্বকাপের আগে ত্রিদেশীয় সিরিজ হেরে গেছে উইন্ডিজ। বাংলাদেশের কাছে ফাইনালে হেরে আন্ডারডগ হয়ে এই বিশ্বকাপ খেলবে তারা। তাতে সমস্যা নেই রোচের, ‘আমরা আন্ডারডগ এটা ভেবে ভালো লাগছে। নজরের বাইরে থেকে সবাইকে চমকে দেওয়াই আমাদের পরিকল্পনা। এই ফরম্যাট খুব ভালো, বিশ্বকাপ যেই জিতুক না কেন সৌভাগ্যের ছোঁয়ায় জিতেছে এটা বলা যাবে না। প্রত্যেককে খেলে জিততে হবে তাদের। আমরা যদি দারুণ শুরু করতে পারি তাহলে কেউই আমাদের মোকাবিলায় স্বস্তি বোধ করবে না।’

/এফএইচএম/

লাইভ

টপ