‘বিশ্বকাপ ট্রফি ভাগাভাগি করলেই ভালো হতো’

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:৪৮, জুলাই ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:০২, জুলাই ১৬, ২০১৯

নিউজিল্যান্ড কোচ গ্যারি স্টিডবিশ্বকাপ ফাইনালে ১০০ ওভারের পারফরম্যান্স শেষেও আলাদা করা যায়নি ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডকে। এমনকি সুপার ওভারেও ছিল সমানে সমান। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন নির্ধারণ করা হলো বাউন্ডারির সংখ্যা দিয়ে। এমন অদ্ভুত নিয়ম বেশ সমালোচিত হচ্ছে। রানার্স আপ নিউজিল্যান্ড কোচ গ্যারি স্টিড ও ব্যাটিং কোচ ক্রেইগ ম্যাকমিলানের মতে, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডকে যৌথ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করাই হতো উপযুক্ত সিদ্ধান্ত।
বিশ্বকাপে প্রথমবার ফাইনাল গড়ায় সুপার ওভারে, সেটাও ছিল রোমাঞ্চে ভরা। ইংল্যান্ড আগে ব্যাট করে ১৫ রান তোলে। নিউজিল্যান্ডও করে সমান রান। কিন্তু ৫০ ওভার ও সুপার ওভারে সর্বাধিক ২৬টি বাউন্ডারি মারায় নিউজিল্যান্ডকে (১৭টি) হটিয়ে শিরোপা নিশ্চিত করে স্বাগতিকরা। চ্যাম্পিয়ন নির্ধারণের এমন নিয়মকে লজ্জাজনক বলেছেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

তবে স্টিড ও ম্যাকমিলানের কণ্ঠে একই সুর- ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডকে বিশ্বকাপ ভাগ করে দেওয়া হতো উপযুক্ত ফল। টিম হোটেলে মিডিয়ার সঙ্গে মত বিনিময়ের সময় কিউই কোচকে প্রশ্ন করা হয়, নিউজিল্যান্ডকে যৌথ চ্যাম্পিয়ন করা হলে তিনি মানতেন কিনা? স্টিড বলেছেন, ‘সম্ভবত যখন আপনি সাত সপ্তাহের বেশি সময় ধরে খেলার পর ফাইনালের দিনও দুই দলকে পার্থক্য করা যায় না, তখন এটা (যৌথ চ্যাম্পিয়ন) করলে ভালো হতো।’

বিশ্বকাপের পরই চুক্তি শেষ হওয়া ম্যাকমিলান এ ব্যাপারে আরও অকপটে কথা বললেন। সুপার ওভারও টাইব্রেক হওয়ায় ট্রফি ভাগাভাগি করা হতো সঠিক সিদ্ধান্ত। তিনি বলেছেন, ‘গতকালকের (রবিবার) ফল তো পাল্টানো যাবে না। কিন্তু এ ধরনের বড় টুর্নামেন্টে সাত সপ্তাহ পরও যদি ৫০ ওভারের ম্যাচ দিয়ে দুই দলকে পার্থক্য করা না যায় এবং সুপার ওভার দিয়েও, তখন আসলে কোনও দলই পরাজিত নয়। ট্রফি ভাগাভাগি করাই হতে পারতো সঠিক ফল। কিন্তু এটাই খেলা এবং এগুলোই নিয়ম।’

/এফএইচএম/

লাইভ

টপ