নিষেধাজ্ঞার কবলে আকিলা ধনাঞ্জয়া?

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৩:৪২, আগস্ট ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৫০, আগস্ট ২০, ২০১৯

আবার রিপোর্টেড হলেন আকিলা ধনাঞ্জয়া।বোলিং অ্যাকশন পাল্টেও বিপদ মুক্ত হতে পারলেন না শ্রীলঙ্কান অফস্পিনার আকিলা ধনাঞ্জয়া। দশ মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো রিপোর্টেড হলেন সন্দেহজনক বোলিং অ্যাকশনে। গলে সিরিজের প্রথম টেস্টে তার মতো সন্দেহজনক অ্যাকশনে অভিযুক্ত হয়েছেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনও।

অবশ্য আকিলার মতো দলের নিয়মিত বোলার নন কেন উইলিয়ামসন। তবে শ্রীলঙ্কার বোলিং ইউনিটের অন্যতম সদস্য আকিলা। রিপোর্টেড হওয়ায় আবার বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষা করাতে হবে তাকে। ব্যর্থ হলে লঙ্কানদের জন্য তা হতে পারে বড় ধাক্কার। আইসিসির নিয়মেই বলা আছে, দুই বছরের মধ্যে দুবার অ্যাকশন পরীক্ষায় উতরাতে না পারলে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হবেন আকিলা।

আম্পায়াররা বলছেন, আকিলা যে তিন ধরনের বৈচিত্র্য নিয়ে বল করেন। এর মধ্যে তার স্টক বল বা অফ ব্রেক নিয়েই মূলত সন্দেহ আম্পায়ারদের।

আকিলা ২০১৮ সালে ডিসেম্বরে প্রথমবার অ্যাকশন পরীক্ষায় ব্যর্থ হন। তখন প্রাথমিকভাবে নিষিদ্ধ হলেও পুনরায় শুরু করেন অ্যাকশন পাল্টে। বোলিংয়ে ফেরেন এই বছরের শুরুতে। প্রত্যাবর্তনের পর ওয়ানডের বোলিংয়ে ধার কম হলেও গল টেস্টে দীর্ঘদিন পর আলাদা প্রভাব বিস্তার করতে পেরেছেন। ৮০ রানে নিয়েছেন ৫টি উইকেট। এখন নিষিদ্ধ হলে আকিলসহ তা বড় ধাক্কা হয়ে আসবে লঙ্কান শিবিরে।  

অপর দিকে গল টেস্ট ৬ উইকেটে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। সেখানে কেন উইলিয়ামসন বল করেছেন মাত্র ৩ ওভার। উইলিয়ামসন অবশ্য এর আগেও রিপোর্টেড হয়েছিলেন। তা ২০১৪ সালে হওয়ায় আকিলার মতো নিষেধাজ্ঞার আশঙ্কা নেই তার। আবার কেন উইলিয়ামসন বোলিং করেন খণ্ডকালীন।

দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে বৃহস্পতিবার। সেদিন অবশ্য আকিলা ও উইলিয়ামসন বোলিং করতে পারবেন। নিয়ম অনুযায়ী রিপোর্টেড হওয়ার ১৪ দিনের মধ্যে অ্যাকশন পরীক্ষা করাতে হয়। এর মাঝে বোলিং করতে কোনও বিধি নিষেধ থাকে না।

/এফআইআর/

লাইভ

টপ