‘টি-টোয়েন্টিতে কেউ জেতার নিশ্চয়তা দিতে পারে না’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:২৪, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:২৬, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

রাসেল ডোমিঙ্গো। বিশ্বকাপ থেকে হতাশার বৃত্তে আটকে আছে বাংলাদেশ। মাঝে শ্রীলঙ্কায় তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর আফগানদের কাছে টেস্ট হারে পরিস্থিতি হয়ে দাঁড়িয়েছে আরও দুর্বিষহ। এমন প্রতিকূল পরিস্থিতিতে শুক্রবার ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে নামছে সাকিবরা।

টি-টোয়েন্টি এই সিরিজের উদ্বোধনী দিনে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে। এবার কি হারের বৃত্ত ভাঙতে পারবে স্বাগতিকরা? নাকি বৃত্তটা আরও বড় হবে। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো অবশ্য জয়ের আত্মবিশ্বাসের কথা বললেও কুড়ি ওভারের ক্রিকেটের অনিশ্চয়তাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে চাইলেন, ‘আমরা প্রতিটি ম্যাচ জিততে মুখিয়ে আছি। তবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যে কোন দলই জিততে পারে। এই ফরম্যাটে নিশ্চয়তা দিয়ে বলা সম্ভব নয়-কাল আমরাই জিতবো। আমরা যেটা করতে পারি, সেটা হলো মাঠে ভালো ক্রিকেট খেলাটা নিশ্চিত করা।’

যদিও রঙিন পোশাকের ক্রিকেটে বাংলাদেশকেই এগিয়ে রাখছেন তিনি, ‘সাদা বলের খেলায় বাংলাদেশ নিজেদের দিনে যে কোন দলকে হারাতে পারে। আমাদের দলে বিশ্বাসেরা কিছু পারফরমার আছে। দলে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারও আছে। গত বিশ্বকাপে দ্বিতীয় অভিজ্ঞ দল ছিল বাংলাদেশ। মানের পাশাপাশি অভিজ্ঞতার দিক থেকেও আমাদের দলে কোন ঘাটতি নেই। আমরা সামর্থ্য মতো খেলতে পারলে, প্রতিপক্ষকে সহজেই হারাতে পাররো।’

চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে পেসারবিহীন বাংলাদেশ দলকে দেখা গেছে। স্কোয়াডে তিনজন পেসার থাকলেও তাদের বাদ দিয়ে স্পিনারদের নিয়ে দল গঠন করা হয়েছিল। ত্রিদেশীয় সিরিজের দলেও মোস্তাফিজ, ইয়াসিন আরাফত, সাইফউদ্দিনসহ তিন বিশেষজ্ঞ পেসার আছেন। তাদের নিয়ে ভাবনা কী? এর উত্তরে কোচ বললেন, ‘অবশ্যই। এটা ভিন্ন ফরম্যাটের খেলা এবং এখানকার কন্ডিশনও আলাদা। অস্ট্রেলিয়াতে আমাদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পেস নির্ভর কন্ডিশনে খেলতে হবে। তার আগে আমাদের ভালো মানের কিছু পেস বোলার খুঁজে বের করতে হবে। সুতরাং এখন থেকেই পেসারদের ওপর বাড়তি গুরুত্ব দিতে হবে।’

খুব বেশি দিন হয়নি জাতীয় দলের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন রাসেল ডোমিঙ্গো। ক্রিকেটারদের সবার সঙ্গে এখনও ঠিকমতো পরিচয় হয়ে উঠেনি তার। সব মিলিয়ে ভরসা তাই অধিনায়ক সাকিব আল হাসান, ‘আমি এখনো সবার সম্পর্কে জানি না। আফিফ, মিশু (ইয়াসিন আরাফাত), মেহেদী হাসান সম্পর্কে আমার ধারণা নেই। অবশ্যই যে কোন ইস্যুতে অধিনায়কের সঙ্গে আমার কথা হয়। সে আমাকে কিছু পরামর্শ দেয়। আমার চেয়ে সে খেলোয়াড়দের সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখে। সুতরাং যৌক্তির কারণে তার সাজেশনকে অবশ্যই আমার সাপোর্ট করা উচিত।’

/আরআই/এফআইআর/

লাইভ

টপ