এবার আফগানদের সামনে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি পরীক্ষা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১০:৫৯, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:০০, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯

অনুশীলন করছেন সৌম্য সরকার। সাদা পোশাক ছেড়ে এবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে রঙিন পোশাকের ম্যাচ। ফরম্যাট বদলালেও চ্যালেঞ্জটা থাকছে আগের মতোই! রবিবার স্বাগতিকদের সামনে সেই আফগানিস্তানের স্পিন জুজু অপেক্ষা করছে। রশিদ খান-মুজিব উর রহমান-মোহাম্মদ নবীকে নিয়ে গড়া স্পিন আক্রমণ মোকাবেলা করতে পারবে তো বাংলাদেশ? নাকি চট্টগ্রামের মতোই স্পিন জুজুতে পরাস্ত হবে সাকিবের দল।

রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মিরপুরের ২২ গজে ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচটিতে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টেলিভিশন।

সাদা পোশাকের চেয়ে রঙিন পোশাকে আফগান স্পিনাররা আরও বেশি ভয়ঙ্কর। বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের মধ্যকার পরিসংখ্যান দেখলেই বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে। দুই দলের চার মুখোমুখি লড়াইতে আফগানিস্তান এগিয়ে ৩-১ ব্যবধানে। দেরাদুনে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশকে স্রেফ উড়িয়ে দিয়েছিল আফগানিস্তান। তাদের স্পিন আক্রমণের মুখে কোনঠাসা হয়ে পড়ে ব্যাটসম্যানরা। রবিবার ম্যাচের আগে একই শঙ্কাই বুঝি উঁকি দিচ্ছে! তবে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে হারের বৃত্ত ভাঙা সাকিবরা আফগানিস্তানের বিপক্ষে ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে আশাবাদী। বিশেষ করে গত ম্যাচের জয়টি দলকে মানসিক ভাবে চাঙ্গা করেছে, বাড়িয়ে দিয়েছে আত্মবিশ্বাস।

সাকিবের কথাতেই তা স্পষ্ট হয়ে উঠলো আরও, ‘এই জয় থেকে আমরা আত্মবিশ্বাস ফিরে পেলাম। কঠিন সময়ের মাঝে এমন জয় স্বস্তির বটে। আশা করি, জয়ের ধারাবাহিকতা পরের ম্যাচে কঠিন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে অব্যাহত থাকবে।’

জয়ে ফেরার পরও বাংলাদেশের দুশ্চিন্তা হয়ে দাঁড়িয়েছে টপঅর্ডারের ব্যাটিং। এই পজিশনে গত কিছুদিন ধরেই সাফল্য আসছে না। আগের ম্যাচে সৌম্য, লিটন, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহরা ব্যর্থ হচ্ছেন। সেই ব্যর্থতা দলের ওপরও প্রভাব ফেলছে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে আগের ম্যাচের পুনরাবৃত্তি হলে কঠিন পরিস্থিতিতে পড়তে হবে স্বাগতিকদের।

২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের সঙ্গে প্রথম মুখোমুখিতে জিতেছিল বাংলাদেশ। মিরপুরের সেই ম্যাচের সুখস্মৃতি নিয়ে রবিবার মাঠে নামবে তারা। ওই ম্যাচে মাত্র ৭৮ রানে আফগানদের অলআউট করে তারা ম্যাচটি জিতেছিল ৯ উইকেটে।

আফগানিস্তানের বোলারদের ব্যাপারে জানা আছে উল্লেখ করে ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি বলেছেন, ‘আমরা আফগানিস্তানের বোলারদের ভালোভাবেই জানি, নির্দিষ্টভাবে তাদের বোলারদের সম্পর্কে আমাদের ধারণা আছে। শুধু তাদের স্পিনারদের নিয়েই আমাদের ভাবনা নেই, তাদের পেসারদের নিয়েও ভাবতে হবে। আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

বাংলাদেশ দল যখন প্রতিপক্ষ নিয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছে। তখন আফগান উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান রাহমানুল্লাহ গুরবাজ নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়েই খুব মনোযোগী। বাংলাদেশকে নিয়ে না ভেবে, কিভাবে নিজেদের পারফরম্যান্সে উন্নতি করা যায় সেদিকেই লক্ষ্য তার, ‘বাংলাদেশ নিয়ে আমরা ভাবছি না। আমাদের ভাবনা নিজেদের খেলা নিয়ে। আমরা ভালো পারফরম্যান্স করতে পারলে সহজেই ম্যাচ জিততে পারবো।’

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ জয়ের নায়ক আফিফ হোসেন যখন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সদস্য ছিলেন, তখন আফগান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সদস্য ছিলেন রাহমানুল্লাহ গুরবাজ, ‘আফিফকে আমি আগে থেকেই চিনি। অনূর্ধ্ব-১৯ দলে আমরা একসঙ্গে খেলেছি। তাকে নিয়ে আমাদের ভাবনা নেই।’

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের উইকেটেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। ব্যবহৃত উইকেট হওয়াতে বল কিছুটা নিচু হওয়ার পাশাপাশি উইকেটে টার্নও থাকবে। সবমিলিয়ে তাই একাদশে পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। শেষ মুহূর্তে একটি পরিবর্তন আসলেও আসতে পারে। টেস্টের মতো রবিবারের ম্যাচেও পেসারবিহীন বাংলাদেশ দলকে দেখা যেতে পারে। মোস্তাফিজকে বিশ্রাম দিয়ে খেলানো হতে পারে অফস্পিনিং অলরাউন্ডার মেহেদী হাসানকে। যদিও সব কিছুই নির্ভর করছে পরিস্থিতির ওপরে!

/আরআই/এফআইআর/

লাইভ

টপ