অলিম্পিক জয়ের স্বপ্নে বিভোর রোমান

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:৪৭, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৬, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯

রোমান সানাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলএশিয়া কাপ র‌্যাংকিং প্রতিযোগিতার স্টেজ-৩ এ সোনা জিতে সোমবার ফিলিপাইন থেকে দেশে ফিরেছেন রোমান সানা। দেশের এক নম্বর আর্চারের চোখে এখন অলিম্পিক জয়ের স্বপ্ন। আগামী বছর টোকিওতে অনুষ্ঠেয় ক্রীড়া মহাযজ্ঞে পদক জিততে চান তিনি।

ফিলিপাইনে রোমানের হাত ধরে রিকার্ভ এককে স্বর্ণপদকের পাশাপাশি দলগত বিভাগে রুপা এবং মিশ্র দ্বৈতে ব্রোঞ্জ পেয়েছে বাংলাদেশ। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাই ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল ফুল আর মিষ্টি দিয়ে বরণ করে নিয়েছেন বিজয়ীদের।

এমন ভালোবাসায় রোমান অভিভূত। সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ‘কঠোর পরিশ্রম করেছি বলেই সাফল্য পেয়েছি। যত বেশি প্রতিযোগিতায় অংশ নেবো, ততই অভিজ্ঞতার ভাণ্ডার সমৃদ্ধ হবে। আর পদক জয়ের সম্ভাবনাও বেড়ে যাবে।’

রোমানের শেষ কথার সূত্র ধরেই চলে এসেছে অলিম্পিক প্রসঙ্গ। গত জুনে নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত বিশ্ব আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জ জিতে টোকিও অলিম্পিকে সরাসরি অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করেছেন তিনি। ফিলিপাইনে সাফল্যে উজ্জীবিত দেশসেরা আর্চার স্বাভাবিকভাবেই খেলাধুলার শ্রেষ্ঠ আসরে পদক জয়ের স্বপ্নে বিভোর, ‘ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলে অলিম্পিকে পদক পাওয়া সম্ভব। তবে সেজন্য আমাকে সেই পর্যায়ের যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। অলিম্পিকে পদক পাওয়া খুব কঠিন। কারণ অলিম্পিকে অনেক ভালো ভালো খেলোয়াড় অংশগ্রহণ করে। এখনও ১০ মাস আছে। এই সময়ে নিজেকে তৈরি করতে হবে, সামনের প্রতিযোগিতাগুলোতে ভালো করতে হবে।’

ইদানীং আর্চারি থেকে অনেক সাফল্য পাচ্ছে বাংলাদেশ। তাই দেশের ক্রীড়াঙ্গনে আর্চারিকেই সবার ওপরে রাখছেন রোমান, ‘বাংলাদেশে আর্চারিই এখন এক নম্বর খেলা। ক্রিকেট হয়তো জনপ্রিয়তায় সবচেয়ে এগিয়ে। তবে পদক আর সাফল্য বিবেচনা করলে আর্চারিকে সবচেয়ে এগিয়ে রাখতে হবে। বাংলাদেশে খেলাটা নতুন। মাত্র ১৫ বছর আগে আর্চারি এদেশে যাত্রা শুরু করে। তবে আস্তে আস্তে এই খেলা দেশে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।’

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে মার্টিন ফ্রেডরিক দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে আর্চারিতে সাফল্য পাচ্ছে বাংলাদেশ। ফিলিপাইনে শিষ্যদের পারফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত জার্মান কোচ, ‘ফিলিপাইনের প্রতিযোগিতা অনেক কঠিন ছিল। সেখানে লড়াই করে রোমান সোনা জিতেছে, অন্যরাও পদক পেয়েছে। আমি তাই খুব খুশি। এই দল নিয়ে আমি গর্বিত।’

আরও পড়ুন:

গুলতিবাজ রোমান এখন এশিয়ার সেরা তীরন্দাজ

 

/টিএ/এএআর/

লাইভ

টপ