সাফল্যে রাঙানো মোস্তাফিজের লাল বলে ফেরা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:৫৪, অক্টোবর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৫৪, অক্টোবর ১৭, ২০১৯

জাতীয় ক্রিকেট লিগে ফিরেছেন মোস্তাফিজুর রহমানউইকেট উদযাপন করতে বেশিক্ষণ লাগেনি মোস্তাফিজুর রহমানের। নিজের দ্বিতীয় ওভারেই লাল বলে ফেরাটা রাঙিয়ে নিলেন উইকেট উৎসব করে। জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) দ্বিতীয় রাউন্ড দিয়ে মাঠে ফেরা এই পেসারের সঙ্গে মেহেদী হাসান মিরাজের ঘূর্ণিতে দারুণ দিন পার করেছে খুলনা। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রাজশাহীকে প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে দিয়েছে তারা ২৬১ রানে।

খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে এনসিএলের প্রথম স্তরের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে খুলনা-রাজশাহী। বৃহস্পতিবার রাজশাহী ২৬১ রানে অলআউট হলে দিনের খেলা শেষ ঘোষণা করা হয়। এই ম্যাচ দিয়ে লাল বলের ক্রিকেটে ফেরা মোস্তাফিজ ৬৪ রান খরচায় পেয়েছেন ২ উইকেট। তবে খুলনার সবচেয়ে সফল বোলার মিরাজ, ৩৮ রান খরচায় নিয়েছেন ৪ উইকেট।

চোটের কারণে আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে খেলা হয়নি মোস্তাফিজের। ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ অবশ্য খেলেছিলেন বাঁহাতি পেসার। জাতীয় লিগের প্রথম রাউন্ড দিয়ে লাল বলে ফেরার খবর শোনা গিয়েছিল তার। যদিও ফিজিও’র সবুজ সংকেত না মেলায় শেষ মুহূর্তে তাকে বাইরে রাখেন নির্বাচকরা।

দ্বিতীয় রাউন্ড দিয়ে তিনি ফিরেছেন। আর ফিরেই বল হাতে পেয়েছেন সাফল্য। নিজের দ্বিতীয় ওভারে রাজশাহী ওপেনার মিজানুর রহমানকে আউট (৪) করে প্রথম উইকেট পান খুলনা পেসার। তার আঘাতের পর অবশ্য জুনায়েদ সিদ্দিকী ও ফরহাদ হোসেনের জুটিতে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল রাজশাহী। তাদের সেই প্রতিরোধও ভাঙেন মোস্তাফিজ ৪৫ রান করা ফরহাদ হোসেনকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠিয়ে।

মোস্তাফিজের পর বল হাতে আলো ছড়িয়েছেন মিরাজ। ফর্মে ফেরা এই স্পিনারের প্রথম শিকার জুনায়েদ। হাফসেঞ্চুরি পূরণ করে ৫১ রান করা এই ওপেনারকে বোল্ড করেন তিনি। এরপর মিরাজের শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন ফরহাদ রেজা (৪১), সানজামুল ইসলাম (২৩) ও শফিউল ইসলাম (০)।

রাজশাহীর হয়ে অনেকদিন পর জাতীয় লিগে ফিরে প্রথম রাউন্ডে আলো ছড়িয়েছেন মুশফিকুর রহিম। তবে খুলনার বিপক্ষে সুবিধা করতে পারেননি তিনি। আল-আমিন হোসেনের শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ২৪ রানে।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথম স্তরের আরেক ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে ঢাকা-রংপুর। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা ঢাকা দারুণ দিন পার করেছে সাইফ হাসানের সেঞ্চুরিতে। আঘাত পেয়ে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়ার আগে সাইফ খেলেছেন ১২০ রানের কার্যকরী ইনিংস। দিন শেষ ঢাকা ৪ উইকেটে করেছে ৩১৪ রান।

সাইফ আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়ার আগে ১৭৩ বলের ইনিংসটি সাজান ১৩ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায়। ৬৫ রান করেছেন রনি তালুকদার। আর ৫৭ রান এসেছে রকিবুল হাসানের ব্যাট থেকে।

রংপুরের সবচেয়ে সফল বোলার সোহরাওয়ার্দী শুভ। এই স্পিনার ৮০ রান দিয়ে পেয়েছেন ২ উইকেট।

/কেআর/

লাইভ

টপ