ইস্ট বেঙ্গলকে ছাড়াতে পারবে মোহনবাগান?

Send
তানজীম আহমেদ, চট্টগ্রাম থেকে
প্রকাশিত : ১৪:২৩, অক্টোবর ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৩৩, অক্টোবর ১৯, ২০১৯

ইয়াং এলিফ্যান্টসের অধিনায়ক ভান্নার (ডানে) সঙ্গে হাত মেলাচ্ছেন মোহনবাগান অধিনায়ক ফ্রান গনসালেসভারতের ক্লাব ফুটবলে ঐতিহ্যের ধারক মোহনবাগান। ১৩০ বছরের পুরোনো ক্লাবটি দেশটির ফুটবল ইতিহাসে জিতেছে অসংখ্য ট্রফি। দর্শক সমর্থনও তাদের প্রচুর। বিশেষ করে, আরেক ঐতিহ্যবাহী ক্লাব ইস্ট বেঙ্গলের সঙ্গে লড়াই হলে তো কথাই নেই। পুরো কলকাতা দুভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে। সেই মোহনবাগান এবার অংশ নিচ্ছে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইস্ট বেঙ্গল প্রথম আসরে খেলতে এসেই পৌঁছে গিয়েছিল ফাইনালে। যদিও শিরোপা জেতা হয়নি তাদের। সেই হিসেবে শেখ কামাল কাপে অন্তত ফাইনাল খেলাটা মোহনবাগানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আর এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য হিসেবে ট্রফি ছোঁয়ার মিশন তো আছেই। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের ‘রেকর্ড’ ছাড়িয়ে মোহনবাগান কি পারবে ট্রফি জিততে?

ভারতে যখন ইন্ডিয়ান সুপার লিগের (আইএসএল) জয়জয়কার, তখন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দল দুটি আই-লিগেই নিজেদের সীমাবদ্ধ রেখেছে। তবে কয়েক বছর হলো আই-লিগের শিরোপাও ছোঁয়া হয় না মোহনবাগানের। ২০১৪-২০১৫ মৌসুমে জিতেছিল সবশেষ লিগ ট্রফি।

ব্যর্থতার সেই বৃত্ত ভেঙে দলটির স্প্যানিশ কোচ হোসে আন্তোনিও ভিকুনা সাফল্যের মুকুটে আরেকটি পালক যোগ করতে চান। শেখ কামাল ক্লাব কাপ সামনে রেখে প্রস্তুতিও সেরেছে তারা দারুণভাবে। ভিকুনা চোখ রাখছেন শিরোপায়, ‘আমরা মূল দল নিয়েই এখানে এসেছি। এই আসরে খেলতে পেরে আমরা খুশি। অন্যদের মতো আমাদেরও লক্ষ্য ট্রফি জয়।’

মোহনবাগানে স্প্যানিশ খেলোয়াড়দের ছড়াছড়ি। এছাড়া ত্রিনিদাদ ও টোবাগোরও আছেন একজন। এদের নিয়ে চট্টগ্রামে লড়াই করার প্রতিশ্রুতি দলটির অধিনায়ক ফ্রান গনসালেসের, ‘আমরা ভালো খেলতে চাই। আশা করছি ভালো একটি টুর্নামেন্ট হবে। আমরা প্রত্যেকটি ম্যাচ উপভোগের চেষ্টা করব, সঙ্গে জয়ের মিশন তো আছেই।’

নিজেদের প্রথম ম্যাচে মোহনবাগান মুখোমুখি হবে লাওসের ক্লাব ইয়াং এলিফ্যান্টস এফসির। এই আসরে এখন পর্যন্ত ব্যতিক্রম লাওসের এই দলটি। তাদের দলে কোনও বিদেশি খেলোয়াড় নেই। শুধু স্থানীয় খেলোয়াড়দের নিয়ে চট্টগ্রামের আসরে খেলতে এসেছে। জাতীয় দলের চারজন খেলোয়াড় থাকা লাওসের দলটি অবশ্য বিদেশি ছাড়াই লড়াই করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

/টিএ/কেআর/

লাইভ

টপ