তথ্যপ্রযুক্তির ভবিষৎ গন্তব্য আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্সে

Send
মাহবুবুর রহমান
প্রকাশিত : ১৯:২২, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:২২, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭

বলছেন মোস্তাফা জব্বার‘আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স- দি নেক্সট বিগ থিং ইন বাংলাদেশ’ শিরোনামে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) এবং বাংলাদেশে এর সম্ভাবনা নিয়ে গোল টেবিল বৈঠকের আয়োজন করে তথ্যপ্রযুক্তি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ই-জেনারেশন লিমিটেড। সোমবার ঢাকার কাওরান বাজারের জনতা টাওয়ারের সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে এ গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করা হয়। এআই প্রযুক্তির বিভিন্ন ধরনের সুবিধা এবং বিভিন্ন সেক্টরে এর ব্যবহার ও বিভিন্ন সমস্যার সমাধান আলোচনা করেন বক্তারা। এছাড়া বক্তারা ডিপ লার্নিংভিত্তিক নতুন প্রযুক্তি, আইওটি এবং সেন্সর নিয়েও আলোচনা করেন। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরি, বিসিসির সাবেক নির্বাহী পরিচালক এস এম আশরাফুল ইসলাম-সহ আরও অনেকে।

মোস্তফা জব্বার বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির ভবিষৎ গন্তব্য আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্সে (এআই)। এই বিশ্ব আরও ভালো কিছুর জন্য পরিবর্তন হচ্ছে। বেসিস তার নীতিগত জায়গা থেকে আইওটি, এআই, রোবটিক্স এবং সর্বশেষ প্রযুক্তি বাস্তবায়নের পরিকল্পনা নিয়েছে। সরকারের সহযোগিতায় আমরা প্রকল্পগুলোর উদ্যোগ গ্রহণ করব, যা স্থানীয় বিশেষজ্ঞরা অনুধাবন করতে পারেন এবং এটি আমাদের আর্ন্তজাতিক বাজারে একটি নিরাপদ অবস্থানে নিতে সাহায্য করে।
ই-জেনারেশন গ্রুপের চেয়ারম্যান শামীম আহসান বলেন, এআই প্রযুক্তি বিভিন্ন সেক্টরে ব্যবহার করা যেতে পারে। এআই প্রযুক্তি ব্যবহার করে আমাদের বাংলাদেশি তরুণরা বিভিন্ন সমস্যা সমাধান করছেন। ই-জেনারেশনে আমরা বাংলার জন্য ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসর (এনএলপি) তৈরি করছি, যা মেশিন লার্নিং এবং এআই এর সঙ্গে সমন্বয় করে করা হচ্ছে। জনগণকে এআই সম্পর্কিত বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতে হবে, যা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পাঠ্যক্রমে অনুপস্থিত।

/এইচএএইচ/

লাইভ

টপ