উন্মুক্ত লাইসেন্স সহজ করতে ক্রিয়েটিভ কমন্স সার্টিফিকেশন

Send
নুরুন্নবী চৌধুরী, টরন্টো (কানাডা) থেকে
প্রকাশিত : ১৮:৩৯, এপ্রিল ১৫, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৪২, এপ্রিল ১৬, ২০১৮

সম্মেলনে ওপেন একসেস বিষয়ে বিশেষ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাসুসেটস ইনস্টিটিউট অব আইটি’র (এমআইটি) লাইব্রেরিসের পরিচালক ক্রিস বোর্গউন্মুক্ত লাইসেন্সের বিষয়টি আরও সহজ করার জন্য শুরু হলো ক্রিয়েটিভ কমন্স সার্টিফিকেশন কার্যক্রম। কানাডার টরন্টোতে সৃজনশীল লাইসেন্স দেওয়ার অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ক্রিয়েটিভ কমন্সের (সিসি) বার্ষিক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে (১৪ এপ্রিল) এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

আয়োজকরা জানান— সারাবিশ্বে উন্মুক্ত লাইসেন্স হিসেবে সিসি’র ব্যবহার বৃদ্ধির পাশাপাশি এ লাইসেন্স বিষয়ে আরও বেশি তথ্য জানানো ও দক্ষ করার ভাবনা থেকেই সিসি সার্টিফিকেশন প্রোগ্রাম চালু করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সিসি’র প্রধান নির্বাহী রায়ান মার্কলে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘উন্মুক্ত লাইসেন্সের বিভিন্ন বিষয়কে আরও সহজ করতে এই সার্টিফিকেশন কার্যক্রম শুরু করলো সিসি। এখন চাইলে যে কেউ এ বিষয়ে আরও বেশি জানতে ও লাইসেন্স নিয়ে কাজ করতে পারবেন। একইসঙ্গে এটি ব্যবহার করা যাবে প্রাত্যহিক কাজে।’

এবারের সিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন ছিল বিভিন্ন বিষয়ে সেমিনার, কর্মশালা ও আলোচনা। ওপেন একসেস বিষয়ে বিশেষ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাসুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি) লাইব্রেরিসের পরিচালক ক্রিস বোর্গ। পরে এ বিষয়ে বিশেষ আলোচনায় অংশ নেন মজিলা ফাউন্ডেশনের গ্লোবাল পার্টিসিপেশন লিড আমিরা ধাল্লা ও ইউনিভার্সিটি অব গোয়েলফের গবেষণা বিভাগের প্রধান অ্যামি ব্যাকল্যান্ড। কেন ওপেন একসেসে তথ্য থাকা উচিত ও এর সুফল কীভাবে সবাই পেতে পারে সেই বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন বক্তারা।

সম্মেলনে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ক্যাথেরিন মাহেরের সঙ্গে প্রতিবেদকএমআইটি’তে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে ক্রিস বোর্গ বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরে ওপেন একসেস নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। এর অংশ হিসেবে এমআইটিতে চালু হয়েছে এমআইটি টাস্ক ফোর্স অন ওপেন একসেস। সেখানে গবেষণার ক্ষেত্রে দারুণ সহযোগিতা করছে এটি।’

সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে উল্লেখযোগ্য আয়োজনের মধ্যে আরও ছিল ওপেন ডেটা ও ওপেন রিসার্চ বিষয়ে আলোচনা, ট্রান্সলেশন ওয়ার্কিং গ্রুপের বিশেষ কর্মশালা, ‘ওপেন লাইসেন্সিং ফর পাবলিক গুডস’ বিষয়ক আলোচনা, ‘ব্রিজিং দ্য গ্যাপ অন ক্রিয়েটিভ কমন্স ইন ডেভেলপিং কান্ট্রি’ শীর্ষক সেমিনার, স্ট্র্যাকচার ডেটাবেজ নিয়ে বিশেষ কর্মশালা, ‘দ্য ফিউচার অব ডিজিটাল আর্কাইভস’ শীর্ষক পর্ব, সিসি ওপেন এডুকেশন প্ল্যাটফর্ম নিয়ে অনলাইন বৈঠক।

এছাড়া উন্মুক্ত শিক্ষা কাযর্ক্রম নিয়ে ‘লিভারেজিং গ্লোবাল ওপেন এডুকেশন অ্যাচিভমেন্ট’ শীর্ষক আলোচনায় অংশ নেন উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মোস্তফা আজাদ কামাল। এ পর্ব পরিচালনা করেন সিসি ওপেন এডুকেশনের পরিচালক ক্যাবল গ্রিন।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব বিজনেসের ডিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বাংলাদেশে ওপেন এডুকেশন রিসোর্স নীতিমালার কাজ শেষ হয়েছে যা শিগগিরই অনুমোদন পাবে। এ নীতিমালা হয়ে গেলে বাংলাদেশেও ওপেন এডুকেশনের কার্যক্রম আরও বাড়বে এবং সরকারের অর্থে তৈরি শিক্ষা উপকরণগুলো আরও সহজলভ্য হবে।’

বাংলাদেশে যে এই নীতিমালা হচ্ছে তা নিয়েও আলোচনা হয়েছে সম্মেলনে। বিভিন্ন দেশের ওপেন এডুকেশন বিশেষজ্ঞরা বাংলাদেশের এই উদ্যোগের প্রশংসা করেন।

তিন দিনের আয়োজন ক্রিয়েটিভ কমন্সের (সিসি) বার্ষিক সম্মেলন শেষ হবে রবিবার (১৫ এপ্রিল)। সমাপনী দিনেও রয়েছে একাধিক আয়োজন।

/জেএইচ/

লাইভ

টপ