গেম ‘স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম’ চালু করছে গুগল

Send
ইমদাদুল হক
প্রকাশিত : ২০:৩২, এপ্রিল ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩২, এপ্রিল ২৩, ২০১৯

আসছে গুগল স্টেডিয়াঅন্যান্য কোম্পানি তাদের নিজস্ব গেম স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মের পরিকল্পনা প্রকাশের আগেই অনলাইন গেমিং জগতে নেটফ্লিক্সের প্রতিদ্বন্দ্বী হতে যাচ্ছে গুগল। তাদের আগেই অনলাইন গেমিং দুনিয়ায় ঝড় তুলতে আসছে গুগল স্টেডিয়া। গেম স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম হিসেবে স্টেডিয়ার অভিষেক সময়ের ব্যাপার মাত্র বলে খবর দিয়েছে ডিজিটাল ট্রেন্ড। বলা হচ্ছে, গুগলের এই সেবা গেম নির্মাতাদের জন্য দুঃসংবাদ হতে পারে।
অবশ্য গান, টিভি এবং মুভির পরই অনলাইনে গেমিং প্ল্যাটফর্ম নিয়ে আসা স্বাভাবিক ঘটনা বলেই মনে করছেন খাত সংশ্লিষ্টরা। এদিকে কবে, কখন বা কোন মডেলে এই প্ল্যাটফর্মের যাত্রা শুরু হবে তা খোলাসা করেটি ডিজিটাল ট্রেন্ড। একই সঙ্গে খবরের মূল সূত্রও প্রকাশ করেনি।
এ বিষয়ে মূলধারার একটি গেম নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ও নো মোর রোবটস’র প্রকাশক মাইক বলেন, গুগলের এই যাত্রার ভালো ও মন্দ উভয় দিকই রয়েছে। আপনি যদি গত দশকে সঙ্গীত শিল্প জগতে কী পরিমাণ আয় হয়েছে তা যাচাই করেন, দেখবেন স্ট্রিমিং উত্থানের সঙ্গে সঙ্গে এর ব্যাপক পতন ঘটেছে।
যদি মাইক যে সত্য প্রকাশ করেছেন তা থেকে বেরিয়ে আসা যায়, তখন দেখা যায় গেমিং স্ট্রিমিং থেকে প্রতি ঘণ্টায় একজন খেলোয়াড় অনলাইনে খেলে আয় করছেন। তাই যখন কেউ গেম বুটসআপ করবে তখন স্টুডিও আয় করবে। একইসঙ্গে খেলোয়াড়রাও অনলাইনে খেলতে বেশি সময় ব্যয় করবে। অনলাইন গেম স্ট্রিমিং’র ক্ষেত্রে এই আয়ের মডেলটি পুরোপুরি প্রকৃত ডেভেলপরদের হাতের নাগালের বাইরে চলে যায়। কেননা, প্রকৃত প্রকল্পের অধীনে পে-টাইমের ৬০ ঘণ্টার বেশি অফার করা যায় না।

/এইচএএইচ/

লাইভ

টপ