বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০১:১২, মে ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:২০, মে ২০, ২০১৯

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্য হাছান মাহমুদ, মোস্তাফা জব্বার ও জুনাইদ আহমেদ পলক

উৎক্ষেপণের একবছর পর আনুষ্ঠানিকভাবে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করলো দেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১। রবিবার (১৯ মে) রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের উৎক্ষেপণের প্রথম বর্ষপূর্তি এবং বাণিজ্যিক কার্যক্রম উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের টিভিগুলোকে বিদেশি স্যাটেলাইটের ওপর নির্ভর করতে হতো, এখন আর তেমনটি নেই। বঙ্গবন্ধু স্যাটলাইটের মাধ্যমে এখন সম্প্রচারে যাওয়া যাবে। আজ থেকে টেলিভিশন চ্যানেলগুলো বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে চলবে। ফলে দেশীয় টিভিগুলোর সম্প্রচার খরচও কমে যাবে’

তিনি মনে করেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটকে বাণিজ্যিকভাবে দেখলে চলবে না। বাংলাদেশ এখন স্যাটেলাইটের দেশ; এটি গর্বের বিষয়।

তিনি জানান, বর্তমানে ৩১টি চ্যানেল সম্প্রচারে আছে। লাইসেন্স আছে ৪৫টি টিভির। আরও কিছু টেলিভিশন সম্প্রচারে আসবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর পরে আমরা বঙ্গুবন্ধ স্যাটেলাইট-২ নিয়ে পরিকল্পনা করছি। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট- ২ কী ধরনের হবে, তার খসড়া তৈরি করা হয়েছে। বিস্তারিত যত দ্রুত সম্ভব প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা প্রাকৃতিক দুর্যোগের দেশ; প্রতিবছর কয়েকবার এটি মোকাবিলা করতে হয়। প্রচলিত ব্যবস্থা যেকোনও সময় ভেঙে পড়তে পারে। তবে এখন স্যাটেলাইট ব্যবহার করে যোগাযোগ অব্যাহত রাখতে পারবো।’

বিশেষ অতিথির বক্তেব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘আমরা জেনেছি, আগামী ৭-৮ বছরের মধ্যে আমাদের স্যাটেলাইট তার খরচ উঠিয়ে আনতে সক্ষম হবে। এই স্যাটেলাইট দিয়ে আমরা টেলিকমিউনিকেশন, টেলিভিশন সম্প্রচার ও ইন্টারনেট সেবা পাবো।’ ২০১৮ সালের ১২ মে যুক্তরাষ্ট্রের অরল্যন্ডোর কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে যখন বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা হয়, তখন তিনি সেই মাহেন্দ্রক্ষণে উপস্থিত ছিলেন এবং ইতিহাসের সাক্ষী হয়েছিলেন বলেও অনুষ্ঠানে জানান।

বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএসসিএল) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, ‘দেশের সব বেসরকারি টেলিভিশনের সঙ্গে বাণিজ্যিক চুক্তি হবে। টিভিগুলোর জন্য আলাদা করে কোনও ভিস্যাট লাগবে না। চ্যানেলগুলোর কাছ থেকে কনটেন্ট নিয়ে আমরা সরাসরি ফাইবার অপটিক ক্যাবলের মাধ্যমে পৌঁছে দেবো।’

অনুষ্ঠানে দীপ্ত টিভি, যমুনা টিভি, সময় টিভি, মাই টিভি ও বাংলা টিভির সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তিপত্র হস্তান্তর করা হয়। চুক্তি অনুযায়ী টিভিগুলো বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ব্যবহার করে সম্প্রচার করবে।

অনুষ্ঠানে সোনালী ব্যাংকের সঙ্গে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হয়। চুক্তি অনুযায়ী সোনালী ব্যাংকের ব্রাঞ্চ টু ব্রাঞ্চ যোগাযোগ, কানেক্টিভিটি ও এটিএম বুথের জন্য বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট থেকে সেবা নেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশের বেসরকারি ব্যাংক ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডও তার এটিম বুথ পরিচালনায় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট থেকে সেবা নেবে। অনুষ্ঠান স্থলের বাইরে ব্যাংকটির একটি এটিএম বুথ স্থাপন করা হয়; যেটা পরিচালিত হচ্ছিলো বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট  থেকে কানেক্টিভিটি নিয়ে।

অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ এ সংক্রান্ত একটি স্মারক ডাকটিকিটও উম্মোচন করেন।

সোনালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান আশরাফুল মকবুল, ডাচ-বাংলা ব্যাংকের চেয়ারম্যান সায়েম আহমেদ বক্তব্য রাখেন। একই অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিয়ে আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

 

/এইচএএইচ/এমএ/

লাইভ

টপ