ফ্রিল্যান্সিংয়ে হাতেখড়ি

Send
টেক ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৬:৫৪, মে ১১, ২০১৪ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৪৪, ডিসেম্বর ২২, ২০১৫

নিজ প্রতিষ্ঠানের বাইরে অন্য প্রতিষ্ঠান বা কোনো ব্যক্তিকে দিয়ে ইন্টারনেটভিত্তিক কাজ করানো হলো আউটসোর্সিং। যারা এ কাজের সঙ্গে জড়িত তারাই হলেন ফ্রিল্যান্সার। এর অর্থ মুক্ত বা স্বাধীন পেশাজীবী। আউটসোর্সিং সাইটের কাজগুলো বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ভাগ করা থাকে। যেমন: ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, নেটওয়ার্কিং ও তথ্যব্যবস্থা, লেখা ও অনুবাদ, প্রশাসনিক সহায়তা, ডিজাইন ও মাল্টিমিডিয়া, গ্রাহকসেবা, বিক্রয় ও বিপণন, ব্যবসা-সেবাসহ আরো অনেক কিছু। আউটসোর্সিংয়ের কাজ পাওয়া যায় এমন অনেক ওয়েবসাইট আছে ইন্টারনেটে। গুগলে গিয়ে খোঁজ করলেই পাওয়া যাবে। আউটসোর্সিংয়ের ভুয়া সাইটও আছে ইন্টারনেটে। এ বিষয়ে নবীন ফ্রিল্যান্সারদের সতর্ক থাকা জরুরি। আন্তর্জাতিকভাবে পরিচিত এবং নির্ভরযোগ্য কয়েকটি সাইট হলো ফ্রিল্যান্সিং সাইট হলো ওডেস্ক, ফ্রিল্যান্সার এবং ইল্যান্স ডট কম। এসব সাইটে গেলে নবীন ফ্রিল্যান্সাররা আউটসোর্সিং কাজের বিষয়ে একটা পরিস্কার ধারণা পাবেন। আজ কাজ করার বিনিময়ে ফ্রিল্যান্স্যার আয় করবেন বৈদেশকি মুদ্রা। বর্তমানে ৪-৫টি আন্তর্জাতিক মানের ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস রয়েছে ইন্টারনেটে। মার্কেটপ্লেসগুলোর প্রতিটিতেই একটি কমন বিষয় থাকে, ভালো একটি প্রোফাইল তৈরি করা। অনলাইন মার্কেটপ্লেসেও প্রোফাইল দেখেই ক্লায়েন্ট বিবেচনা করবে আপনি কাজ পাওয়ার যোগ্য না অযোগ্য। এ কারণে প্রোফাইলকে যতটা সম্ভব আকর্ষণীয় করে তৈরি করতে হবে। স্কিল টেস্ট দেয়া থাকলে ভালো কাজ পেতে সুবিধা হবে। ইল্যান্স ডট কমে বিনামূল্যে অসংখ্যবার স্কিল টেস্ট দেয়া যায়। স্কিল টেস্ট দেয়া থাকলে ক্লায়েন্ট বুঝবে যে আপনি ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নতুন অথবা অভিজ্ঞ। প্রোফাইলে আগে কী কী কাজ করেছেন তার একটি তালিকা, যেমন নিজের তৈরি লোগো, ওয়েবসাইটের স্ক্রিনশট, ইউনিভার্সিটিতে তৈরি কোনো প্রেজেন্টেশন, কোনো সার্টিফিকেটের স্ক্যান করা ইমেজ দেয়া যেতে পারে। এবার মাঠে নেমে পড়ুন। হয়ে উঠুন ফ্রিল্যান্সার।

লাইভ

টপ