মাইক্রোসফট সম্পর্কিত অজানা কিছু তথ্য

Send
দায়িদ হাসান মিলন
প্রকাশিত : ১৭:০৩, মার্চ ৩০, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:০৩, মার্চ ৩০, ২০১৬

মাইক্রোসফট

মাইক্রোসফট সব জায়গায় আছে। এই কথাটি আপনার পছন্দ বা অপছন্দ যাই হোক না কেন তা সত্য। ১৯৭০ এর দশকে এটা খুব ভালো একটি স্টার্টআপ হিসেবে আবির্ভূত হয়। তারপর সত্য নাদেলার হাতে বলতে গেলে এর পুনর্জন্ম ঘটে ১৯৯০ -এর দশকে।

এরপর থেকে শুরু হয় মাইক্রোসফটের স্বর্ণ যুগ। সত্যিকার অর্থে মাইক্রোসফটের বেশ বড় একটা ইতিহাস আছে। আমরা তার কতটুকুই বা জানি?

এখানে মাইক্রোসফট সম্পর্কে হয়তোবা আপনি কখনও শোনেননি এরকম কিছু তথ্য উল্লেখ করা হলো-

১. মাইক্রোসফট ১৯৯৭ সালে অ্যাপলকে প্রায় দেউলিয়া হতে চলা থেকে রক্ষা করে। তখন এই প্রতিষ্ঠানটি অ্যাপলকে ১৫০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করে।

২. ১৯৮৭ সালে মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস সবচেয়ে কম বয়সী বিলিয়নিয়ার হিসেবে নির্বাচিত হন। তখন তার বয়স ছিল ৩১ বছর। আর ১৯৯৫ সালে তিনি পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি হিসেবে নির্বাচিত হন। তখন তার অর্থের পরিমাণ ছিল ১২ দশমিক ৯ বিলিয়ন ডলার।

৩. বিশ্লেষকদের মতে, মাইক্রোসফটের মাধ্যমে কমপক্ষে দুইজনের বেশি ব্যক্তি বিলিয়নিয়ার হয়েছে এবং ১২ হাজারের বেশি ব্যক্তি মিলিয়নিয়ার হয়েছে।

৪. মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস এবং পল অ্যালেন প্রতিষ্ঠানটির প্রথম লোগোর নকশা করেন। তারা একদিনে এই নকশাটি তৈরি করেন।

৫. খ্যাতিমান প্রযোজক এবং সুরকার ব্রায়ান ইনো উইন্ডোজ স্টার্টআপের বিখ্যাত শব্দটি তৈরি করেছিলেন। এটা প্রথম উইন্ডোজ ৯৫-এ ব্যবহার করা হয়। এ ছাড়াও উইন্ডোজ ৯৫ -এর সঙ্গে মিউজিকের ভালো আন্তঃসম্পর্ক ছিল। অপারেটিং সিস্টেমের থিম সং ছিল রোলিং স্টোনের ‘স্টার্ট মি আপ’।

৬. ১৯৮৮ সালে বিল গেটস তার ৬৬ হাজার বর্গফুটের ‘জানাদু ২.০’ নামক বাড়িটি কেনেন। তিনি ওয়াশিংটনে এই বাড়িটি কিনেছিলেন ২ মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে। তবে বর্তমানে এর দাম বলা হয়ে থাকে ১২৩ মিলিয়ন ডলার।

৭. মাইক্রোসফটের কর্মীরা প্রতি বছর প্রতিষ্ঠানটির ক্যাফেটেরিয়া থেকে ২৩ মিলিয়নের বেশি পানীয় বিনামূল্যে পান করে। বিশেষ করে দুধ এবং কমলার জুস।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

/এইচএএইচ/

লাইভ

টপ