ভালোবাসার গল্প বলা এক তরুণ

Send
সাদ্দিফ অভি
প্রকাশিত : ১৮:১৯, অক্টোবর ০১, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৪৯, অক্টোবর ০১, ২০১৬

ভালোবাসার গল্প বলা এক তরুণ এবং সফল নাট্যনির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ান। ক্যারিয়ারের মাত্র অল্প সময়ে একে একে বানিয়েছেন ২৮টি নাটক ও টেলিফিল্ম। যার প্রতিটাই দর্শকদের আকৃষ্ট করেছে। নাটকের পাশাপাশি বানিয়েছেন মিউজিক ভিডিও। যেগুলোও কুড়িয়েছে প্রশংসা। সম্প্রতি তাহসান-মিথিলা জুটিকে নিয়ে বানানো মিঃ অ্যান্ড মিসেস এর ইউটিউব ভিউ দাঁড়িয়েছে ১০ লাখের বেশি! আরিয়ানের প্রতিটা নাটকই এক একটি মিষ্টি ভালোবাসার গল্প।

মিজানুর রহমান আরিয়ান

বাংলা ট্রিবিউনের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে বললেন নিজের সম্পর্কে। কথা হলো তার কাজ নিয়েও।      

বাংলা ট্রিবিউন: আপনার পড়াশোনার বিষয় সম্পর্কে জানতে চাচ্ছিলাম।  

মিজানুর রহমান আরিয়ান: আমি একজন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার। ইঞ্জিনিয়ারিং পড়েও এই লাইনে কাজ করার ইচ্ছে হয়নি। 

বাংলা ট্রিবিউন: প্রোডাকশনে কাজ শুরু কিভাবে ?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: প্রোডাকশনে কাজ শুরুর কাহিনী অনেকটা লম্বা, মূলত ডিরেকশন আমি ইউটিউব থেকে দেখে দেখে শিখেছি। স্ক্রিপ্ট লেখাও আমার ইন্টারনেট ঘেঁটে শেখা। পাশাপাশি কিছু বই পড়েছি। এরপর ডিরেকশনের কাজ কিছুটা শেখার পর সরাসরি নাটক বানিয়ে ফেললাম যার নাম ‘তুমি আমি সে।’ আমার ক্যারিয়ারের প্রথম দিকে ডিরেকশন বুঝতাম কিন্তু ম্যানেজমেন্ট বুঝতাম না। এই কারণে অনেক ঝামেলার সম্মুখীন হতে হয়েছে।   

বাংলা ট্রিবিউন: ‘তুমি আমি সে’ আপনার প্রথম কাজ। কেমন সাড়া পেয়েছিলেন?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: খুবই ভালো। প্রথম কাজে দর্শকদের পাওয়া ভালোবাসার কারণেই আমি আজকে এই জায়গায়। এখন পর্যন্ত আমার ৫টি সেরা কাজের মধ্যে এটি একটি বলতে পারেন।

বাংলা ট্রিবিউন: নাটকের পাশাপাশি আর কী করছেন ?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কিছু করছি না। বন্ধুরা মিলে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা করছি। পাশাপাশি কিছু টিভিসির কাজ করছি।  

বাংলা ট্রিবিউন: খুব অল্প সময়ের মধ্যে দর্শকদের কাছে টানতে পেরেছেন, এর পেছনে কারণটা কি মনে করেন?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: কারণটা হচ্ছে আমি প্রথমে ৭টি নাটক বানিয়েছি, বিভিন্ন ধাঁচের। এর মধ্যে কমেডি ছিল, অ্যাকশন ছিল। এগুলা থেকে আমি বোঝার চেষ্টা করেছি আসলে দর্শক কি চায়। সেখান থেকে বুঝলাম বাংলাদেশের মানুষ অনেক আবেগি হতে চায়। হাসতে চায়, ভালোবাসতে চায়। এটা যাচাই করেই আমি ‘ইন অ্যা রিলেশনশিপ’ বানালাম। তখন নিশ্চিত হলাম যে ভালোবাসার গল্প দর্শকের সাথে একটা যোগসূত্র স্থাপন করে। এরপর থেকে এই একটি ধরন নিয়েই কাজ করছি আমি।   

মিজানুর রহমান আরিয়ান

বাংলা ট্রিবিউন: আপনার বেশির ভাগ নাটকেই রিলেশনশিপ সমস্যায় ফোকাস করা, যেটা বর্তমান যুগে বাস্তব ঘটনা। এর জন্যই কি দর্শক বেশি আকৃষ্ট হয় বলে মনে করেন?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: আমি আগের কথাটাই আবার বলবো যে বাংলাদেশের মানুষ আবেগি হতে চায়। এই যেমন সম্প্রতি আমার নাটক মিঃ অ্যান্ড মিসেস- এর পোস্টে দেখলাম সবাই তার প্রিয় মানুষকে ট্যাগ করে বলছে রিলেশনশিপ এরকম হওয়া উচিত। জিনিসগুলো দর্শকরা নিজের সাথে কানেক্ট করতে চায়।         

বাংলা ট্রিবিউন: নাটকের সাথে থিম সং এর কালচার আপনার বেশিরভাগ কাজে দেখা যায়। এটার কী কারণ?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: এটা আসলে এখন আমার নাটকের একটা স্টাইল হয়ে গেছে। আমার সব নাটকেরই থিম সং আছে। কারণ দর্শক আশা করেন যে আমার নাটকে একটা লাভ স্টোরি থাকবে। একটা গান থাকবে। আমি নিজেও এখন গান ছাড়া নাটক প্ল্যান করতে পারি না। এটা এখন আমার নিজের কাছে এবং দর্শকের কাছেও গ্রহণযোগ্যতা পেয়ে গেছে। 

বাংলা ট্রিবিউন: টেলিভিশনের পাশাপাশি ইউটিউবে নাটক রিলিজ দিচ্ছেন, লাভটা কোথায়?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: আমার কাজ হচ্ছে একজন নির্মাতা হিসেবে বানানো। আমি দর্শকদের জন্য বানাচ্ছি। যেকোনও মাধ্যমে সেটা দর্শকদের কাছ পর্যন্ত পৌঁছানোটাই আসল। তবে আমার কাছে সবচেয়ে সেরা মাধ্যম হলো টেলিভিশন।    

বাংলা ট্রিবিউন: ঈদে বিজ্ঞাপনের চাহিদা বেশি থাকায় নাটকের ফাঁকে বিজ্ঞাপনকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়, সেখানে আপনি ব্রেক ফ্রি নাটক দিচ্ছেন কেন?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: আসলে এটা নির্ভর করে স্পন্সরের উপর। আগে এই ব্যাপারটা ছিল না। তবে এখন শুধু আমার নাটকই না, অনেকের নাটকই বিরতিহীনভাবে দেখানো হচ্ছে।

বাংলা ট্রিবিউন: এ পর্যন্ত আপনার সেরা কাজ কোনটি মনে হয়েছে ?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: সেরা কাজ তো অনেকগুলাই আমার কাছে।এ র মধ্যে বলতে পারি তুমি আমি সে,ইন এ রিলেশনশিপ,কথোপকথন,উৎসর্গ, অ্যাংগ্রি বার্ড, প্রেম তুমি।   

বাংলা ট্রিবিউন: এই মুহূর্তে হাতে কাজ কী কী আছে?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: এই মুহূর্তে লাভ স্টোরি নিয়ে একটা দীর্ঘ সিরিজের পরিকল্পনা চলছে। খুব শীঘ্রই কাজ শুরু হবে বলে আশা করি।

বাংলা ট্রিবিউন: ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: যতদিন আমার আশেপাশে ভালোবাসার গল্পগুলো পাব, নাটক বানিয়ে যাবো। যদি একসময় মনে হয় আমার আশেপাশে ভালোবাসার গল্পগুলো ফুরিয়ে গেছে, তখন বিভিন্ন জায়গায় ঘুরবো। দেশের এক প্রান্ত থেকে শুরু করে আরেক প্রান্ত যাব শুধুমাত্র নতুন গল্প খোঁজার জন্য।   

বাংলা ট্রিবিউন: সিনেমা বানানোর ইচ্ছা আছে?

মিজানুর রহমান আরিয়ান: সিনেমা এই মুহূর্তে হাতে বেশ কয়েকটা আছে। তবে আরও একটা বছর সময় লাগবে নিজেকে গোছানোর জন্য। সামনের বছর আসবো এটা নিশ্চিত। গল্প এবং শিল্পী নিয়ে কথা হয়ে গেছে, এখন দরকার অল্প কিছু সময়।

 

/এনএ/

 

 

 

লাইভ

টপ