X
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

দুই মারমা বোনকে ধর্ষণ ও নির্যাতনের প্রতিবাদে রাজধানীতে নাগরিক সমাবেশ

আপডেট : ২৬ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:৫৩

নাগরিক সমাবেশে বক্তারা (ছবি: সংগৃহীত) রাঙামাটি জেলার বিলাইছড়িতে দুই মারমা বোনকে ধর্ষণ ও নির্যাতনের প্রতিবাদে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে অনুষ্ঠিত হলো নাগরিক সমাবেশ। শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় এর আয়োজন করে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম। সমাবেশে ওই ঘটনায় বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে সংহতি জানানো হয়।

এ সময় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. রোবায়েত ফেরদৌস। তিনি বলেন, ‘আমরা খুব বিক্ষুব্ধ মন নিয়ে এখানে দাঁড়িয়েছি। কিছুদিন আগে সমাজবিজ্ঞানের এক গবেষণায় দেখা গেছে, ধর্ষনের সঙ্গে যৌনতার কোনও সম্পর্ক নেই। এটা নারীর প্রতি প্রতিশোধমূলক আচরণ। প্রতিটি দেশে যুদ্ধের সময় নারীরা ধর্ষিত হয়। কিছুদিন আগে মিয়ানমারেও তাই হয়েছে। যুদ্ধের সময় পাকিস্তানিরাও আমাদের মা-বোনদের ধর্ষণ করেছে।’

অধ্যাপক ড. রোবায়েত ফেরদৌসের মন্তব্য, সংখ্যালঘুরা যদি ভালো থাকে তাহলেই বোঝা যায় একটি দেশ ভালো চলছে। তার প্রশ্ন, ‘কিন্তু বাংলাদেশে কি আদৌ সংখ্যালঘুরা ভালো আছে? আমাদের মনে রাখতে হবে— ভাষাগত, সাংস্কৃতিক ও বৈচিত্র্যের মধ্য দিয়ে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবে বাংলাদেশ।’

ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনায় সরকার ও সেনাবাহিনীর কাছে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান নাট্যব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের আদিবাসীরা প্রতিনিয়ত নির্যাতন ও নিপীড়নের মধ্যে দিয়ে দিনাতিপাত করছে। বিশেষ করে পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক আচরণের কারণে আদিবাসীরা নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছে। বাঙালি হিসেবে আমি লজ্জিত ও শঙ্কিত হই, যখন দেখি রক্ষক নিজেই হয়ে ওঠে ভক্ষক। আমরা জানাই।’

ঢাবির আরেক শিক্ষক অধ্যাপক মেজবাহ কামাল মনে করেন, ‘এসব বিচ্ছিন্ন কোনও ঘটনা নয়। একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক কর্তৃত্ববাদী উদ্দেশ্য হাসিলের লক্ষ্যে এগুলো ঘটানো হচ্ছে।’

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত শিগগিরই পাহাড় থেকে ৫০০’র বেশি অস্থায়ী সেনাক্যাম্প প্রত্যাহারের দাবি জানান। এর মাধ্যমে পাহাড়ে শান্তি ফিরিয়ে নিয়ে আসা সম্ভব বলে মন্তব্য তার।

ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সহিংসতা ও শ্লীলতাহানির অভয়ারণ্য। সেখানে সাম্প্রদায়িকতা ও অন্ধ ধর্মান্ধতার মতো উগ্রতা বিরাজ করছে।’

ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন ঘটনার যথাযথ তদন্ত করে অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতকরণের দাবি জানান বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং। ‘ভুক্তভোগী পরিবারকে পূর্ণ নিরাপত্তা দেওয়া, সব ধরনের হয়রানি আর হুমকি-ধামকি বন্ধ ও ক্ষতিগ্রস্তদের সুচিকিৎসা করা এবং যথাযথ পুনর্বাসনের ব্যবস্থার উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে সঞ্জীব দ্রং বলেন, ‘আদিবাসী নারীসহ সব নির্যাতনের বিচার দ্রুত ও যথাযথভাবে সম্পন্ন করার দাবি জানাই আমরা। একইসঙ্গে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন করতে হবে।’

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আরডিসির জান্নাত-ই ফেরদৌসী, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের রেখা চৌধুরী, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের তন্ময়, পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের ঢাকা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক নিপন ত্রিপুরা, বাংলাদেশ আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রিবেং দেওয়ান, বিএমএসসি ঢাকা মহানগরের সভাপতি নু মং প্রু মারমা, আদিবাসী নারী প্রতিনিধি হেলি চাকমা, হাজং ছাত্র সংগঠনের অলক হাজং, সান্তাল স্টুডেন্টস ইউনিয়নের ইলিয়াস মুরমু ও সোহেল হাজং।

বক্তারা আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের আদিবাসীদের সামগ্রিক বাস্তবতা মোটেও ভালো নেই। আদিবাসী ও ধর্মীয় সংখ্যালঘু জনগণের ওপর নিপীড়ন, নির্যাতন ও অত্যাচারের মাত্রা ক্রমে বেড়ে চলেছে। পাহাড়ে ও সমতলে আদিবাসী নারী ও কন্যাশিশু ধর্ষণের শিকার হচ্ছে। কিন্ত এসব ঘটনার যথাযথ প্রতিকার মিলছে না। ক্ষতিগ্রস্তরা পাচ্ছেন না ন্যায়বিচার। অনেক ক্ষেত্রে রক্ষক নিজেই ভক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হচ্ছেন। দুই-একজনের কারণে কেন সবাই দোষী হবে?’

নাগরিক সমাবেশে সংহতি জানিয়েছে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ, এএলডি, আইইডি, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ, নারীপক্ষ, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন, মানবাধিকার সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশন, জনউদ্যোগ, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন, সেন্টার ফর সোশ্যাল অ্যাক্টিভিজম, কাপেং ফাউন্ডেশন, আরডিসি, আদিবাসী কালচারাল ফোরাম, পিসিপি, বাগাছাস, গাসু, সাসু, জেএইউপি, আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক, কুবরাজ, বাআছাসপ, বিএমএসসি, টিএসএফ, হিল উইমেন্স ফেডারেশন, জাতীয় হাজং ছাত্র সংগঠন, বাহাছাস ও হাসুকসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনের নেতারা।

গত ২২ জানুয়ারি গভীর রাতে রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার ফারুয়া ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ওড়াছড়ি গ্রামে অভিযান চালান সেনাবাহিনী ও আনসার সদস্যরা। এ সময় এক মারমা পরিবারের বড় বোনকে (১৮) ধর্ষণ ও ছোট বোনকে (১৩) যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের শিকার দুই বোনকে ২৩ জানুয়ারি রাঙামাটি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

/এসআই/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ২২ অক্টোবরের ঘটনা।)

জাপানি পত্র-পত্রিকায় বাংলাদেশ সরকারের নানা উদ্যোগের সংবাদ পরিবেশন করা হয়। পত্রিকার খবরে বঙ্গবন্ধুকে সাড়ে সাত কোটি মানুষের মুক্তিদাতা ও বিরাট ব্যক্তি হিসেবে তুলে ধরা হয়। প্রধানমন্ত্রীর সফরের সংবাদ যেভাবে গুরুত্ব দিয়ে পরিবেশন করা হয়েছে, তাতে বঙ্গবন্ধুর প্রতি জাপানের জনগণের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধার মনোভাব প্রতিফলিত হয়।

মধ্যপ্রাচ্যে বাংলাদেশের ভূমিকা প্রশংসনীয় হয়ে উঠছিল সে সময়। আগ্রাসনের বিরুদ্ধে আরও সংগ্রামে সক্রিয় সমর্থনদানের জন্য মধ্যপ্রাচ্যে বাংলাদেশ বিপুল শ্রদ্ধা ও প্রশংসা অর্জন করে। এই দিন বিপিআই প্রকাশিত খবরে বলা হয়, অক্টোবরে মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরপরই সাড়ে সাত কোটি বাঙালির নয়া প্রজাতন্ত্র সংগ্রামী আরব ভ্রাতৃবর্গের প্রতি সমর্থন জানায়।

সমগ্র বাঙালি জাতির পক্ষ থেকে সম্পূর্ণ সমর্থন প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জানান, বাংলাদেশ কেবল আরব ভাইদের প্রতি সমর্থন জানায় তা-ই নয়, আহতদের জন্য দ্রুতই চিকিৎসক দল এবং এক লাখ পাউন্ড চা উপহার পাঠিয়েছে।

আরব টেলিভিশন, বেতার ও পত্র-পত্রিকায় বঙ্গবন্ধুর সফরের খবর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে ফলো করা হয়। কায়রোর প্রধান দৈনিক আল আহরাম এবং অন্যান্য পত্রিকায় বিশেষ করে ইরাক, মিসর, সিরিয়া ও জর্ডানের পত্রিকাগুলোতে বাংলাদেশ থেকে সাহায্য এসে পৌঁছানোর বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশ করা হয়। পত্রিকাগুলোতে আরবদের সংগ্রামে এই সাহায্য ‘কেয়ার অব বাংলাদেশ’ সংহতির প্রতীক হিসেবে উল্লেখ করা হয়। বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ৩৫ জন ডাক্তার ও নার্সের চিকিৎসক দল, ওষুধ ও চিকিৎসা সামগ্রী পাঠায়।

দৈনিক বাংলা, ২৩ অক্টোবর ১৯৭৩ অবশেষে যুদ্ধবিরতি

এইদিন রাত ১০টা ৫০ মিনিট থেকে মধ্যপ্রাচ্যে ১৭ দিনব্যাপী আরব-ইসরাইল যুদ্ধের অবসান ঘটে। যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়নের যৌথভাবে উত্থাপিত প্রস্তাব নিরাপত্তা পরিষদে গৃহীত হয়। প্রস্তাবের বিপক্ষে কেউ ভোট দেয়নি। যুদ্ধে লিপ্ত প্রধান দুটি পক্ষ জাতিসংঘের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব গ্রহণ করেছে। অপরদিকে, ইরাক যুদ্ধ বিরতির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। সিরিয়া এখনও যুদ্ধ সম্পর্কে কোনও মতামত দেয়নি।

প্রসঙ্গত, সিরিয়া নিরাপত্তা পরিষদের ১৯৬৭ সালের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করেনি।

বঙ্গবন্ধুর ব্যস্ত সময়

কর্মব্যস্ত দিন ছিল সেদিন। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোত্তাকিম চৌধুরী কর্তৃক প্রদত্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এর কিছুক্ষণ আগে কয়েকটি অঞ্চলে দুই দিনের সফর শেষে প্রধানমন্ত্রী টোকিওতে প্রত্যাবর্তন করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব ও দলের অন্যান্য সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে প্রশান্ত মহাসাগর দিয়ে ওয়াকায়ামা প্রদেশে পাড়ি দেন এবং প্রদেশের তীর্থভূমির প্রতিষ্ঠানগুলো পরিদর্শন এবং কর্মব্যস্ত শিল্পনগরী ওসাকার মধ্য দিয়ে অতিক্রম করে জাপানের প্রাচীন শহর কিয়োটোতে রাতযাপন করেন বঙ্গবন্ধু।

ডেইলি অবজারভার, ২৩ অক্টোবর ১৯৭৩ জাপানি সাহায্য ত্বরান্বিত হবে

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জাপান সফরে বাংলাদেশের অধিক হারে জাপানি সাহায্য লাভের পথ প্রশস্ত হয়। বাংলাদেশ অধিক জাপানি সাহায্য পাবে, এ ধরনের একটা গভীর আশাবাদ সরকারি মহলে সৃষ্টি হয়। জাপান সরকার বাংলাদেশকে খুব সহজ শর্তে সাহায্য দিচ্ছে এবং মনে করা হচ্ছে, জাপান এরমধ্যেই বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। জাপান বাংলাদেশকে পণ্য ঋণ দিচ্ছে। উল্লেখ্য, জাপান হচ্ছে এশিয়ার বৃহত্তম সাহায্যদানকারী দেশ এবং বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় বৃহত্তম, কিন্তু সত্তর দশকে উপমহাদেশে জাপানের সাহায্যের প্রতিশ্রুতি উল্লেখযোগ্য হারে কমে যায়। অপরদিকে পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে জাপানি সাহায্যের বৃহত্তম অংশ যেতে থাকে।

/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩৭

পূজার সময়ে সন্ত্রাসী ঘটনার প্রচারণা মোকাবিলার জন্য বিদেশে বাংলাদেশি মিশনগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এজন্য যেসব দেশে বাংলাদেশি কূটনীতিকরা কর্মরত রয়েছেন, ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বা সরকার বা সাংবাদিকদের কাছে সঠিক তথ্য তুলে ধরার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরবরাহ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন এ তথ্য জানান।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘বিদেশে যদি এ বিষয় নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা চালানো হয়, তবে আমাদের দূতাবাসগুলো যাতে সেটি কাউন্টার করতে পারে, তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের ঘটনা ঘটলে সেটার বিষয়ে অগ্রগতি আমরা সবসময় আমাদের রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে শেয়ার করে থাকি, যাতে তারা যে দেশে কাজ করছেন, ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বা সরকার বা  সংবাদপত্রকে এ বিষয়ে জানাতে পারেন।’

স্থিতিশীলতা

বাংলাদেশের মূল লক্ষ্য হচ্ছে স্থিতিশীলতার মাধ্যমে অর্থনৈতিক অগ্রগতি অর্জন করা। কিন্তু এ ধরনের ঘটনার কারণে মূল লক্ষ্য থেকে বিচ্যুতি ঘটতে পারে।

এ বিষয়ে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘স্থিতিশীলতার কারণেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি এবং এ ধরনের বিশৃঙ্খলা যদি শক্ত হাতে দমন না করা যায়, তাহলে আমাদের অগ্রগতি ব্যাহত হবে।’

সমাজের সবারই দায়িত্ব হচ্ছে এ ধরনের ঘটনা সমূলে উৎপাটন করা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অনেক দেশ অর্থনৈতিকভাবে অগ্রগতি সাধন করেছে। কিন্তু সমাজে বিভিন্ন সমস্যা আছে, কিন্তু আমরা তো এ ধরনের সমাজ চাই না। প্রগতিশীল একটি দেশ হিসেবে এগিয়ে যেতে চাই, যেখানে অর্থনৈতিক ও সামাজিক অগ্রগতি একসঙ্গে হবে।’

সরকারের অবস্থান

এটি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য বিষয় জানিয়ে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘আমরা চাই বাংলাদেশের ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় থাকুক। আমরা সবসময় বার্তা দিয়ে আসছি যে বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ দেশ। ধর্ম যার যার উৎসব সবার—এই বার্তাটি আমরা সবসময় দিয়ে থাকি।’

গুজব বা আইসিটির মাধ্যমে অপপ্রচার অত্যন্ত বিপজ্জনক জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট অনেকে পছন্দ করেন না, কিন্তু এটি ছাড়া তো উপায় নাই।’

সরকারের অবস্থান শক্ত ছিল এবং কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। অন্যান্য ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছিল, যাতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অপপ্রচার দ্রুত না ছড়ায়, বলেন তিনি।

/এসএসজেড/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৩

লন্ডন সফররত রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সেখানের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাংবাদিক, কলামিস্ট ও সাহিত্যিক আবদুল গাফফার চৌধুরীর চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যের বিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, হাসপাতালে দর্শনার্থী সংক্রান্ত বিধিনিষেধের কারণে রাষ্ট্রপতি টেলিফোনে আবদুল গাফফার চৌধুরীর খোঁজ-খবর নেন। এসময় তিনি যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিমের মাধ্যমে আবদুল গাফফার চৌধুরীকে ফুলেল শুভেচ্ছা পাঠান।

প্রেস সচিব জানান, গাফফার চৌধুরী তার খোঁজ-খবর নেওয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। রাষ্ট্রপতি আবদুল গাফফার চৌধুরীর আশু আরোগ্য কামনা করেন এবং আশা প্রকাশ করেন, তিনি সুস্থ হয়ে শিগগিরই স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবেন।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, গাফফার চৌধুরী নিউমোনিয়া জটিলতায় গত ৬ অক্টোবর থেকে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

গত ৯ অক্টোবর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য জার্মানির বার্লিনে যান রাষ্ট্রপতি। সেখান থেকে যুক্তরাজ্যের লন্ডন যান তিনি।

/ইএইচএস/এমআর/

সম্পর্কিত

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে মুসলিম উম্মাহকে রাষ্ট্রপতির শুভেচ্ছা

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে মুসলিম উম্মাহকে রাষ্ট্রপতির শুভেচ্ছা

কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: রাষ্ট্রপতি 

কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: রাষ্ট্রপতি 

ভোক্তার আস্থা অর্জনে বিএসটিআইকে আরও দায়িত্বশীল হতে হবে: রাষ্ট্রপতি

ভোক্তার আস্থা অর্জনে বিএসটিআইকে আরও দায়িত্বশীল হতে হবে: রাষ্ট্রপতি

মানসিক স্বাস্থ্যের প্রতি যথাযথ গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

মানসিক স্বাস্থ্যের প্রতি যথাযথ গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২০:২০

সারা দেশে নবনির্মিত ৩৭টি সেতু উদ্বোধন করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) ভার্চুয়ালি “ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের’’ আওতায় এসব সেতু উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু বিভাগের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ ফয়েজ।

অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী জানান, ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের আওতায় প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে মোট ৮২টি সেতু নির্মাণ করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ পর্যন্ত ৬১টি সেতুর নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে ২৫টি সেতু আগেই উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ ৩৫টি সেতু উদ্বোধন করা হলো।

মন্ত্রী আরও জানান, রংপুর সড়ক জোনের আওতায় প্যাকেজ-১-এর অধীনে প্রায় ৫৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১৯টি সেতু এবং রাজশাহী সড়ক জোনের আওতায় প্যাকেজ-২-এর অধীনে প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১৬টি সেতু রয়েছে। অবশিষ্ট ২২টি সেতুর কাজ চলমান। এছাড়াও রংপুর সড়ক জোনের আওতায় জিওবি অর্থায়নে নির্মিত দুটি সেতু বুড়িতিস্তা ও শান্তিপুর-ললতই-ভাটা সেতুও আজ উদ্বোধন করা হলো।

তিনি জানান, সেতুগুলো দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সড়ক নেটওয়ার্ক স্থাপন এবং সাসেক করিডোর, এশিয়ান হাইওয়ে, বিমসটেক ও সার্ক হাইওয়ের সঙ্গে সংযুক্তি ঘটাতে কার্যকর ভূমিকা রাখবে। এছাড়াও উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকাসহ সারা দেশের নিরাপদ, উন্নত ও ব্যয়সাশ্রয়ী যোগাযোগ স্থাপনসহ দেশের জাতীয় অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনের মাধ্যমে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে রূপান্তরের ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। 

অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত মি. ইতো নাওকি, জাইকা বাংলাদেশ অফিসের চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ মি. ইহুও হায়েকাওয়া, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী আবদুস সবুর, ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক খান মোহাম্মদ কামরুল আহসানসহ সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এবং ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

/এসআই/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

কুমিল্লার ঘটনা সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কাজ: ওবায়দুল কাদের

কুমিল্লার ঘটনা সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কাজ: ওবায়দুল কাদের

‘২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে আমিনবাজার সেতুর কাজ শেষ হবে’

‘২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে আমিনবাজার সেতুর কাজ শেষ হবে’

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে টানেল নির্মাণের চিন্তা আছে: ওবায়দুল কাদের

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে টানেল নির্মাণের চিন্তা আছে: ওবায়দুল কাদের

ভারত কথা দিয়েছে সীমান্তে আর হত্যাকাণ্ড ঘটবে না: ওবায়দুল কাদের

ভারত কথা দিয়েছে সীমান্তে আর হত্যাকাণ্ড ঘটবে না: ওবায়দুল কাদের

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২০:৩৯

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষার্থীরা যেন নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে পারে, সে লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে অনার্স কোর্সের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে, যাতে শিক্ষার্থীরা নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে পারে। পাশাপাশি যেন তারা দেশে-বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ গ্রহণ করতে পারে।’

শিক্ষামন্ত্রী বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের গাজীপুর ক্যাম্পাসে উপাচার্যের কনফারেন্স রুমে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা এই কোভিডের সময়ে অনলাইনে এবং সামনা-সামনি ক্লাস শুরু করতে যাচ্ছেন। এখন অনেক চ্যালেঞ্জ। আপনাদের অনেক নতুন স্বপ্ন রয়েছে। সেই স্বপ্নগুলো বাস্তবে রূপ দিতে হবে। সে জন্যে সরকার এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আপনাদের পাশে রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সার্বিক দিকনির্দেশনা এবং পরামর্শে আপনাদের জন্য অনার্স ডিগ্রির পাশাপাশি নানা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে, যাতে আপনারা নানারকম দক্ষতা নিয়ে গড়ে উঠতে পারেন। দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত হতে পারেন। নিজেরা উদ্যোক্তা হতে পারেন, কিংবা কর্মসংস্থানের জন্য দেশে-বিদেশে নানা সুযোগ তৈরি হয়, সেটি গ্রহণ করতে পারেন।’

সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান শিক্ষার্থীদের রাষ্ট্র সৃষ্টির বিপ্লব সম্পর্কে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘তোমাদের মধ্যে ইতিহাস চেতনা থাকতে হবে। একইসঙ্গে আশা করবো, এই প্রজন্ম সমসাময়িক বিশ্ব সম্পর্কে সব রকমের ধারণা নিয়ে একটি সঠিক ধারায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আত্মনিয়োগ করবে।’

তিনি শিক্ষার্থীদের দেশপ্রেমিক নাগরিক হয়ে গড়ে ওঠার আহ্বান জানিয়ে আরও বলেন, ‘আমাদের বিজ্ঞান ভাবনা, অসাম্প্রদায়িক সমাজ, ধর্মনিরপেক্ষ সমাজ, গণতান্ত্রিক সমাজ— এই যে অভীষ্ট লক্ষ্য, সেই লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য নবীন প্রজন্ম নিজেদের তৈরি করবে। খবর: বাসস

/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

সফরকালে জাপানি গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রশংসা

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

পরিবারে ১৫-১৮ বয়সী অবিবাহিত মেয়ে থাকলে মিলবে ভিজিডি

পরিবারে ১৫-১৮ বয়সী অবিবাহিত মেয়ে থাকলে মিলবে ভিজিডি

কুমিল্লা নামে বিভাগ হবে না: প্রধানমন্ত্রী  

কুমিল্লা নামে বিভাগ হবে না: প্রধানমন্ত্রী  

কুমিল্লা থেকে রংপুর পর্যন্ত যা ঘটেছে সেগুলো বিচ্ছিন্ন ঘটনা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লা থেকে রংপুর পর্যন্ত যা ঘটেছে সেগুলো বিচ্ছিন্ন ঘটনা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রেলের বেদখল সব জায়গা দখলমুক্ত করা হবে: রেলমন্ত্রী

রেলের বেদখল সব জায়গা দখলমুক্ত করা হবে: রেলমন্ত্রী

সর্বশেষ

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য মক্কার দুই মসজিদে ব্রেইল কোরআন শরিফ

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য মক্কার দুই মসজিদে ব্রেইল কোরআন শরিফ

৮০ কোটি টাকায় যেভাবে বদলে যাবে ধূপখোলা মাঠ

৮০ কোটি টাকায় যেভাবে বদলে যাবে ধূপখোলা মাঠ

রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

রেসিপি : কোরিয়ান বুলগগি

রেসিপি : কোরিয়ান বুলগগি

© 2021 Bangla Tribune