X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

কোটা সংস্কার আন্দোলন: পুলিশের লাঠিচার্জ-টিয়ারশেলে আহত ৩১

আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০১৮, ০০:৪৭

শাহবাগে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীদের ওপর পুলিশের টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জে শিক্ষার্থীসহ ৩১ জন আহত হয়েছেন। তারা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। রবিবার (৮ এপ্রিল) সন্ধ্যা ও রাতে এসব ঘটনা ঘটে।

লাঠিচার্জে আহত একজনকে আটক করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ আহতরা হলেন- ব্যারিস্টার আওলাদ হোসেন (৫০), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আকরাম হোসেন (২৬), আবু বকর সিদ্দিক (২২), মো. রফিক (২৪), রাফি আলামিন (২২), রাজ (২৩), সোহেল (২৫), ওমর ফারুক (২৫), খোরশেদ (২৬), মাহিম (২২), আসলামসহ (২৩) অনেকে।

এদিকে ঢাবি প্রতিনিধি জানিয়েছে, আহতদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবু বকরের অবস্থা গুরুতর। তার চোখে রাবার বুলেট লেগেছে। তিনি এখন ঢামেকে চিকিৎসাধীন। এদিকে শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মোস্তাফিজুর রহমানের কোমড়ে রাবার বুলেট লেগেছে। তাকেও ঢামেকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে পুলিশের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের এখনও ধাওয়া- পাল্টা ধাওয়া চলছে। প্রায় ৩ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী চারুকলা, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে অবস্থান করছে। পুলিশ তাদের টিয়ারশেল ও লাঠিচার্জ করছে। এদিকে মেয়েরা হলের ভেতর থেকে বের হতে না পারায় ভেতর থেকেই কোটা সংস্কারের দাবিতে স্লোগান দিচ্ছেন।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসব ডা. মো. আলাউদ্দিন  ও পুলিশ ফাঁড়ির উপ পরিদর্শক (এসআই) মো. বাচ্চু মিয়া এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তারা বলেন, ‘হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে অনেকে চলে গেছেন। আবার কেউ কেউ চিকিৎসা নিচ্ছেন।’

এর আগে সন্ধ্যা থেকেই বিপুল সংখ্যক পুলিশ শাহবাগের দিকে জড়ো হতে থাকে। পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী এদিন দুপুর ২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীদের পদযাত্রা শুরু হয়। পরে রাজু ভাস্কর্য হয়ে নীলক্ষেত ও কাঁটাবন ঘুরে পদযাত্রাটি শাহবাগ মোড়ে আসে। এরপর বিকাল ৩টা থেকে শাহবাগেই অবস্থান নেয় তারা। এতে শাহবাগের চারদিকের সড়কগুলোতে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে পুরো শহরজুড়ে যানজট দেখা দেয়।

/এআইবি/এনএল/এআর/এমও/

সম্পর্কিত

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:০০

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, যেসব ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিংয়ের ব্যবস্থা থাকবে, সেসব ভবন মালিকদেরকে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত দেওয়া হবে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ের বলরুমে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত ‘পানি সরবরাহ, স্যানিটেশন ও হাইজিন (ওয়াশ) সেক্টরে ৫০ বছরের অর্জন ও ভবিষ্যৎ করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, নিরাপদ পানি, স্যানিটেশন ও হাইজিন (ওয়াশ) সেক্টরে বাংলাদেশ গত ৫০ বছরে যথেষ্ট অগ্রগতি ও সাফল্য অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন কর্তৃক পরিবেশবান্ধব ও স্বাস্থ্যসম্মত ৬৩টি পাবলিক টয়লেট নির্মাণের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে ৪৮টির নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, নগরীর অধিকাংশ বাসাবাড়ি এমনকি অভিজাত এলাকার ভবনগুলোতেও কার্যকর সেপটিক ট্যাংক ও সোক ওয়েল না থাকায় অপরিশোধিত পয়োবর্জ্য সরাসরি ড্রেন কিংবা খালে পতিত হওয়ায় জলাশয়ের পানিসহ সার্বিক পরিবেশ দূষিত হচ্ছে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন এবং দূষণ নিয়ন্ত্রণে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কাজ করে যাচ্ছে। নগরীর জলাবদ্ধতা সমস্যার সমাধানকল্পে সুপরিকল্পিত একাধিক জলাধার প্রয়োজন। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, কল্যাণপুর জলাধারের জন্য নির্ধারিত ১৭৩ একর জমির মধ্যে মাত্র ৩ একর জমিতে জলাধার রয়েছে আর বাকি ১৭০ একর জমিই অবৈধ দখলদারদের দখলে রয়েছে। তাই সবাই মিলে অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে প্রধান অতিথি হিসেবে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে ডিএসসিসির মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বক্তৃতা করেন।

/এসএস/এমআর/

সম্পর্কিত

হানিফ ফ্লাইওভারে বাস উল্টে দুই কাবাডি খেলোয়াড় আহত

হানিফ ফ্লাইওভারে বাস উল্টে দুই কাবাডি খেলোয়াড় আহত

‘দোলায় চড়ে’ দুর্গার বিদায় (ফটোস্টোরি)

‘দোলায় চড়ে’ দুর্গার বিদায় (ফটোস্টোরি)

যাত্রাবাড়ীতে ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

শান্তি-সম্প্রীতির জন্য প্রার্থনা মসজিদে

শান্তি-সম্প্রীতির জন্য প্রার্থনা মসজিদে

বিশ্ব খাদ্য দিবস 

ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৩

আজ শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিশ্ব খাদ্য দিবস। সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশেও দিবসটি পালিত হচ্ছে। দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করলেও চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে নিরাপদ খাদ্য নিয়ে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বেঁচে থাকার জন্য খাদ্য জরুরি হলেও তার চেয়ে বেশি জরুরি নিরাপদ খাদ্য। টেকসই জীবন ও সুস্বাস্থ্যের জন্য নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবারের বিকল্প নেই। অনিরাপদ খাদ্য শুধু স্বাস্থ্যের ঝুঁকিরই কারণ না, বরং দেহে রোগের বাসা বাঁধারও অন্যতম কারণ। ডায়রিয়া থেকে শুরু করে ক্যান্সার— এমন দুই শতাধিক রোগের জন্য দায়ী অনিরাপদ খাদ্য।

করোনার প্রকোপ কমে আসায় সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। আর রাজধানীর ফুটপাতগুলোতে বিক্রি বেড়েছে মুখরোচক খোলা খাবারেরও। শনিবার রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে তোলা ছবি।

 

/ইউএস/

সম্পর্কিত

নকল কসমেটিক-ভেজাল খাদ্য উৎপাদন: ১৫ লাখ টাকা জরিমানা  

নকল কসমেটিক-ভেজাল খাদ্য উৎপাদন: ১৫ লাখ টাকা জরিমানা  

গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু (ফটো স্টোরি)

গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু (ফটো স্টোরি)

ধুলো জমা শ্রেণিকক্ষে চলছে ঝাড়পোঁছ (ফটো স্টোরি)

ধুলো জমা শ্রেণিকক্ষে চলছে ঝাড়পোঁছ (ফটো স্টোরি)

ছবিতে চেয়ারম্যান বাড়ির আগুন

ছবিতে চেয়ারম্যান বাড়ির আগুন

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২১

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানা এলাকা থেকে গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) যাত্রাবাড়ী থানা। তারা হলো মো. বিল্লাল হোসেন ও মো. আলামিন হাওলাদার। গতকাল (১৫ অক্টোবর) রাতে যাত্রাবাড়ীর দক্ষিণ কুতুবখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। 

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাজহারুল ইসলাম জানান, দক্ষিণ কুতুবখালীর পচা ডোর নামের একটি দোকানের সামনে মাদক ব্যবসায়ীরা গাঁজা বিক্রি করছে এমন তথ্য পেয়ে অভিযান চালান তারা। তখন ধরা পড়ে বিল্লাল ও আলামিন। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৩ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

পুলিশের এই কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, গ্রেফতার হওয়া দুই মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা হয়েছে।

/আরটি/জেএইচ/

সম্পর্কিত

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

মিরপুরে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ একজন গ্রেফতার

মিরপুরে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ একজন গ্রেফতার

আরও নাশকতার আশঙ্কায় সতর্ক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

আরও নাশকতার আশঙ্কায় সতর্ক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৫:১৯

মিয়ানমারের মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তুলছেন বাংলাদেশের মাদক ব্যবসায়ীরা। আর এই সুযোগে প্রতিবেশি দেশটির মাদক ব্যবসায়ীরাও তাদের প্রলুব্ধ করতে গ্রহণ করছে বিভিন্ন ধরনের ‘বিজনেস স্ট্র্যাটেজি’। যার মধ্যে একটি হলো- বাংলাদেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনীর হাতে কখনও ভয়ংকর মাদক আইসের চালান ধরা পড়লে তার মূল্য পরিশোধ করতে হতো না ব্যবসায়ীদের।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) ভোরে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে সাড়ে ৫ কেজি আইসসহ দুজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। গ্রেফতারকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর এমন তথ্য পাওয়া গেছে। পরে দুপুরে রাজধানীর কাওরান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মুঈন সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

র‌্যাব বলছে, গ্রেফতারকৃত খোকন টেকনাফকেন্দ্রিক আইস ও ইয়াবার ব্যবসার সাথে জড়িত একটি সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা। আর গ্রেফতারকৃত রফিক তার সহযোগী। আজ ভোরে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থেকে গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে আইসের পাশাপাশি বিদেশি অস্ত্র এবং গুলিও উদ্ধার করা হয়েছে। দেশে এখন পর্যন্ত এটাই সর্বোচ্চ পরিমাণের আইসের চালান, যার আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় সাড়ে ১২ কোটি টাকা।

সংবাদ সম্মেলনে খন্দকার আল মুঈন বলেন, গ্রেফতারকৃতরা প্রায় পাঁচ বছর ধরে ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত। অধিক মুনাফার আশায় তারা গেল কয়েক মাস ধরে আইসের ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে। র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘এই মাদক ব্যবসায়ীদের পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমারের সাথে এতটাই সখ্যতা গড়ে উঠেছে যে, যদি কোনও চালান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়ে তাহলে সে চালানের টাকাও তাদের পরিশোধ করতে হয় না। বিদেশি যেসব মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে, তারা আমাদের দেশের চোরাকারবারিদের প্রলুব্ধ করার জন্য এরকম একটি বিজনেস স্ট্র্যাটেজি নিয়েছে।’

বেশিরভাগই আসে নদীপথে

মিয়ানমার থেকে আসা এসব ইয়াবা এবং আইসের বেশিরভাগই দেশে আসতো নদীপথ ব্যবহার করে। সাধারণত সেন্টমার্টিনের দক্ষিণ-পূর্ব এলাকার সমুদ্রে নৌপথে মালামাল স্থানান্তর করে চোরাকারবারিরা। এসময় তারা নিজস্ব সিগন্যাল ব্যবহার করে থাকে।

র‌্যাব বলছে, গ্রেফতারকৃত খোকন এর আগেও বেশ কয়েকটি আইসের চালান নিয়ে এসেছে। তার নামে একাধিক মামলাও রয়েছে। ঢাকা ও চট্টগ্রাম কেন্দ্রিক একটি অভিজাত শ্রেণীর মধ্যে আইসের ডিমান্ড রয়েছে। প্রতিবেশি দেশ থেকে আনার পর মাদকের চালান প্রথমে টেকনাফে রাখা হয়। পরে বিভিন্ন সময় নৌপথ ব্যবহার করে টেকনাফ থেকে এসব মাদক চট্টগ্রামে নিয়ে আসা হয়। চট্টগ্রাম থেকে বিভিন্ন যানবাহন ব্যবহার করে চালানটি রাজধানীর যাত্রাবাড়িতে আসে। সেখান থেকে ছড়িয়ে দেওয়া রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে

সিন্ডিকেটের ২০-২৫ জনের নাম পেয়েছে র‌্যাব

গ্রেফতার দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদে এই মাদক সিন্ডিকেটের ২০ থেকে ২৫ জনের নাম পাওয়া গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আইস ব্যবসার সাথে জড়িত টেকনাফে এবং ঢাকায় অনেকের নাম পেয়েছি। সে বিষয়ে আমরা অভিযান পরিচালনা করবো। গুলশান, বনানী, মিরপুর ও মোহাম্মদপুর কেন্দ্রিক যে সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে, এসব জায়গায় আইস পৌঁছে দেওয়ার জন্যই চালানটি নিয়ে আসা হয়েছিল। চালান পৌঁছে দেওয়ার পরই টাকা সংগ্রহ করতো তারা। কিন্তু এর আগেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়েছে তারা।

চা ও আচারের প্যাকেটে আসতো আইস

মাদকের এই টাকা মিয়ানমারের মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে হুন্ডির মাধ্যমে পরিশোধ করা হতো উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘গ্রেফতারকৃত খোকন নিয়মিত মিয়ানমারে যেতো। সেখান থেকে চা ও আচারের প্যাকেটে করে অভিনব কৌশল ব্যবহার করে আনা হতো আইস। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দেওয়ার জন্য এসব অভিনব কৌশল ব্যবহার করতো চোরাকারবারীরা।’

র‌্যাব বলছে, গ্রেফতারকৃত রফিক ছদ্মবেশে অটোরিকশা চালক হিসেবে কাজ করতো। পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে আসা মাদক প্রথমে তার বাসায় রাখতো। পরবর্তীতে সুযোগমতো আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে অন্য জায়গায় স্থানান্তর করে তারা।

/আরটি/ইউএস/

সম্পর্কিত

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

নিত্যপণ্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণের দাবিতে মানববন্ধন

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৩৪

নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণের দাবিতে মানববন্ধন করেছে ‘সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন’ ও ‘ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়ন বাংলাদেশ (ইনসাব)’। শনিবার (১৬ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে যৌথ উদ্যোগে এই মানববন্ধনের আয়োজন করে সংগঠন দুটি।

বৈশ্বিক মহামারিতে ব্যবসা-বাণিজ্যে মন্দা ও কর্মহীনতার পাশাপাশি সর্বস্তরে মানুষের আয় কমেছে উল্লেখ করে আয়োজকরা বলেন, দেশে ইতোমধ্যে রেমিটেন্সের গতি কমে এসেছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির মূল্য ঊর্ধ্বমুখী। আর অব্যাহত মূল্যবৃদ্ধিতে জনজীবনে অন্ধকার নেমে এসেছে। 

মানববন্ধনে অবিলম্বে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের দাম কমানোর পাশাপাশি বেকার শ্রমজীবী মানুষদের জন্য বিকল্প কর্মসংস্থান ও রেশনিং ব্যবস্থা চালু এবং গ্যাসের দাম কমানোর দাবি জানানো হয়।

/জেডএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

সারাদেশের শিক্ষক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন

সারাদেশের শিক্ষক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন

‘কৃষক ঠকছে মাঠে, ভোক্তা ঠকছে হাটে’

‘কৃষক ঠকছে মাঠে, ভোক্তা ঠকছে হাটে’

হয়রানির অভিযোগ রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোর, বিদেশে কর্মী পাঠানো বন্ধের হুঁশিয়ারি

হয়রানির অভিযোগ রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোর, বিদেশে কর্মী পাঠানো বন্ধের হুঁশিয়ারি

শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা বন্ধ করে প্যানেলভিত্তিক নিয়োগের দাবি

শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা বন্ধ করে প্যানেলভিত্তিক নিয়োগের দাবি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

বিশ্ব খাদ্য দিবস ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

নিত্যপণ্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণের দাবিতে মানববন্ধন

নিত্যপণ্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণের দাবিতে মানববন্ধন

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

পূজামণ্ডপে হামলাকারীদের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ

পূজামণ্ডপে হামলাকারীদের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ

শেখ রাসেল দাবা টুর্নামেন্ট আয়োজন করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

শেখ রাসেল দাবা টুর্নামেন্ট আয়োজন করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

সর্বশেষ

আসিয়ানের সম্মেলন থেকে বাদ মিয়ানমারের জান্তা প্রধান

আসিয়ানের সম্মেলন থেকে বাদ মিয়ানমারের জান্তা প্রধান

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

ষড়যন্ত্রকারীরা মন্দিরে কোরআন শরীফ রেখেছিল: খন্দকার মোশারফ

ষড়যন্ত্রকারীরা মন্দিরে কোরআন শরীফ রেখেছিল: খন্দকার মোশারফ

সরকারের সঙ্গে আলেমদের কোনও বিরোধ নেই: মাওলানা হাসান

সরকারের সঙ্গে আলেমদের কোনও বিরোধ নেই: মাওলানা হাসান

ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

বিশ্ব খাদ্য দিবস ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

© 2021 Bangla Tribune