X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

তিন সিটির ভোটযুদ্ধেও থাকবে ইসলামী আন্দোলন

আপডেট : ০৩ জুন ২০১৮, ১৮:৪৭

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সিলেট, রাজশাহী ও বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নেবে ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দল ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। ইতোমধ্যে তিন সিটির প্রার্থীও চূড়ান্ত করেছে দলটি। ভোটের রাজনীতিতে এগিয়ে থাকতে নির্বাচনমুখী কার্যক্রমও চালাচ্ছে চরমোনই পীরের দলটি। যদিও অন্যান্য ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দলগুলো এখনও এই তিন সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি।
ইসলামী আন্দোলন সূত্রে জানা যায়— ২ জুন দলটির নির্বাহী পরিষদের সভায় রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহণের নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওযা হয়। তবে এখনও প্রার্থী ঘোষণা করা হয়নি।
সূত্র জানায়, সিলেট সিটি করপোরেশনে ইসলামী আন্দোলনের স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ডা. মোয়াজ্জেম হোসেনকে প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত করা হয়েছে। বরিশালে আব্দুল্লাহ আল নাসের ও রাজশাহীতে মো. শফিকুল ইসলাম রয়েছেন প্রার্থী তালিকায় শীর্ষে।
সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলনের ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বিজয়ী হতে পারবো সেই আশায় প্রার্থী হচ্ছি। মানুষ পরিবর্তন চায়, কিন্তু দুটি দলের বাইরে কোনও দল নেই। যারা আছে তারাও ওই দুই দলের সঙ্গে জোটবদ্ধ। ইসলামী আন্দোলন সেই বিকল্প হিসেবে মানুষের আগ্রহের জায়গায় রয়েছে। গত নির্বাচনগুলোতেও তা উঠে এসেছে।’

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থীরা বিজয়ী হবেন বলে মনে করেন দলটির মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মানুষ এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি রাজনীতি সচেতন। আগে মানুষ দেখেছে, যারা ক্ষমতায় এসেছেন তারা যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তা রক্ষা করেননি। ফলে মানুষ একটি প্রতিশ্রুতিশীল দলকে ভোট দিতে চান। সেই হিসেবে মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে ইসলামী আন্দোলন।’

১৯৮৭ সালের ১৩ মার্চ প্রতিষ্ঠা পাওয়ার পর ইসলামী আন্দোলন কোনও জোট ছাড়াই ‘একলা চলো নীতি’ অবস্থানে রয়েছে। গত দুই-তিন বছরে ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ, নারায়ণগঞ্জ, রংপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও অংশ নিয়েছেন তারা। বিজয়ী হতে না পারলেও ভোট বেড়েছে দলটির।

ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব বলেন, ‘গত নির্বাচনগুলোতেও ইসলামী আন্দোলনের ভোট বেড়েছে। নারায়ণগঞ্জ, রংপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটপ্রাপ্তির হারে তিন নম্বর অবস্থানে ছিল আমাদের দল। মানুষের কাছাকাছি যেতে ও নৈতিক অবস্থানে থেকে মানুষের আস্থা ধরে রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি আমরা।’

/সিএ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:০০

উগ্র সম্প্রদায়ের কেউ দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা-হাঙ্গামা বাধানোর চক্রান্ত করছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলনের প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী। তিনি বলেন,  কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে মূর্তির পায়ের নিচে পবিত্র কোরআন রেখে যারা ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করতে চায় তাদের খুঁজে বের করে কঠোর শাস্তির আওতায় আনা সরকারের দায়িত্ব।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকালে কোরআন অবমাননাকারীদের বিচারের দাবিতে  বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নিত্যপয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের  ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদ জানিয়ে সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী বলেন,  কোনও কারণ ছাড়াই বার বার নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির কারণে জনজীবন চরম দুর্বিষহ হয়ে উঠছে। সরকার সিন্ডিকেটের কাছে মাথা নত করেছে। তিনি অবিলম্বে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণ করার দাবি জানান।

সমাবেশ শেষে একটি  মিছিল বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইট, পল্টন মোড় ও বিজয়নগর মোড়ে পৌঁছলে পুলিশ মিছিলের গতি রোধ করে। সেখানে মিছিল শেষ হয়।

সংগঠনের ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন  মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা নেছার উদ্দিন,  শরীফুল ইসলাম রিয়াদ, মাওলানা আরিফুল ইসলাম, ডা. শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

/সিএ/এমআর/

সম্পর্কিত

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৭

বিএনপির নেতাদের মধ্যে বিভেদ ও বিভাজন এবং আওয়ামী লীগ রাজনীতিতে নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। তার দাবি, রাজনীতিতে একমাত্র সোচ্চার জাতীয় পার্টি।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দলের চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে গাজীপুর মহানগর ও অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এ কথা বলেন।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, নিবন্ধিত প্রায় ৪০টি দলের মধ্যে মাত্র আওয়ামী লীগ, বিএনপি এবং জাতীয় পার্টি সক্রিয় আছে। বাকি দলগুলো সাইনবোর্ড বা নেতা সর্বস্ব রাজনৈতিক দলে পরিণত হয়েছে। বিএনপি নেত্রী মুচলেকা দিয়ে জেল থেকে বের হয়ে রাজনীতির মাঠে নেই। আবার তাদের আরেক নেতা দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে বিদেশে। বাকী নেতাদের মধ্যে বিভেদ ও বিভাজনের অভাব নেই। আবার আওয়ামী লীগ সরকার পরিচালনা ও উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে ব্যস্ত। রাজনীতির মাঠেও আওয়ামী লীগ নেই বললেই চলে। কিন্তু গণমানুষের দাবি আদায়ে রাজনীতিতে সোচ্চার আছে শুধু জাতীয় পার্টি।’

কাদের দাবি করেন, ৩১ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে থেকেও জাতীয় পার্টি রাজনীতিতে টিকে আছে। নানা অপবাদ ও ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে জাতীয় পার্টি এগিয়ে চলছে। দেশের মানুষ আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কর্মকাণ্ডে রাজনীতি নিয়ে হতাশাগ্রস্ত। দেশের মানুষ আগামী দিনে জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্র পরিচালনায় দেখতে চায়।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী গণতান্ত্রিক চর্চা সম্ভব নয়। বর্তমান সংবিধান গণতান্ত্রিক চর্চার সাথে সাংঘর্ষিক। গণতন্ত্র চর্চা করতে হলে সংবিধানের অনেক ধারা সংশোধন করতে হবে। সংবিধানের ৭০ ধারার কারণে সরকার দলীয় কোনও সংসদ সদস্য সরকারের কোনও সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করতে পারে না। এতে এক ব্যক্তির হাতে সকল ক্ষমতা কেন্দ্রীভূত হয়েছে। দেশের নির্বাহী বিভাগ, আইন সভা ও রাষ্ট্রপতির মাধ্যমে বিচার বিভাগের প্রায় ৯০ ভাগই সরকার প্রধানের নিয়ন্ত্রণে। তাই সরকার প্রধান যা চাইবেন, তার বাইরে কিছুই সম্ভব নয়।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, অবাধ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন নিশ্চিত করতে সংবিধান অনুযায়ী আইন করতে হবে। আইন না করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হচ্ছে, ফুটবল খেলায় একটি দলের পক্ষ থেকে রেফারি নিয়োগ দেওয়ার মতো। আইন করে, উপযুক্ত ব্যক্তিদের নিয়ে নির্বাচন কমিশন গঠন করে সংবিধান অনুযায়ী সকল ক্ষমতা নির্বাচন কমিশনকে দিতে হবে।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন- জাতীয় পার্টি মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপা, অ্যাডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভুঁইয়া, অনুষ্ঠানে সভপতিত্ব করেন চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা এমএম নিয়াজ উদ্দিন।

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

‘কূটিল রাজনীতির কারণে সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে’

‘কূটিল রাজনীতির কারণে সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে’

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫২

আগামী নভেম্বর থেকে দল পুনর্গঠনের কাজে সারাদেশের জেলা সফর শুরু করবেন জাতীয় পার্টি মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু। শনিবার (১৬ অক্টোবর) দলের চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে গাজীপুর মহানগর ও অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় চুন্নু এ কথা জানান।

সভায় মুজিবুল হক বলেন, দেশের কোটি কোটি বেকারদের জন্য কারও মাথা ব্যথা নেই। বিএনপি হাওয়া ভবন আর খাওয়া ভবন করে রাজনীতি থেকে ছিটকে পড়েছে। আর আওয়ামী লীগের উন্নয়নের ধাক্কায় মানুষের জীবন ওষ্ঠাগত।

চুন্নু বলেন, দেশ ও দেশের মানুষের কথা মাথায় রেখেই জাতীয় পার্টির রাজনীতি। জাতীয় পার্টি আগামী দিনে গণমানুষের কল্যাণে কর্মসূচি ঘোষণা করে মাঠে থাকবে। দেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণে জাতীয় পার্টি কাজ করবে। গণমানুষের আস্থা নিয়েই জাতীয় পার্টি আগামী দিনে সরকার পরিচালনা করবে।

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪৯

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সম্পর্কে মন্তব্যের কারণে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ড. মুরাদ হাসানকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান জিএম কাদের। তিনি বলেন, ‘সরকারের একজন প্রতিমন্ত্রী হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে কটূক্তি করে এবং রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম পরিবর্তন করার ঘোষণা দিয়ে গর্হিত কাজ করেছেন। এজন্য তাকে ক্ষমা চাইতে হবে।’

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দলের চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে গাজীপুর মহানগর ও অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এ কথা বলেন।

জিএম কাদের আরও বলেন, ‘২০১১ সালে পঞ্চদশ সংশোধনী করেছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার। তাতেও রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম সমুন্নত আছে। তাই কটূক্তি করে  প্রতিমন্ত্রী আওয়ামী লীগের দলীয় শৃঙ্খলাও ভঙ্গ করেছেন। তাকে অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে, তা না হলে দেশের মানুষ একদিন এর বিচার করবে।’

তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ঘোষণার সঙ্গে সকল ধর্মের অধিকার সাংবিধানিকভাবেই নিশ্চিত করেছিলেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম পরিবর্তন করার সাহস আর ক্ষমতা কারও নেই।’

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩০

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম রব বলেছেন, ‘সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে রাষ্ট্রের মৌলিক কাঠামো বিনষ্ট করে, গণতন্ত্র হত্যা করে,  ভোটাধিকারকে প্রহসনে পরিণত করে  মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে। সরকারের অপশাসনের কারণে বাঙালি জাতীয়তাবাদ চরম ঝুঁকিতে পড়ছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট হচ্ছে, সমাজে হিংসা প্রতিহিংসা নিষ্ঠুরতা বিস্তার লাভ করছে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকালে  জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জেএসডি ঢাকা মহানগর সমন্বয় কমিটি আয়োজিত মানববন্ধন -সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলে রব এসব কথা বলেন।

রব বলেন, ‘ক্ষমতা দীর্ঘস্থায়ী করার জন্য বর্তমান সরকার বাঙালি জাতীয়তাবাদ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা দুটোকেই পরিত্যাগ করেছে। এখন রাষ্ট্রের একমাত্র পথ হচ্ছে গণজাগরণের মাধ্যমে জাতীয় নৈতিক শক্তির পুনরুজ্জীবন করা। এই পুনরুজ্জীবিত শক্তিই জাতীয় সরকার গঠন করবে। বিদ্যমান সংকট নিরসনের একমাত্র বিকল্প  জাতীয় সরকার গঠন করা।’

ঢাকা মহানগর কমিটির সমন্বয়ক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভে আরও বক্তব্য রাখেন- সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ছানোয়ার হোসন তালুকদার, সা কা ম আনিসুর রহমান খান কামাল, তানিয়া রব, অ্যাড. কে এম জাবির, অ্যাড. সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলা প্রমুখ।

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

‘কূটিল রাজনীতির কারণে সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে’

‘কূটিল রাজনীতির কারণে সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে’

ষড়যন্ত্রকারীরা মন্দিরে কোরআন শরীফ রেখেছিল: খন্দকার মোশারফ

ষড়যন্ত্রকারীরা মন্দিরে কোরআন শরীফ রেখেছিল: খন্দকার মোশারফ

সরকারের সঙ্গে আলেমদের কোনও বিরোধ নেই: মাওলানা হাসান

সরকারের সঙ্গে আলেমদের কোনও বিরোধ নেই: মাওলানা হাসান

গুজব রটিয়ে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে জাসদ

গুজব রটিয়ে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে জাসদ

মানুষের পেটে খাবারই না থাকলে দেশ থেকে লাভ কী: মান্না

মানুষের পেটে খাবারই না থাকলে দেশ থেকে লাভ কী: মান্না

সর্বশেষ

১৫ দিনে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

১৫ দিনে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

‘ঢাকামুখী অভিবাসন বন্ধ না হলে কোনও পরিকল্পনাই কার্যকর হবে না’ 

‘ঢাকামুখী অভিবাসন বন্ধ না হলে কোনও পরিকল্পনাই কার্যকর হবে না’ 

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

৬২ জেলায় শনাক্ত এক অঙ্কের ঘরে

৬২ জেলায় শনাক্ত এক অঙ্কের ঘরে

লোকালয় থেকে অসুস্থ ঈগল উদ্ধার

লোকালয় থেকে অসুস্থ ঈগল উদ্ধার

© 2021 Bangla Tribune