X
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

কোন আসনে কত ভোটার

আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৬:৪৭

 

 জাতীয় নির্বাচনের চূড়ান্ত প্রস্তুতির পথে রয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। নির্বাচনের করণীয়গুলোর মধ্যে সীমানা পুনর্নির্ধারণ, ভোটকেন্দ্র চূড়ান্তকরণ, প্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনাসহ বেশ কিছু কার্যক্রম ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। আসনভিত্তিক ভোটার তালিকা সিডি আকারে প্রকাশ করে তা মাঠ প্রশাসনে পাঠানোও হয়েছে। ইসি-সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, জাতীয় নির্বাচনের জন্য যে ভোটার তালিকা তৈরি করা হয়েছে, তাতে মোট ভোটার দাঁড়িয়েছে ১০ কোটি ৪১ লাখ ৯০ হাজার ৪৮০। এই সংখ্যা এ বছর ৩১ জানুয়ারি হালনাগাদকৃত ভোটারের থেকে ৪৮ হাজার ৯৯টি ভোট বেশি। এই অতিরিক্ত ভোটাররা গত আট মাসে নতুন ভোটার হিসেবে তালিকায় যুক্ত হয়েছেন। ইসির তথ্য অনুযায়ী মোট ভোটারের মধ্যে পুরুষ ৫ কোটি ২৫ লাখ ৪৭ হাজার ৩২৯ জন এবং ৫ কোটি ১৬ লাখ ৪৩ হাজার ১৫১জন। কমিশন থেকে জানানো হয়েছে, তফসিল ঘোষণার আগ পর্যন্ত আইন অনুযায়ী ভোটার হিসেবে অন্তর্ভুক্তি ও স্থানান্তরের সুযোগ রয়েছে সেই হিসেবে এই সংখ্যায় কিছুটা পরিবর্তন আসতে পারে।

আসন ভিত্তিক ভোটার তালিকা পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, সব থেকে বেশি ভোটার রয়েছে ঢাকা-১৯ আসনে। এই আসনের ভোটার ৭ লাখ ৪৭ হাজার ৩০১ জন। অন্যদিকে সবচেয়ে কম ভোটারের আসন হচ্ছে ঝালকাঠী-১ (রাজাপুর-কাঠালিয়া)। এই আসনে ভোটার এক লাখ ৭৮ হাজার ৭৮৫ জন। সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন আসনের ভোটের ব্যবধানই হচ্ছে ৫ লাখ ৬৮ হাজার ৫১৬ ভোট। যা আসনভিত্তিক গড় ভোটারের থেকে অনেক বেশি। আসন ভিত্তিক গড় ভোটার সাড়ে তিন লাখের থেকে কিছুটা কম।

৩০০ সংসদীয় আসনের আসন ভিত্তিক ভোটার হচ্ছে—পঞ্চগড়-১: ৩৭৯২০২, পঞ্চগড়-২: ৩৩৪৮৬৫; ঠাকুরগাঁও-১:  ৪২২১২৪, ঠাকুরগাঁও-২: ২৭৩৪১৪, ঠাকুরগাঁও-৩: ৩০০১৭৪, দিনাজপুর-১: ৩৪৪০৪৩, দিনাজপুর-২: ৩০৬৫৬২, দিনাজপুর-৩: ৩৪৯৩৭৯, দিনাজপুর-৪: ৩৪২৮৮৪, দিনাজপুর-৫: ৩৯৯২৪১, দিনাজপুর-৬: ৪৬৬১৭২, নীলফামারী-১: ৩৭২৫৪০, নীলফামারী-২: ৩১১৬৯৯, নীলফামারী-৩: ২৩৬১৬৮, নীলফামারী-৪: ৩৭১৯৭৩, লালমনিরহাট-১: ৩১৮০২৩, লালমনিরহাট-২: ৩৪৬২৮৪, লালমনিরহাট-৩: ২৫১৭৪৩, রংপুর-১: ২৮৭৯৮৪, রংপুর-২: ৩১২৮১৫, রংপুর-৩: ৪৪১৬৭৩, রংপুর-৪: ৪১২৯৫৯, রংপুর-৫: ৩৮৬৪১৪, রংপুর-৬: ২৯২৯৯৭, কুড়িগ্রাম-১: ৪৬১৪১৬,  কুড়িগ্রাম-২: ৪৯৩৩৩৬, কুড়িগ্রাম-৩: ৩০৩০১৩, কুড়িগ্রাম-৪: ২৮৯১১৭, গাইবান্ধা-১: ৩৩৯১৪৬, গাইবান্ধা-২: ৩৩৪৫৮৪, গাইবান্ধা-৩:  ৪১১৯৪২, গাইবান্ধা-৪: ৩৮৬২৪৬, গাইবান্ধা-৫: ৩১৩৭৪৬ জন ভোটার।

জয়পুরহাট-১: ৩৯৯২৪৬, জয়পুরহাট-২: ৩০৭৩০৩,  বগুড়া-১: ৩১৭৫৪৫, বগুড়া-২: ২৯৬৪১৩, বগুড়া-৩: ২৯৬৪৫৩, বগুড়া-৪: ৩১২০৮১, বগুড়া-৫: ৪৭৫৫৪৭, বগুড়া-৬: ৩৮৭২৫৪, বগুড়া-৭: ৪৬১৪৭১,  চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১: ৪১৬০৫৪, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২: ৩৭৬৯৭২, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩: ৩৮২৫৫৪, নওগাঁ-১: ৪০২৬০০, নওগাঁ-২: ৩২২০৩৭, নওগাঁ-৩: ৩৮২৪৮৮, নওগাঁ-৪: ২৮৯২২৬, নওগাঁ-৫: ৩১১৭০১, নওগাঁ-৬:  ২৯৪৪০৮, রাজশাহী-১: ৩৮৩২৫৪, রাজশাহী-২: ৩১৭৮৫৩,  রাজশাহী-৩: ৩৫৭৩৭২, রাজশাহী-৪: ২৭৭৯৯৯,  রাজশাহী-৫: ৩০১৫৯৪, রাজশাহী-৬: ৩০৪২৭৮, নাটোর-১: ৩১১৮৬৯, নাটোর-২: ৩৪৩৯৬৬, নাটোর-৩: ২৭৬১৪৬, নাটোর-৪: ৩৭১৭৫০, সিরাজগঞ্জ-১: ৩৪৫৬৭৬, সিরাজগঞ্জ-২:  ৩৫০৮৯৬, সিরাজগঞ্জ-৩:  ৩৬৭৫২৯, সিরাজগঞ্জ-৪: ৩৯১১১৪, সিরাজগঞ্জ-৫: ৩৩৯৮৯৩, সিরাজগঞ্জ-৬: ৪০১১৫৫, পাবনা-১: ৩৭৭৬৬৭, পাবনা-২:  ৩০০৫৬৩, পাবনা-৩:  ৪০২৭৭৪, পাবনা-৪: ৩৬২৪৩৮, পাবনা-৫: ৪৩৫৮৮৫, পুরুষ-২১৯৪৯৯, মহিলা-২১৬৩৮৬ ভোটার।

মেহেরপুর-১: ২৬৯৬০৫, মেহেরপুর-২: ২২৬২৮৭, কুষ্টিয়া-১: ৩৩৬১১৬, কুষ্টিয়া-২: ৩৯৯৫৮৫, কুষ্টিয়া-৩: ৩৭২৮০৫, কুষ্টিয়া-৪: ৩৫১০৬৩, চুয়াডাঙ্গা-১: ৪৩৭৭৭১, চুয়াডাঙ্গা-২: ৪১৪৯৮৬, ঝিনাইদহ-১: ২৭৬২৫৪, ঝিনাইদহ-২: ৪২৩৫২৩, ঝিনাইদহ-৩: ৩৬০৮৭৯, ঝিনাইদহ-৪: ২৮১৬২২, যশোর-১: ২৬৩৫৬৪, যশোর-২: ৪০৫৭৩৩, যশোর-৩: ৫২২৫৬১, যশোর-৪: ৩৮৬৮৫৪ যশোর-৫: ৩১৯০৩৮, যশোর-৬: ১৯৩৫৩৪, মাগুরা-১: ৩৫০০৪৮,  মাগুরা-২: ৩৩৪৯২৪, নড়াইল-১: ২৩৮১৫৫, নড়াইল-২: ৩১৭৭৬৩, বাগেরহাট-১: ৩০২২৩৯, বাগেরহাট-২: ২৮৪০৬৮, বাগেরহাট-৩: ২২৬২১৭, বাগেরহাট-৪: ৩০০৫২২, খুলনা-১: ২৫৯৩৫৬, খুলনা-২: ২৯৪০৬২, খুলনা-৩: ২২৬৩০২, খুলনা-৪: ৩১০৪৪৯, খুলনা-৫: ৩৪৪৪৮০, খুলনা-৬: ৩৬৬১৯২, সাতক্ষীরা-১: ৪২৩০৩২, সাতক্ষীরা-২: ৩৫৬২৬৮, সাতক্ষীরা-৩: ৩৮৭২৯৩,  সাতক্ষীরা-৪: ৩৯৩৭২৬ জন ভোটার।

বরগুনা-১: ৪১৪৩৮২,  বরগুনা-২: ২৬৮৩১৬, পটুয়াখালী-১: ৩৯৩০৬৬, পটুয়াখালী-২: ২৫১৮৫৮, পটুয়াখালী-৩: ২৯৮৪৯৭, পটুয়াখালী-৪: ২৪৯০৪৬, ভোলা-১: ৩০৯৯৩৩, ভোলা-২: ২৯৭০২৩, ভোলা-৩: ২৯৩৫৪৭, ভোলা-৪: ৩৬৮৫৫৩, বরিশাল-১: ২৫৮০১৫, বরিশাল-২: ৩০২৫৭১, বরিশাল-৩: ২৫৩৬৪৯, বরিশাল-৪: ৩২৩৫৬৫, বরিশাল-৫: ৩৯৭২৩০, বরিশাল-৬: ২৪৫৫২৫, ঝালকাঠী-১: ১৭৮৭৮৫, ঝালকাঠী-২: ২৯০৩৩০, পিরোজপুর-১: ৪১৮৯৭৪, পিরোজপুর-২: ২২০৫০৮, পিরোজপুর-১৮৯৭৬৩ জন ভোটার।

টাঙ্গাইল-১: ৩৬৫৭৪৭, টাঙ্গাইল-২: ৩৪৮৫২৪, টাঙ্গাইল-৩: ৩১৭৯৯১, টাঙ্গাইল-৪: ৩১২৪১৫, টাঙ্গাইল-৫: ৩৮০২৭৯, টাঙ্গাইল-৬: ৩৯০৫৯৬, টাঙ্গাইল-৭: ৩২২৬৭৪, টাঙ্গাইল-৮: ৩৪৬৬৪৫, জামালপুর-১: ৩৪৬১৭০,  জামালপুর-২: ২২১১৭৮,  জামালপুর-৩: ৪২৪৯৫০,  জামালপুর-৪: ২৫২৬৫২,  জামালপুর-৫: ৪৬৯৮১৮,  শেরপুর-১: ৩৬১০৫৩, শেরপুর-২: ৩৪৯১৩৬, শেরপুর-৩: ৩২৫৩৯৪, ময়মনসিংহ-১: ৩৭৭২৬৮, ময়মনসিংহ-২: ৪৫০৩৬০, ময়মনসিংহ-৩: ২৩৪৫৮৮, ময়মনসিংহ-৪: ৫৫৬৯৯৬, ময়মনসিংহ-৫: ৩০৬৪৭৯, ময়মনসিংহ-৬: ৩২৫৭২২, ময়মনসিংহ-৭: ৩১৫৪৭৮, ময়মনসিংহ-৮: ২৭১১৮৫, ময়মনসিংহ-৯: ২৯৪১০৮, ময়মনসিংহ-১০: ৩২৪২৯৬, ময়মনসিংহ-১১: ২৯৪৬৪১, নেত্রকোনা-১: ৩৫৩০৮৩, নেত্রকোনা-২: ৩৯৬২০৭, নেত্রকোনা-৩: ৩৩৪৪৪৯, নেত্রকোনা-৪: ২৯৮২০৮, নেত্রকোনা-৫: ২২৪৫৩৫, কিশোরগঞ্জ-১: ৪৩০০৮৪, কিশোরগঞ্জ-২: ৪১৭২৬৫, কিশোরগঞ্জ-৩: ৩৪৭১৫৮, কিশোরগঞ্জ-৪: ৩২০২৩৬, কিশোরগঞ্জ-৫: ২৭৮৬১৩, কিশোরগঞ্জ-৬: ৩৩২৬১৪, মানিকগঞ্জ-১: ৩৮৪৫৮৭, মানিকগঞ্জ-২: ৪০৬১৯৫, মানিকগঞ্জ-৩: ৩১৯৪১৫, মুন্সীগঞ্জ-১: ৪৪০৪৫০, মুন্সীগঞ্জ-২: ৩০৫৯৯৭, মুন্সীগঞ্জ-৩: ৪১৬৫৪১, ঢাকা-১: ৪৪০৪০৭, ঢাকা-২: ৪৯৪৩১৩, ঢাকা-৩: ৩১১৬৪৭, ঢাকা-৪: ২৪৫৯০৮, ঢাকা-৫: ৪৫০৭২৫, ঢাকা-৬: ২৬৯২৭৬, ঢাকা-৭: ৩২৮২৬৯, ঢাকা-৮: ২৬৪৮৯৩, ঢাকা-৯: ৪২৫৫৭১, ঢাকা-১০: ৩১৩৭৫৮, ঢাকা-১১: ৪১৫৫৫৫, ঢাকা-১২: ৩৩৯৯৩৮, ঢাকা-১৩: ৩৭২৭৬৯, ঢাকা-১৪: ৪০৬৫৩৪, ঢাকা-১৫: ৩৪০৫২৮, ঢাকা-১৬: ৩৭৪৩৪০, ঢাকা-১৭: ৩১৩৯৯৮, ঢাকা-১৮: ৫৫৫৭১৩, ঢাকা-১৯: ৭৪৭৩০১, ঢাকা-২০: ৩২০১৪৫, গাজীপুর-১: ৬৬৪৫৫৪, গাজীপুর-২: ৭৪৫৮৪১, গাজীপুর-৩: ৪৩৬৬৪৩, গাজীপুর-৪: ২৬৭১৮৭, গাজীপুর-৫: ৩০২৪৭৮, নরসিংদী-১: ৩৮০০৩০, নরসিংদী-২: ২৩৪৩১১, নরসিংদী-৩: ২২৪৫৩২, নরসিংদী-৪: ৩৪১৬৫৭, নরসিংদী-৫: ৩৭১৪৪০, নারায়ণগঞ্জ-১: ৩৪৯৭৯০, নারায়ণগঞ্জ-২: ২৮৩৮৬৭, নারায়ণগঞ্জ-৩: ৩০৩৮৩৭, নারায়ণগঞ্জ-৪: ৬৫১১২৩, নারায়ণগঞ্জ-৫: ৪৪৫৬১৬,  রাজবাড়ী-১: ৩৪৬৫৫১, রাজবাড়ী-২: ৪৬২১৩৮, ফরিদপুর-১: ৪২২৬৮৫, ফরিদপুর-২: ২৮৭১৩৫, ফরিদপুর-৩: ৩৪১১৫৫, ফরিদপুর-৪: ৩৭০৬৬৬, গোপালগঞ্জ-১: ৩২১১৩০, গোপালগঞ্জ-২: ৩১১৮২০, গোপালগঞ্জ-৩: ২৪৬৫১৪, মাদারীপুর-১: ২৪৫২৪৪, মাদারীপুর-২: ৩৪৭১৬০, মাদারীপুর-৩: ২৯৭৯৫৫, শরীয়পুর-১: ২৯৫৬৫০, শরীয়পুর-২: ২৩৪৩৫৯, শরীয়পুর-৩: ৩৩১০৯৯ জন ভোটার।

সুনামগঞ্জ-১: ৩৯৮৯৯৪, সুনামগঞ্জ-২: ২৫০৬৮৩, সুনামগঞ্জ-৩: ২৯২৫১১, সুনামগঞ্জ-৪: ২৮৮৯৯৩, সুনামগঞ্জ-৫: ৪১৫৮৮৫, সিলেট-১: ৫৪৩৫৩০, সিলেট-২: ২৮৬৩৮০, সিলেট-৩: ৩২২২৯৩, সিলেট-৪: ৩৮২৪০১, সিলেট-৫: ৩২৪৩১২, সিলেট-৬: ৩৯৩৮৮৫, মৌলভীবাজার-১: ২৬৫৮০৯, মৌলভীবাজার-২: ২৪১১৬১, মৌলভীবাজার-৩: ৩৯১২৬৮, হবিগঞ্জ-১: ৩৬৪৯৭৭, হবিগঞ্জ-২: ৩০৬৯৭২, হবিগঞ্জ-৩: ৩২৬৫৯৩, হবিগঞ্জ-৪: ৪২৭৫২৫ জন ভোটার।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১: ২১৩৯৭৩, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২: ৩৩৫৭৪৬, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩: ৫১৫০১১, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪: ৩২৬৯৫৩, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫: ৩৪৩৭৬৫, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬: ২১৭৩৩৪, কুমিল্লা-১: ৩৪৭০০৫, কুমিল্লা-২: ২৮৯৯৪৯, কুমিল্লা-৩: ৩৮৩০৮৫, কুমিল্লা-৪: ৩১৬৭০৫, কুমিল্লা-৫: ৩৬৮৬৮০, কুমিল্লা-৬: ৪১৫৮০১, কুমিল্লা-৭: ২৫৪১৭৩, কুমিল্লা-৮: ২৯৬৬৪৮, কুমিল্লা-৯: ৩৬১৮৭৪, কুমিল্লা-১০: ৫১৬৩৯৪, কুমিল্লা-১১: ৩২৮১৬০, চাঁদপুর-১: ২৬৫৪৫০, চাঁদপুর-২: ৩৯৩০৭৪, চাঁদপুর-৩: ৪৩০২৫৭, চাঁদপুর-৪: ৩০৯৭৬৮, চাঁদপুর-৫: ৪০৮৪২৮, ফেনী-১: ৩০৪৮৯২, ফেনী-২: ৩৪৭৬৮২, ফেনী-৩: ৩৯৩২৫০, নোয়াখালী-১: ৩৪৭৬৫১, নোয়াখালী-২: ২৭৩৭৮৮, নোয়াখালী-৩: ৩৯২২৯৮, নোয়াখালী-৪: ৫৪৪৩২৯, নোয়াখালী-৫: ৩৩১৭৩৫, নোয়াখালী-৬: ২৫৮৮২০, লক্ষ্মীপুর-১: ১৯৬৪২৮, লক্ষ্মীপুর-২: ৩৭২২৭৩, লক্ষ্মীপুর-৩: ৩৩০৭৯৭, লক্ষ্মীপুর-৪: ৩১০৮২৮, চট্টগ্রাম-১: ৩১৪৯৮৫, চট্টগ্রাম-২: ৩৬৯১২১, চট্টগ্রাম-৩: ২০২৬২৫, চট্টগ্রাম-৪: ৩৯৩২৩৭, চট্টগ্রাম-৫: ৪৩০০২৭, চট্টগ্রাম-৬: ২৭০৪৯২, চট্টগ্রাম-৭: ২৬৯২৯১, চট্টগ্রাম-৮: ৪৮৩১৪৫, চট্টগ্রাম-৯: ৩৯০৩৬৩, চট্টগ্রাম-১০: ৪৬৯২৪৬, চট্টগ্রাম-১১: ৫০৭৩৫৫, চট্টগ্রাম-১২: ২৮৫৮৭২, চট্টগ্রাম-১৩: ৩১০৪৬০, চট্টগ্রাম-১৪: ২৪৯০০৫, চট্টগ্রাম-১৫: ৩৮৮১৩৭, চট্টগ্রাম-১৬: ৩০৩০৭২, কক্সবাজার-১: ৩৯০৬৭৫, কক্সবাজার-২: ২৯৬০৯৬, কক্সবাজার-৩: ৪১৪১৮৫, কক্সবাজার-৪: ২৬৫৮২৪, পার্বত্য খাগড়াছড়ি: ৪৪১৭৪৩, পার্বত্য রাঙ্গামাটি: ৪১৮২১৫ ও পার্বত্য বান্দরবান: ২৪৬৬৫৩ জন ভোটার।

/এমএনএইচ/

সম্পর্কিত

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

‘জনসাধারণকে লকডাউন মানানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী’

‘জনসাধারণকে লকডাউন মানানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী’

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২৩:৩০

দেশে সোমবার (২৬ জুলাই) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৪৭ জন। গত দেড় বছরের করোনা মহামারিকালে একদিনে এত মৃত্যু আর দেখেনি বাংলাদেশ। এর আগের দিন ২৫ জুলাই ২২৮ জনের মৃত্যুর কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদফতর। ঈদের ছুটির আগের দিন ২০ জুলাই ২০০ মানুষের মৃত্যু হয়। ঈদের দিন মারা যান ১৭৩ জন, ২২ জুলাই ১৮৭ জন, ২৩ জুলাই ১৬৬ জন এবং ২৪ জুলাই মারা যান ১৯৫ জন। এছাড়া জুলাই মাসের শুরু থেকে ২০ জুলাই পর্যন্ত প্রায় প্রতিদিনই মৃতের সংখ্যা দুইশ’র বেশি বা দুইশ’র কাছাকাছি ছিল। মৃত্যুর রেকর্ড ভাঙা-গড়ার মধ্য দিয়ে শেষ হতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের ঘোষিত ‘কঠিন’ জুলাই মাস।

মৃত্যুর এই ঊর্ধ্বগতির মধ্যে গত ২৪ জুলাই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ১৯ হাজার ছাড়ায়। আর শেষ এক হাজার মৃত্যু ছাড়াতে অর্থ্যাৎ ১৮ থেকে ১৯ হাজার মৃত্যু ছাড়াতে সময় নেয় মাত্র পাঁচ দিন। তার আগে গত ১৯ জুলাই মৃত্যু ১৮ হাজার ছাড়ায়।

দেশে গত বছরের ৮ মার্চে প্রথম তিন জন করোনা আক্রান্ত রোগীর কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদফতর। তার ঠিক ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু কথাও জানায় অধিদফতর। মার্চে অনিয়মিত হলেও চার এপ্রিল থেকে প্রতিদিন করোনায় আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হয়।

বিশ্বে যেসব দেশে করোনায় দৈনিক মৃত্যু সবচেয়ে বেশি হচ্ছে, সেই তালিকায় বর্তমানে দ্বাদশ অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।

করোনার ভয়াবহতার মধ্যেই ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিধিনিষেধ শিথিল করেছিল সরকার। ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত ফের কঠোর বিধিনিষেধও দেওয়া হয়েছে। তবে বিধিনিষেধ শিথিলে কোরবানির পশুর হাট, শপিং মল, মার্কেটে স্বাস্থ্যবিধি মোটেও মানা হয়নি। অনেকেই ঢাকা থেকে বাস, ট্রাক, লঞ্চে গাদাগাদি করে ঈদ করতে গেছেন গ্রামে। ঈদ শেষে ২৩ জুলাই ঢাকায় ফিরেছেনও তারা। এমনকি কঠোর বিধিনিষেধের তৃতীয় দিন রবিবারও (২৫ জুলাই) ঢাকায় ফিরেছেন অনেকে। ফেরি, বাসে ছিল না স্বাস্থ্যবিধির বালাই। গণমাধ্যমের খবর বলছে, শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে এখনও পদ্মা পার হচ্ছে মানুষ। আর এতে করে দেশে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির সঙ্গে মৃত্যুও নতুন রেকর্ড গড়ছে।

এদিকে, দেশের আট বিভাগের মধ্যে সাত বিভাগেই করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ব্যক্তির নমুনা থেকে জিনোম সিকোয়েন্সে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে। জার্মানির গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা ডেটা (জিআইএসএআইডি) অনুযায়ী, দেশের সাতটি বিভাগে এখন পর্যন্ত ১৫০টি নমুনায় ভারতীয় ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট বি-১৬১৭ পাওয়া গেছে। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সামাজিক সংক্রমণে জর্জরিত এখন পুরো দেশ। গত আট দিনে মারা গেছেন এক হাজার ২৮৯ জন এবং শনাক্ত হয়েছেন ৭৫ হাজার ৯৬১ জন। ইতোমধ্যে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) জানিয়েছে, বর্তমান সংক্রমণে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টই বেশি।

করোনায় শূন্য মৃত্যু লক্ষ্যমাত্রা রেখে কাজ করা দরকার মন্তব্য করে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনায় কেন এবং ঠিক কোন পরিস্থিতিতে মৃত্যু হচ্ছে তার পর্যালোচনা দরকার, তাতে অন্তত কিছু মৃত্যু কমানো সম্ভব হতো বা হবে। একইসঙ্গে মৃত্যু কমানোর জন্য যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের গঠন করা পাবলিক হেলথ অ্যাডভাইজারি কমিটি করোনায় মৃত্যু কমানোর উদ্যোগ নিতে হবে জানিয়ে বলেছিল, করোনায় শূন্য মৃত্যুর টার্গেট নিয়ে কাজ করতে হবে। আর এ জন্য গত ১৭ জুন তারা একটি লিখিত প্রতিবেদন দেন, যেখানে কাজটি কীভাবে করতে হবে তার কিছু দিকনির্দেশনা ছিল।

কিন্তু সেই অনুযায়ী কাজ হচ্ছে না, যদি হতো তাহলে মৃত্যু কমানো যেত বলে জানান পাবলিক হেলথ অ্যাডভাইজারি কমিটির সদস্য অধ্যাপক আবু জামিল ফয়সাল।

‘সংক্রমণ বেশি হলে মৃত্যুও বেশি হবে’ এটাই নিয়ম মন্তব্য করে কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরার্মশক কমিটির সদস্য অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘যে ভ্যারিয়েন্ট দেশে ছড়াবে বেশি, সেটা যদি অধিক মাত্রায় ক্ষতিকারক হয় তাহলে মৃত্যু বেশি হবে।’

‘সেইসঙ্গে রাজধানীর ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলো করোনায় মৃত্যু ঠেকাতে প্রস্তুত নয়। আমরা গত দেড় বছরেও হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা বাড়াতে পারিনি, ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলোতে আইসিইউ নেই। যখন জটিল রোগীদের আইসিইউ দরকার হয় তখন তাদের ঢাকায় পাঠাতে হয়। ঢাকার হাসপাতালগুলোতেও আইসিইউ পাওয়া যাচ্ছে না। তারপরও যারা পাচ্ছেন, কিন্তু সেটা শেষ মুহূর্তে। আর শেষ মুহূর্তে চিকিৎসা দিয়ে আসলে রোগীকে বাঁচানো যায় না’—বলেন অধ্যাপক নজরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘সেইসঙ্গে বর্তমানে যে লকডাউন দেওয়া হচ্ছে সেটা নন-মেডিক্যাল লকডাউন। এই নন-মেডিক্যাল লকডাউন দিয়ে মেডিক্যাল ব্যবস্থায় কোনও উন্নতি করা সম্ভব না। তাতে করে রোগী শনাক্তের সঙ্গে সঙ্গে মৃত্যু বাড়বে এবং সেটাই হচ্ছে।’

‘লকডাউন না মেনে শহর থেকে গ্রাম, গ্রাম থেকে শহরে ফিরেছে মানুষ। আর এতে করে শনাক্তের সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যু’ জানিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের রেজিস্ট্রার ও এই হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে দায়িত্বপালনকারী চিকিৎসক ডা. ফরহাদ উদ্দিন হাছান চৌধুরী মারুফ বলেন, ‘রোগীরা শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসছে। আর যে রোগী দেরিতে হাসপাতালে আসবে তার মৃত্যু অপেক্ষাকৃত অনেক বেশি, যে রোগী ‘আর্লি’ হাসপাতালে আসবে তার চেয়ে। বেশি সময় ধরে শরীরে অক্সিজেনের অভাব থাকলে তার ফিরে আসার সম্ভাবনা কমে যায়।’

অধিক সংক্রমণ এবং টেস্ট না করার প্রবণতার কারণে মৃত্যু বাড়ছে জানিয়ে ডা. ফরহাদ উদ্দিন হাছান চৌধুরী বলেন, ‘টেস্ট না করালে করোনা শনাক্ত হচ্ছে না। শনাক্ত না হওয়ার কারণে রোগী ধরা পড়ছে না এবং যখন ধরা পরছে তখন আর চিকিৎসার কিছু থাকে না।’

‘জেলা হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই, এ কারণে রোগীরা সেখানে চিকিৎসা পাচ্ছেন না’—বলেন আরেকটি করোনা হাসপাতালে দায়িত্বরত চিকিৎসক। ‘এ কারণে ঢাকার বাইরে থেকে আসা রোগীদের মৃত্যু হচ্ছে বেশি’—নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন তিনি।

 

/জেএ/আইএ/

সম্পর্কিত

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

করোনা নিয়ন্ত্রণে করণীয় নির্ধারণে জরুরি বৈঠক মঙ্গলবার

করোনা নিয়ন্ত্রণে করণীয় নির্ধারণে জরুরি বৈঠক মঙ্গলবার

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২২:৩২
document

দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর থেকে সোমবার (২৬ জুলাই) পর্যন্ত টিকা দেওয়া হয়েছে এক কোটি ২০ লাখ ৮৭ হাজার ৮৭৩ ডোজ। এরমধ্যে এক ডোজ নিয়েছেন ৭৭ লাখ ৭৭ হাজার ৪৩০ জন এবং দুই ডোজ নিয়েছেন ৪৩ লাখ ১০ হাজার ৪৪৩ জন। এগুলো অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি কোভিশিল্ড, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার ভ্যাকসিন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। কেবল সোমবার  টিকা দেওয়া হয়েছে মোট ২ লাখ ২১ হাজার ৫৩৬ জনকে।      

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, এ পর্যন্ত কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জন।  দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪২ লাখ ৯৮ হাজার ৮৬ জন। জানা যায়, কোভিশিল্ড প্রথম ডোজ নেওয়া ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জনের মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখের মতো মানুষের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে সংকট। এদের অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকারই দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে। কেননা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও দুই কোম্পানির দুই ডোজের টিকা গ্রহণের বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত দেয়নি।  

পাশাপাশি সোমবার ফাইজারের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ১২ জনকে। আর এখন পর্যন্ত এই টিকা দেওয়া হয়েছে মোট ৫০ হাজার ৫২৩ জনকে।

এছাড়া সিনোফার্মের দেওয়া হয়েছে এ পর্যন্ত  ১৪ লাখ ৯৭ হাজার ৫৮১ ডোজ। এরমধ্যে সোমবার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ১ লাখ ৫৯  হাজার জনকে, আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৪ হাজার ৪৭৮ জনকে।

মডার্নার টিকা এ পর্যন্ত মোট দেওয়া হয়েছে মোট ৪ লাখ ২১ হাজার ৯৫০ ডোজ, আর সোমবার দেওয়া হয়েছে ৫৮ হাজার ৪৬ ডোজ।

সারা দেশে টিকার জন্য এ পর্যন্ত মোট নিবন্ধন করেছেন ১ কোটি ২৬ লাখ ১২ হাজার ৪৪৭ জন।

 

/এসও/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

করোনা নিয়ন্ত্রণে করণীয় নির্ধারণে জরুরি বৈঠক মঙ্গলবার

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২৩:৪১

করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে করণীয় নিয়ে আগামীকাল মঙ্গলবার আবারও জরুরি বৈঠকে বসছেন সরকারের নীতিনির্ধারকরা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে এই সভা।

সোমবার (২৬ জুলাই) মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

তিনি জানিয়েছেন, মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লকডাউন দিয়ে রাখলেও সংক্রমণ-মৃত্যু কোনোটিই কমছে না। এই পরিস্থিতিতে করণীয় কী, তা ঠিক করতেই এই সভার আয়োজন করা হয়েছে।

সচিব জানিয়েছেন, চলমান ‘কঠোর লকডাউন’ ৫ আগস্ট  পর্যন্ত চলবে। সংক্রমণ কমাতে বিশেষজ্ঞরা লকডাউনের পক্ষে বললেও তা আবার মানুষকে জীবিকার সংকটে ফেলছে। বিষয়টি নিয়েও সরকারকে ভাবতে হচ্ছে।

চলমান লকডাউনের মেয়াদ ৫ আগস্টের পর আবারও বাড়ানো হবে কিনা জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানিয়েছেন, মঙ্গলবারের সভায় বিষয়টি ফাইনাল হবে।

 

/এসআই/এফএএন/এমওএফ/

সম্পর্কিত

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

একদিনে ঢাকা বিভাগেই শনাক্ত প্রায় ৮ হাজার

একদিনে ঢাকা বিভাগেই শনাক্ত প্রায় ৮ হাজার

জোড়া রেকর্ড: মৃত্যু ২৪৭, শনাক্ত ১৫ হাজার

জোড়া রেকর্ড: মৃত্যু ২৪৭, শনাক্ত ১৫ হাজার

আদালতের আদেশে সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচন স্থগিত করলো ইসি

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২০:০৭

আদালতের রায় অনুযায়ী সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সোমবার (২৬ জুলাই) সন্ধ্যায় ইসি থেকে নির্বাচন স্থগিত করে প্রজ্ঞাপন জারি করে সেই অনুযায়ী রিটার্নিং কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম-সচিব ফরহাদ আহম্মদ খান বাংলা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী কমিশন নির্বাচন স্থগিত করেছে। সিদ্ধান্তটি সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তাকে জানিয়ে দিয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা সিলেট জেলা প্রশাসক কাজী এম এমদাদুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, নির্বাচন স্থগিতে কমিশনের নির্দেশনা পেয়েছি এবং সেই অনুযায়ী ইতোমধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এর আগে সোমবার দুপুরে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে আগামী ২৮ জুলাই অনুষ্ঠেয় সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচন আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত স্থগিতের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। হাইকোর্টের নির্দেশনা পাওয়ার পর ফাইল নোট উপস্থাপনের মাধ্যমে কমিশন নির্বাচন স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ ওই সময় বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছিলেন, আদালতের আদেশের বিষয়টি তারা জেনেছেন। কমিশন এ বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত নেবে তারা তা বাস্তবায়ন করবে। সংবিধান অনুযায়ী এ আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য ইসির হাতে ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় রয়েছে।

/ইএইচএস/এমআর/

সম্পর্কিত

যে কারণে করোনার ঝুঁকিতে উপনির্বাচন

যে কারণে করোনার ঝুঁকিতে উপনির্বাচন

আরপিও’র বাংলা পাঠ প্রকাশ

আরপিও’র বাংলা পাঠ প্রকাশ

রাজনৈতিক দলগুলো শর্ত মানছে তো? জানতে চায় ইসি

রাজনৈতিক দলগুলো শর্ত মানছে তো? জানতে চায় ইসি

করোনাকালে ভোটের বিপক্ষে জেলা প্রশাসন, অনড় ইসি

করোনাকালে ভোটের বিপক্ষে জেলা প্রশাসন, অনড় ইসি

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ১৮:৫৪

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ১৯১ জন। গত দেড় বছরের মহামারিকালে একদিনে এত রোগী আর শনাক্ত হয়নি। একইসঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৪৭ জন। একদিনে এটাই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ মৃত্যু।

২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হওয়া ১৫ হাজার ১৯১ জনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছেন ঢাকা বিভাগে। এ বিভাগে শনাক্ত হয়েছেন সাত হাজার ৯৫৩ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ৫৯৫ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে দুই হাজার ৪৬৭ জন, রাজশাহী বিভাগে ৯০৮ জন, রংপুর বিভাগে ৬৭৮ জন, খুলনা বিভাগে এক হাজার ১৮৬ জন, বরিশাল বিভাগে ৮৪১ জন এবং সিলেট বিভাগে শনাক্ত হয়েছেন ৫৬৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৪৭ জনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন ঢাকা বিভাগে। এ বিভাগে মারা গেছেন ৭২ জন। এছাড়াও চট্টগ্রাম বিভাগের ৬১ জন, রাজশাহী বিভাগের ২১ জন, খুলনা বিভাগের ৪৬ জন, বরিশাল বিভাগের ১২ জন, সিলেট বিভাগের ১৪ জন, রংপুর বিভাগের ১৬ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগের মারা গেছেন পাঁচ জন।

 

/জেএ/আইএ/

সম্পর্কিত

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

সর্বশেষ

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

বগুড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

বগুড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

মধ্যনগরকে উপজেলা ঘোষণা করায় মিষ্টি বিতরণ

মধ্যনগরকে উপজেলা ঘোষণা করায় মিষ্টি বিতরণ

এই বছরই ইরাক ছাড়বে মার্কিন বাহিনী

এই বছরই ইরাক ছাড়বে মার্কিন বাহিনী

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

নাভালনি ও তার ঘনিষ্ঠদের ওয়েবসাইট ব্লক করলো রাশিয়া

নাভালনি ও তার ঘনিষ্ঠদের ওয়েবসাইট ব্লক করলো রাশিয়া

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

আনজাম মাসুদের সঙ্গে এবার ১৪ জন কণ্ঠশিল্পী!

আনজাম মাসুদের সঙ্গে এবার ১৪ জন কণ্ঠশিল্পী!

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

এক কোটি ২১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

৮ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় কত শনাক্ত, কত মৃত্যু

‘জনসাধারণকে লকডাউন মানানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী’

‘জনসাধারণকে লকডাউন মানানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী’

একদিনে ঢাকা বিভাগেই শনাক্ত প্রায় ৮ হাজার

একদিনে ঢাকা বিভাগেই শনাক্ত প্রায় ৮ হাজার

করোনা পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ প্রথম টার্গেট

করোনা পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ প্রথম টার্গেট

জোড়া রেকর্ড: মৃত্যু ২৪৭, শনাক্ত ১৫ হাজার

জোড়া রেকর্ড: মৃত্যু ২৪৭, শনাক্ত ১৫ হাজার

মোবাইল থেকেই দেওয়া যাবে আয়কর রিটার্ন

মোবাইল থেকেই দেওয়া যাবে আয়কর রিটার্ন

করোনায় এখন আর মানুষের ভীতি নেই: তথ্যমন্ত্রী

করোনায় এখন আর মানুষের ভীতি নেই: তথ্যমন্ত্রী

গার্মেন্ট কারখানা খুলে দেওয়ার চিন্তা সরকারের নেই: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

গার্মেন্ট কারখানা খুলে দেওয়ার চিন্তা সরকারের নেই: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

© 2021 Bangla Tribune