X
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বাংলা ট্রিবিউনকে একান্ত সাক্ষাৎকারে বাণিজ্যমন্ত্রী

টিসিবি’র কর্মপরিসর বাড়ানো হবে

আপডেট : ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ২১:৩২







বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি মনে করেন, ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) যেসব কাজ করছে, তার চেয়ে আরও অনেক বেশি কাজ করার সামর্থ্য রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। তিনি বলেন, ‘টিসিবি’র কর্মপরিসর বাড়াতে পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এ নিয়ে প্রাথমিক আলোচনাও হয়েছে।’
রবিবার (২৪ মার্চ) নিজ মন্ত্রণালয়ে বাংলা ট্রিবিউনকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলে বাণিজ্যমন্ত্রী।
তিনি বলেন, ‘তার পূর্বসূরিরা যেসব কাজ করেছেন, তিনি সেগুলো এগিয়ে নিয়ে যেতে চান। যেমন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত বন্ধুত্বপূর্ণ বাণিজ্য সম্পর্ক, উদার বাণিজ্যনীতি, ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার বাড়ানো, রফতানি বাড়ানো ইত্যাদিতে সফলতা বয়ে আনতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হবে।’
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘দায়িত্ব নেওয়ার আড়াই মাসেই বেশ কিছু পদক্ষেপও তিনি নিয়েছেন। খুব শিগগির চেক প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য চুক্তি হতে যাচ্ছে। জাপানের সঙ্গে নতুন নতুন ব্যবসা শুরু করতে যাচ্ছেন। রাশিয়া থেকে প্রতিনিধিদল আসছে। সৌদি আরব থেকে ইতোমধ্যে দুই মন্ত্রীর নেতৃত্বে প্রতিনিধিদল এসেছে। ব্যবসার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।’
১৯৬৬ সালে রংপুর কলেজে ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতিতে হাতেখড়ি আওয়ামী লীগের এই অর্থ বিষয়ক সম্পাদকের। কলেজজীবন শেষে চলে আসেন ঢাকায়। তিতুমির কলেজে ছাত্রলীগের রাজনীতি শুরু করেন। এর মধ্যে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে এলাকায় ফিরে গিয়ে বাবার সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। স্বাধীনতার পর ১৯৭৩ সালে ঢাকার তেজগাঁও উত্তরাঞ্চলের ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পান। রাজনীতির বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে ১৯৯৩ সালে এসে বৃহত্তর গুলশান থানা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পান। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে হন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য। এরপরের সম্মেলনে পান অর্থ সম্পাদকের দায়িত্ব।
টিপু মুনশি বলেন, ‘মন্ত্রী হিসেবে তিনি সরকারের বাণিজ্যসংশ্লিষ্ট লক্ষ্যগুলো পূরণ করতে চান। যে ১০০টি রফতানি প্রক্রিয়া জোন তৈরির কাজ চলছে তা সম্পন্ন করতে চান, বাজারকে সহজলভ্য এবং মানুষের নাগালে রাখতে চান। রফতানির লক্ষ্য পূরণ করতে চান, নতুন নতুন পণ্য রফতানির ওপর জোর দেবেন। বিনিয়োগ বাড়াতে পদক্ষেপ নেবেন।’
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আসছে রমজানে যাতে জিনিসপত্রের দাম যাতে না বাড়ে, সেদিকে সতর্ক আছে সরকার। বাজার মনিটরিং শুরু হয়েছে, পর্যায়ক্রমে আরও বাড়ানো হবে।’
তিনি বলেন, ‘রমজান উপলক্ষে কী পরিমাণ পণ্য মজুদ আছে এবং আমদানির প্রয়োজন হবে কিনা, এসব নিয়ে তিনি শিগগিরই সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠক করবেন।’
যুক্তরাষ্ট্রের জিএসপি না দেওয়ার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দেশটির দেওয়া সব শতই পূরণ করা হয়েছে। সর্বশেষ শ্রম আইনও যুগোপযোগী করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে জিএসপি ফেরত পাওয়া নিয়ে আলোচনা চলছে। তবে রাজনৈতিক কারণে যদি না দেওয়া হয়, সেখানে কিছু বলার থাকবে না। তারপরও জিএসপি ফিরে পাওয়ার প্রত্যাশা রয়েছে।’
পেশাগত জীবনে রাজনীতির পাশাপাশি টিপু মুনশি একজন সফল ব্যবসায়ীও। তৈরি পোশাক শিল্প রফতানিকারকদের সংগঠন বিজিএমই-এর সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।
দেশের রফতানি বৃদ্ধির পরিকল্পনা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘২০২১ সাল নাগাদ রফতানি ৬০ বিলিয়ন ডলারে নিতে হলে নতুন নতুন বাজার এবং নতুন নতুন পণ্য খুঁজতে হবে।’
টিপু মুনশি বলেন, ‘এ লক্ষ্যে মূল অস্ত্র হবে গার্মেন্টস শিল্প। আর সে জন্য চীন থেকে গার্মেন্টস শিল্প সরে যাওয়ায় যে সুযোগ তৈরি হয়েছে, সেই সুযোগকে কাজে লাগাতে হবে। তাহলে এই এক খাতেই ১০ বিলিয়ন ডলার রফতানি বাড়ানো সম্ভব।’
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নতুন পণ্য ও বাজারের জন্য ইতোমধ্যে চারদিকে নজর দেওয়া হয়েছে। জাপান নতুন একটি বাজার হতে পারে। এ ছাড়া পণ্যের ক্ষেত্রে চামড়া ওষুধের রফতানি বাড়ানো যেতে পারে।’
রফতানি বাড়ানো সম্পর্কিত আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ভারতে বাংলাদেশের বাজার বাড়ছে। আরও কীভাবে বাড়ানো যায়, সরকার তা নিয়ে কাজ করবে।’
বালু রফতানিসংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে টিপু মুনশি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বয়ং বালু রফতানির ক্ষেত্রে আগ্রহী। এ বিষয়ে কয়েক বছর আগেই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। একটা জায়গায় গিয়ে তা আটকে আছে। এখন আবার নতুন করে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে এ প্রক্রিয়া এগিয়ে নেওয়া হবে।’
সীমান্ত বাজার (বর্ডার হাট) নিয়ে করা আরেক  প্রশ্নের জবাবে টিপু মুনশি বলেন, ‘এরইমধ্যে যেসব বাজার চালু রয়েছে, সেগুলো যেসব জায়গায় স্থাপিত, সেসব স্থানে ভারতীয় জনবসতি অনেক কম। নতুন বাজার স্থাপনের ক্ষেত্রে যাতে দুই দিকেই সমান বসতি থাকে, সে বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া হবে।’
ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘বর্ডার হাট শুধু বাজার নয়, এর মাধ্যমে দুই দেশের সম্প্রীতি আরও বেড়েছে।;
টিপু মুনশি বলেন, ‘বাণিজ্যমন্ত্রী হিসেবে তার দায়িত্ব নেওয়ার পর এরইমধ্যে বাজার বাড়ানো নিয়ে ভারতের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। আলোচনা হয়েছে ঢাকার ভারতীয় রাষ্ট্রদূতের সঙ্গেও।’

/এইচআই/

সম্পর্কিত

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

এখনও ঢাকা ছাড়ছেন মানুষ

এখনও ঢাকা ছাড়ছেন মানুষ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৪৫

আগামী ১১ আগস্টের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর ও এর আওতাধীন সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীকে করোনার টিকা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  পরদিন ১২ আগস্টের মধ্যে টিকা নেওয়া সংক্রান্ত তথ্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরে পাঠাতে বলা হয়েছে।

বুধবার (২৮ জুলাই) এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর।  আদেশে বিভাগীয় উপরিচালক, জেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা ও থানা শিক্ষা অফিসার, সকল পিটিআইয়ের সুপারেনটেনডেন্ট, উপজেলা ও থানা রিসোর্স সেন্টারকে তথ্য পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়।

অফিস আদেশে বলা হয়, চলমান করোনা ভাইরাসজনিত রোগ প্রতিরোধে প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকলকে করোনার টিকা নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেই পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানানো হচ্ছে।

এমতাবস্থায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারী টিকা গ্রহণ করেছেন, তার তালিকা এবং যারা টিকা গ্রহণ করেননি, তাদের তালিকাসহ উভয় তালিকা ১২ আগস্টের মধ্যে অধিদফতরে পাঠাতে অনুরোধ জানানো হলো।

 

/এসএমএ/এপিএইচ/      

সম্পর্কিত

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

প্রাথমিকের ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা এন্ট্রির নির্দেশ

প্রাথমিকের ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা এন্ট্রির নির্দেশ

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

ডেঙ্গুর বিস্তার রোধে প্রাথমিকের নির্দেশনা

ডেঙ্গুর বিস্তার রোধে প্রাথমিকের নির্দেশনা

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে অভিযান: ২৪ মামলায় ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৩৯

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১০ ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ২৪ নির্মাণাধীন ভবন ও বাসাবাড়িকে ৩ লাখ ৩১ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বুধবার (২৮ জুলাই) এই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের অঞ্চল-১ এর ইস্কাটন গার্ডেন, পরিবাগ ও বাংলামোটরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহফুজুল আলম মাসুম; অঞ্চল-২ এর বাসাবোতে মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন; অঞ্চল-৩ এর হাজারীবাগে তৌহিদুজ্জামান পাভেল; অঞ্চল-৫ এর ডিআইটি রোডের ঢালকানগরে মুহাম্মদ হাসনাত মোর্শেদ ভূঁইয়া; অঞ্চল-৬ এর আমুলিয়ায় শাহীন রেজা; অঞ্চল-৮ এর সারুলিয়া, ডেমরায় কাজী হাফিজুল আমিন; অঞ্চল-৯ এর শেখদী, যাত্রাবাড়ীতে বিকাশ বিশ্বাস; আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাদের মধ্যে অঞ্চল-১ এর এলিফ্যান্ট রোড ও সেগুনবাগিচায় মেরীনা নাজনীন; অঞ্চল-৪ এর শাখারী পট্টিতে মো. হায়দার আলী এবং অঞ্চল-১০ এর কদমতলি এলাকায় মো. মামুন মিয়া এসব ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ভ্রাম্যমাণ আদালতসমূহ এ সময় ৩২৯টি নির্মাণাধীন ভবন, বাসাবাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করেন এবং মোট ২৪টি নির্মাণাধীন ভবন ও বাসাবাড়িতে মশার লার্ভা পাওয়ায় ২৪টি মামলা দায়েরের মাধ্যমে সর্বমোট ৩ লাখ ৩১ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

অভিযান প্রসঙ্গে অঞ্চল-১ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মেরীনা নাজনীন বলেন, ‘মশা নিয়ন্ত্রণে আমাদের দৈনন্দিন কার্যক্রম, ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান এবং গণমাধ্যমের সচেতনতামূলক সংবাদ প্রচার অব্যাহত থাকার পরও আমরা এখনও মানুষের নির্মাণাধীন ভবন ও বাসাবাড়িতে বিশেষ করে গ্যারেজে, ছাদে এবং কবুতর, বিড়াল ও কুকুরের মতো পোষা প্রাণীর খাবারের পাত্রে মশার লার্ভা পাচ্ছি। তাই ডেঙ্গু মোকাবিলায় সম্মানিত নগরবাসীকে আরও বেশি সচেতন হওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।’

আগামীকালও ঢাদসিক এর ১০টি অঞ্চলে একযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হবে।

 

/এসএস/আইএ/

সম্পর্কিত

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ছাত্রলীগ নেতা তরিকুলের জামিন হয়নি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ছাত্রলীগ নেতা তরিকুলের জামিন হয়নি

সৌদিতে ইয়াবা নেওয়ার চেষ্টা, ৮৯৫০ পিস ট্যাবলেটসহ যাত্রী ধরা

সৌদিতে ইয়াবা নেওয়ার চেষ্টা, ৮৯৫০ পিস ট্যাবলেটসহ যাত্রী ধরা

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:১৭

রাজধানীর পল্লবী এলাকা থেকে গ্রেফতার চার নাইজেরিয়ান নাগরিককে মাদক দ্রব্য আইনের মামলায় কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার আসামিরা হলেন— ওকাফোর উগোচুকউ প্রিন্সওয়েল, অনায়ানউ ওলুচিজুললেট, উডেজোবিনা রুবেন ও মিস্টার পিটার।

বুধবার (২৮ জুলাই) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশীদের আদালত আসামিদের রিমান্ড ও জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা  এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এদিন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পল্লবী থানার এসআই সোহেল সিকদার আসামিদের আদালতে হাজির করার পর প্রত্যেকের ৫ দিন করে রিমান্ডের আবেদন জানান। অপরদিকে আসামি পক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত রিমান্ড ও জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) বিকাল সোয়া ৫টার দিকে পল্লবী থানার কালশী এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ।  এ সময় আসামিদের কাছ থেকে ১২ বোতল বিদেশি  মদ, পাঁচ বোতল হুইস্কি, ৩২টি  বিদেশি বিয়ারের ক্যান উদ্ধার করা হয়।  যার আনুমানিক মূল্য এক লাখ ২০ হাজার টাকা।

 

/এমএইচজে/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

এখনও ঢাকা ছাড়ছেন মানুষ

এখনও ঢাকা ছাড়ছেন মানুষ

নৌ-চলাচলে বিঘ্ন, বছিলা সেতু ভেঙে ফেলার চিন্তা

নৌ-চলাচলে বিঘ্ন, বছিলা সেতু ভেঙে ফেলার চিন্তা

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:০৫

রাজধানীর দক্ষিণখান থানায় মাদকদ্রব্য আইনে করা মামলায় ইয়াবাসহ গ্রেফতার মোছা. জননেছাকে (৩০) কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার (২৮ জুলাই) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশীদের আদালত এ আদেশ দেন। আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

এ দিন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামিকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। এরপর আদালত আবেদন নামঞ্জুর করে আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে বুধবার (২৮ জুলাই) দক্ষিণখান থানার নদ্দাপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ মোছা. জননেছাকে গ্রেফতার করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) দক্ষিণখান থানা পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে দুটি প্যাকেটে ৪০৩ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় দক্ষিণখান থানায় মাদকদ্রব্য আইনে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা করা হয়।

 

/এমএইচজে/আইএ/

সম্পর্কিত

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ছাত্রলীগ নেতা তরিকুলের জামিন হয়নি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ছাত্রলীগ নেতা তরিকুলের জামিন হয়নি

সৌদিতে ইয়াবা নেওয়ার চেষ্টা, ৮৯৫০ পিস ট্যাবলেটসহ যাত্রী ধরা

সৌদিতে ইয়াবা নেওয়ার চেষ্টা, ৮৯৫০ পিস ট্যাবলেটসহ যাত্রী ধরা

করোনায় মৃত চিকিৎসক–স্বাস্থ্যকর্মীর পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে আইনি নোটিশ 

করোনায় মৃত চিকিৎসক–স্বাস্থ্যকর্মীর পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে আইনি নোটিশ 

চাঁদাবাজির মামলায় ছাত্রলীগ নেতা রিমান্ডে

চাঁদাবাজির মামলায় ছাত্রলীগ নেতা রিমান্ডে

প্রাথমিকের ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা এন্ট্রির নির্দেশ

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৭:৫৬

‘প্রাথমিক বিদ্যালয় ই-ব্যবস্থাপনা’ সফটওয়ারে ২০২২ শিক্ষাবর্ষের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য পাঠ্যপুস্তকের বিদ্যালয়ভিত্তিক চাহিদা এন্ট্রির নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। আগামী ২ আগস্টের মধ্যে শতভাগ এন্ট্রি সম্পন্ন করতে বলা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) স্বাক্ষরিত অফিস আদেশটি বুধবার (২৮ জুলাই) প্রকাশ করা হয়।

অফিস আদেশে বলা হয়, ‘প্রাথমিক বিদ্যালয় ই-ব্যবস্থাপনা’ সফটওয়ারে ২০২২ শিক্ষাবর্ষের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণি, প্রাথমিক স্তর এবং ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর পাঠ্যবইয়ের বিদ্যালয়ভিত্তিক চাহিদা আগামী ২১ জুনের মধ্যে এন্ট্রি করার অনুরোধ জানানো হয়েছিল। পরে যেসব উপজেলা/থানা নির্ধারিত তারিখের মধ্যে এন্ট্রি শতভাগ সম্পন্ন করতে পারেনি তাদের শতভাগ এন্ট্রি সম্পন্ন করার তাগিদ দেওয়া হয়।

আদেশে আরও জানানো হয়, অচিরেই ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবই সরবরাহ কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। পাঠ্যবই সরবরাহ কাজ শুরুর আগেই পাঠ্যবইয়ের চাহিদা সংক্রান্ত তথ্য শতভাগ এন্ট্রি সম্পন্ন করা আবশ্যক। এমতাবস্থায় এখন পর্যন্ত যেসব উপজেলা/থানা এন্ট্রি কাজ সম্পন্ন করেনি তাদের আগামী ২ আগস্টের মধ্যে শতভাগ সম্পন্ন করার জন্য আবারও অনুরোধ জানানো হলো।

 

 

/এসএমএ/আইএ/

সম্পর্কিত

ডেঙ্গুর বিস্তার রোধে প্রাথমিকের নির্দেশনা

ডেঙ্গুর বিস্তার রোধে প্রাথমিকের নির্দেশনা

শিক্ষার্থীদের টিকা দিয়ে দ্রুতই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষার্থীদের টিকা দিয়ে দ্রুতই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে: শিক্ষামন্ত্রী

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের ফোনালাপ ফাঁসের ঘটনায় তদন্ত কমিটি

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের ফোনালাপ ফাঁসের ঘটনায় তদন্ত কমিটি

‘ভর্তি বাণিজ্য বন্ধ করায় ফোনালাপ ফাঁস’

‘ভর্তি বাণিজ্য বন্ধ করায় ফোনালাপ ফাঁস’

সর্বশেষ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

আমি জ্যোতিষী নই: মমতা

আমি জ্যোতিষী নই: মমতা

সিরিজ জেতানোর ‘পুরস্কার’ পেলেন সৌম্য

সিরিজ জেতানোর ‘পুরস্কার’ পেলেন সৌম্য

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে অভিযান: ২৪ মামলায় ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে অভিযান: ২৪ মামলায় ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

কর্মহীনদের সহায়তায়  খাদ্যসামগ্রী অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের

কর্মহীনদের সহায়তায় খাদ্যসামগ্রী অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেলো স্বামী-স্ত্রীর

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেলো স্বামী-স্ত্রীর

প্রাথমিকের ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা এন্ট্রির নির্দেশ

প্রাথমিকের ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা এন্ট্রির নির্দেশ

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

এখনও ঢাকা ছাড়ছেন মানুষ

এখনও ঢাকা ছাড়ছেন মানুষ

নৌ-চলাচলে বিঘ্ন, বছিলা সেতু ভেঙে ফেলার চিন্তা

নৌ-চলাচলে বিঘ্ন, বছিলা সেতু ভেঙে ফেলার চিন্তা

ঢাকায় আরও ১৫০ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

ঢাকায় আরও ১৫০ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

দুই প্রতিষ্ঠানের কাছে আটকা ৫ হাজার ৬৩৫ কোটি টাকা!

জনতা ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারি পর্ব-১দুই প্রতিষ্ঠানের কাছে আটকা ৫ হাজার ৬৩৫ কোটি টাকা!

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ছাত্রলীগ নেতা তরিকুলের জামিন হয়নি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ছাত্রলীগ নেতা তরিকুলের জামিন হয়নি

সৌদিতে ইয়াবা নেওয়ার চেষ্টা, ৮৯৫০ পিস ট্যাবলেটসহ যাত্রী ধরা

সৌদিতে ইয়াবা নেওয়ার চেষ্টা, ৮৯৫০ পিস ট্যাবলেটসহ যাত্রী ধরা

নতুন মাদকের টার্গেট ঢাকা

মাদক ভয়ংকর পর্ব-৩নতুন মাদকের টার্গেট ঢাকা

© 2021 Bangla Tribune