X
বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

সেকশনস

পাবলিক পরীক্ষায় গ্রেডিং পুনর্গঠন প্রস্তাবে থাকছে ‘এক্সিলেন্ট’

আপডেট : ১৯ জুন ২০১৯, ২১:০৬

দেশের শিক্ষা বোর্ডগুলোর অধীনে পরিচালিত পাবলিক পরীক্ষার গ্রেডিং পদ্ধতি পুনর্গঠনের প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়েছে। এই লক্ষ্যে কিউমুলেটিভ গ্রেড পয়েন্ট এভারেজ (সিজিপিএ) পদ্ধতির আদলে গ্রেড পয়েন্ট এভারেজ (জিপিএ) পদ্ধতির ‘শ্রেণি ব্যাপ্তি পুনর্গঠন’ প্রস্তাবনা তৈরি করেছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড। এই পদ্ধতিতে জিপিএ-৫ বাদ দিয়ে সর্বোচ্চ প্রথম গ্রেডসহ ১০টিরও বেশি গ্রেড রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে। গ্রেড নির্ধারণে নম্বরের শ্রেণি ব্যাপ্তি কমিয়ে ৫ নম্বর করার প্রস্তাব করা হয়েছে খসড়ায়। প্রথম গ্রেডের সর্বোচ্চ ফলকে বলা হবে ‘এক্সিলেন্ট’। আগামী ২৬ জুন শিক্ষামন্ত্রীর কাছে লিখিতভাবে এই প্রস্তাবনা তুলে ধরা হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশ-বিদেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি, প্রাপ্ত ফলে শিক্ষার্থীর বৃত্তি ও চাকরির ক্ষেত্রে নিয়োগ পরীক্ষার প্রার্থী বাছাই সমস্যার সমাধান এবং জিপিএ চালুর আগের ফলের সঙ্গে গ্রেডিং সমন্বয় করতেই নম্বরের শ্রেণি ব্যাপ্তি পুনর্গঠনের এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীর স্ট্যান্ডার্ড মূল্যা‌য়ন সহজ হবে। গ্রেড দেখেই জানা যাবে, তার প্রাপ্ত নম্বর কত। আর এতে জিপিএ-৫ পাওয়ার বিষয়ে শিক্ষার্থীরা চাপমুক্ত থাকবে।’
অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক আরও বলেন, ‘আমরা একাধিক প্রস্তাব করেছি। শিক্ষামন্ত্রীর কাছে আগামী বৈঠকে (২৬ জুন) প্রস্তাব উপস্থাপন করা হবে। এরপর মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে শিক্ষাবিদসহ সংশ্লিষ্ট অংশীজনের সঙ্গে আলোচনা করে প্রস্তাব চূড়ান্ত করা হবে। এ বছর সম্ভব না হলেও আগামী বছর থেকে পুনর্গঠন চূড়ান্ত হলে এই এই পদ্ধতি চালু করা হবে।’
শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি), সেকেন্ডারি স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষায় বিদ্যমান গ্রেডিং পদ্ধতি নিয়ে দেশে-বিদেশে শিক্ষার্থীদের ভর্তির ক্ষেত্রে সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীরা ভর্তির ক্ষেত্রে হয়রানির শিকার হচ্ছে। এসব সমস্যা দূর করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, ‘শ্রেণি ব্যাপ্তি পুনর্গঠনে আমাদের নানা রকম প্রস্তাবনা রয়েছে। সর্বোচ্চ গ্রেড ৯০ থেকে ১০০ নম্বর অথবা ৯৫ থেকে ১০০ হতে পারে। আবার ৮০ থেকে থেকে ৮৯ নম্বর দ্বিতীয় গ্রেড হতে পারে। ৮০ থেকে ১০০ নম্বরের মধ্যে তিনটি গ্রেড করারও প্রস্তাবনা রয়েছে। সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৯৫ থেকে ১০০ পেলে ‘এক্সিলেন্ট’ ফল বলার প্রস্তাব রয়েছে। বিদ্যমান ব্যবস্থায় ৮০ নম্বরের নিচে নম্বরের শ্রেণি ব্যাপ্তি রয়েছে ১০। গ্রেডিংয়ে এই নম্বরের শ্রেণি ব্যাপ্তি কমিয়ে ৫ নম্বর করা হবে। এর কারণ একজন ছাত্র ৭৯ নম্বর পেলে সে জিপিএ-৪, আর ৮০ নম্বর পেলে জিপিএ-৫। আবার ৭০ নম্বরেও জিপিএ-৪ এবং ৭৯ নম্বরেও জিপিএ-৪। সেক্ষেত্রে ৭০ এবং ৭৮ নম্বরের প্রার্থক্য করা কঠিন। আবার এক নম্বরের জন্য একটি গ্রেড মিস করায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে মানসিক চাপ সৃষ্টি হচ্ছে। শিক্ষার্থীর আক্ষেপের জায়গা তৈরি হচ্ছে। গ্রেড নির্ধারণে নম্বরের ব্যাপ্তি ৫ হলে দশমিক ১৫ বা দশমিক ২ শূন্য দূরত্ব হবে। এতে আক্ষেপের জায়গা কমে যাবে।’

প্রস্তাবনা অনুযায়ী নতুন ৮০ থেকে ১০০ নম্বরের জন্য দুইয়ের অধিক গ্রেড রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে। কোনও পরীক্ষার্থী ৯০ অথবা ৯৫ থেকে ১০০ নম্বর পেলে ফল ‘এ’ এক্সিলেন্ট বলা হবে। উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থী ৯০ থেকে ৯৪ নম্বর পেলে ‘এ-প্লাস’, ৮৫ থেকে ৮৯ নম্বর পেলে ‘এ’ গ্রেড, আর ৮০ থেকে ৮৪ নম্বর পেলে ‘এ-মাইনাস’ গ্রেড ধরা হবে। তবে ৮০ নম্বর থেকে ১০০ নম্বরের জন্য দুইয়ের অধিক গ্রেড করা হবে আরও আলোচনা করে। আর ৮০ নম্বরের নিচে প্রতিটি গ্রেডে ৫ নম্বরের ব্যবধান রেখে প্রস্তাব করা হয়েছে। গ্রেডিং পদ্ধতি পুনর্গঠনে একাধিক বিকল্প প্রস্তাবও তৈরি করা হয়েছে।

মূল প্রস্তাবনা অনুযায়ী ৮০ নম্বরের নিচে ৫ নম্বরের ব্যবধান রেখে ‘বি-প্লাস’, ‘বি’, ‘বি-মাইনাস’, ‘সি-প্লাস’, ‘সি’, ‘সি-মাইনাস’, ‘ডি’, ‘ডি-প্লাস’, ‘ডি-মাইনাস’, ‘ই’, ‘ই-প্লাস’ এবং ‘ই-মাইনাস’ গ্রেডিং করা হবে। বিদ্যমান ব্যবস্থায় ৮০ নম্বরের ওপরে পেলেই জিপিএ-৫ ধরা হতো।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যমান ব্যবস্থায় ৩৩ নম্বরে পাস হলেও নতুন প্রস্তাবে কত নম্বরে পাস হবে, তা নির্দিষ্ট করা হয়নি। আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য প্রস্তুত করা খসড়ায় তা রাখা হয়নি।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান জানান, প্রাপ্ত নম্বরের ব্যাপ্তি নির্ধারণ বা পাস নম্বরের বিষয়গুলো এই মুহূর্তে শুধুই প্রস্তাবনা। আলোচনার জন্য প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী শিক্ষাবিদ ও অংশীজনের সঙ্গে আলোচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ১২ জুন শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় গ্রেড পরিবর্তনের বিষয়টি মৌখিকভাবে প্রস্তাব করা হয়। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি নতুন গ্রেড পদ্ধতির খসড়া তৈরি করার নির্দেশ দেন বৈঠকে। মন্ত্রীর নির্দেশে একাধিক খসড়া তৈরি করেছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড।

/এমএনএইচ/এমএমজে/

সম্পর্কিত

কানাডার কাছে টিকা চেয়েছে বাংলাদেশ

কানাডার কাছে টিকা চেয়েছে বাংলাদেশ

বুধবার এফবিসিসিআই’র সভাপতির দায়িত্ব নিচ্ছেন জসিম উদ্দিন

বুধবার এফবিসিসিআই’র সভাপতির দায়িত্ব নিচ্ছেন জসিম উদ্দিন

আমলারা সাংবাদিকদের দিকে তেড়ে আসছেন কেন?

আমলারা সাংবাদিকদের দিকে তেড়ে আসছেন কেন?

জয়শঙ্কর-মোমেন ফোনালাপ, টিকা পাঠানোর অনুরোধ

জয়শঙ্কর-মোমেন ফোনালাপ, টিকা পাঠানোর অনুরোধ

মেয়ের কাছে দুই দিন সময় চেয়ে নিয়েছেন রোজিনা ইসলাম

মেয়ের কাছে দুই দিন সময় চেয়ে নিয়েছেন রোজিনা ইসলাম

ভার্চুয়াল আদালতে ৮৪৭ হাজতির জামিন

ভার্চুয়াল আদালতে ৮৪৭ হাজতির জামিন

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা

‘রোজিনা ইসলাম ঠিক কাজটিই করেছেন’

‘রোজিনা ইসলাম ঠিক কাজটিই করেছেন’

পোশাক কোম্পানি লুবনানের বিরুদ্ধে ভ্যাট ফাঁকির মামলা

পোশাক কোম্পানি লুবনানের বিরুদ্ধে ভ্যাট ফাঁকির মামলা

ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার পেলো বাংলাদেশ

ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার পেলো বাংলাদেশ

৯৬ লাখের বেশি ডোজ টিকা দেওয়া শেষ

৯৬ লাখের বেশি ডোজ টিকা দেওয়া শেষ

রোজিনা ইসলামের গ্রেফতারের ঘটনায় পেন বাংলাদেশের নিন্দা

রোজিনা ইসলামের গ্রেফতারের ঘটনায় পেন বাংলাদেশের নিন্দা

সর্বশেষ

‘সাংবাদিক নয় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে জাতি উপকৃত হবে’

‘সাংবাদিক নয় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে জাতি উপকৃত হবে’

রাজশাহী বিভাগে টিকা অবশিষ্ট আছে ১০ হাজার ডোজ

রাজশাহী বিভাগে টিকা অবশিষ্ট আছে ১০ হাজার ডোজ

রাসেল ফেরায় আরও শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজ

রাসেল ফেরায় আরও শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজ

গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা, স্বামী পলাতক

গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা, স্বামী পলাতক

জুনে আসছে ফাইজারের টিকা

জুনে আসছে ফাইজারের টিকা

আগুনে ক্ষ‌তিগ্রস্ত প‌রিবার‌কে সহায়তা দি‌ল বান্দরবান রি‌জিয়ন কমান্ডার

আগুনে ক্ষ‌তিগ্রস্ত প‌রিবার‌কে সহায়তা দি‌ল বান্দরবান রি‌জিয়ন কমান্ডার

কানাডার কাছে টিকা চেয়েছে বাংলাদেশ

কানাডার কাছে টিকা চেয়েছে বাংলাদেশ

রোজিনা ইসলাম ন্যায়বিচার পাবেন: আইনমন্ত্রী

রোজিনা ইসলাম ন্যায়বিচার পাবেন: আইনমন্ত্রী

মৃত ভিক্ষুকের বাড়িতে ট্রাংকভর্তি ১০ লাখ রুপি উদ্ধার

মৃত ভিক্ষুকের বাড়িতে ট্রাংকভর্তি ১০ লাখ রুপি উদ্ধার

কবিতায় কুঁড়েঘর আছে, বাস্তবে নেই: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

কবিতায় কুঁড়েঘর আছে, বাস্তবে নেই: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

জাতীয় দলের হয়ে খেলা বিশেষ অনুভূতির: মোস্তাফিজ

জাতীয় দলের হয়ে খেলা বিশেষ অনুভূতির: মোস্তাফিজ

জাবিতে ভর্তি আবেদনের তারিখ পেছালো

জাবিতে ভর্তি আবেদনের তারিখ পেছালো

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

আমলারা সাংবাদিকদের দিকে তেড়ে আসছেন কেন?

আমলারা সাংবাদিকদের দিকে তেড়ে আসছেন কেন?

মেয়ের কাছে দুই দিন সময় চেয়ে নিয়েছেন রোজিনা ইসলাম

মেয়ের কাছে দুই দিন সময় চেয়ে নিয়েছেন রোজিনা ইসলাম

ভার্চুয়াল আদালতে ৮৪৭ হাজতির জামিন

ভার্চুয়াল আদালতে ৮৪৭ হাজতির জামিন

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা

‘রোজিনা ইসলাম ঠিক কাজটিই করেছেন’

‘রোজিনা ইসলাম ঠিক কাজটিই করেছেন’

রোজিনা ইসলামের গ্রেফতারের ঘটনায় পেন বাংলাদেশের নিন্দা

রোজিনা ইসলামের গ্রেফতারের ঘটনায় পেন বাংলাদেশের নিন্দা

সাংবাদিক রোজিনার বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবেদন ১৫ জুলাই

সাংবাদিক রোজিনার বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবেদন ১৫ জুলাই

রোজিনার প্রিজন ভ্যানের ছবি কী কথা বলে?

রোজিনার প্রিজন ভ্যানের ছবি কী কথা বলে?

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের মামলার বাদীর দফতর বদল

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের মামলার বাদীর দফতর বদল

‘রোজিনা ইসলামের ঘটনা স্বাধীন সাংবাদিকতার টুঁটি চেপে ধরার শামিল’

‘রোজিনা ইসলামের ঘটনা স্বাধীন সাংবাদিকতার টুঁটি চেপে ধরার শামিল’

© 2021 Bangla Tribune