সেকশনস

প্রশাসনিক পদ পেয়ে শিক্ষক পরিচয় ভুলে যান অনেকে: রাষ্ট্রপতি

আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮:২৪

সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ (ছবি: পিআইডি) বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কর্মকাণ্ডে দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর মো. আব্দুল হামিদ। তিনি বলেন, ‘শিক্ষকরা এখন প্রশাসনিক দায়িত্ব পেয়ে নিজে যে একজন শিক্ষক, সে পরিচয় ভুলে যান। উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান অভিভাবক। কিন্তু কোনও কোনও উপাচার্যের কর্মকাণ্ড দেখলে মনে হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের আসল কাজ কী তা তারা ভুলে গেছেন।’ সোমবার (৯ ডিসেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২তম সমাবর্তনে এসে রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ শুধু জ্ঞান দেওয়া ও দান করা নয়; বরং বর্ধিত জ্ঞান কাজে লাগানোই আসল কাজ। গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৌলিক কাজ। কিন্তু শিক্ষকদের গবেষণা নিয়েও এখন নানা কথা ওঠে। অনেক বিভাগে এখন সহকারী অধ্যাপকের চেয়ে অধ্যাপকের সংখ্যা বেশি।’

শিক্ষকদের উদ্দেশে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘মনে রাখবেন বিশ্ববিদ্যালয় চলে জনগণের টাকায়। সুতরাং এর জবাবদিহিও জনগণের কাছে। উচ্চবিত্ত, নিম্নবিত্ত, মেহনতি খেটে খাওয়া মানুষের কষ্টার্জিত টাকায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চলে। তাই প্রতিটি টাকা সৎ ও সঠিক পথে ব্যয় করার দায় উপাচার্য ও শিক্ষকদের।’

বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ইভিনিং ও ডিপ্লোমা কোর্সের সমালোচনা করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘নিয়মিত কোর্সের চেয়ে বাণিজ্যিক কোর্সের মাধ্যমে প্রতিবছর বেশি গ্র্যাজুয়েট বের হচ্ছে। এসব ডিগ্রি অর্জন করে শিক্ষার্থীরা কতটুকু লাভবান হচ্ছেন? তবে শিক্ষকরা কিন্তু ঠিকই লাভবান হচ্ছেন। তারা নিয়মিত সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছেন এবং বিশ্ববিদ্যালয়কে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে পরিণত করছেন। এর ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ বিঘ্নিত হওয়ার পাশাপাশি সার্বিক পরিবেশ বিঘ্নিত হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘অনেক বিশ্ববিদ্যালয় এখন দিনে পাবলিক, রাতে বেসরকারি চরিত্র ধারণ করছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ এখন মেলায় পরিণত হয়েছে; যা কোনোভাবেই কাম্য হতে পারে না। কিছু শিক্ষক নিয়মিত কোর্সের ব্যাপারে অনেকটা উদাসীন; কিন্তু ইভিনিং কোর্স, ডিপ্লোমা কোর্সে ক্লাস নেওয়ার ব্যাপারে খুবই সিরিয়াস। কারণ, এগুলোতে নগদ অর্থ থাকে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উদ্দেশে আবদুল হামিদ বলেন, ‘আপনাদের যে ইভিনিং শিফট, এটা আমার কাছে ভালো লাগে না। এই ইভিনিং শিফটের জন্য সন্ধ্যার পরে ক্যাম্পাসে আর কোনও পরিবেশ থাকে না। আমি শুনেছি এখানে ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস সাবজেক্টে ২২টি কোর্স আছে। প্রতিটি কোর্সের জন্য সাড়ে ১০ হাজার টাকা করে নেওয়া হয়। তাহলে ২২টি কোর্সে ২ লাখ ৩০ হাজার টাকার মতো পড়ে। এর অর্ধেক শিক্ষকরা পান, আর অর্ধেক ডিপার্টমেন্ট পায়। ডিপার্টমেন্টের টাকা কী হয় জানি না। আমি এটাও জানি, যারা নাকি ডক্টরেট করা সিনিয়র শিক্ষক তারাই ক্লাস নেন। এ বিষয়ে আর বেশি কিছু বলবো না। আপনারা বিবেচনা করে দেখবেন।’

এমবিবিএস ডাক্তারদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘ঢাকা ও মফস্বলে অনেক মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি হয়। আমি অনুরোধ করবো, ডাক্তাররা প্রেসক্রিপশন দিতে সাবধান থাকবেন। যারা ওষুধ বিক্রি করেন তাদেরও সাবধান থাকতে হবে। কেননা, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিষের মতো। মাঝে মধ্যে শুনি ঢাকার জন্য মোটামুটি ভালো মেডিসিন দেওয়া হয়। আর গ্রামের জন্য ভালো মেডিসিন দেওয়া হয় না। এসব ব্যাপারে জনগণকে সচেতন হতে হবে। ছাত্র সমাজেরও সতর্ক থাকতে হবে।’

শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর বলেন, ‘শিক্ষার মূল লক্ষ্য জ্ঞানার্জন হলেও তা মুখ্য লক্ষ্য নয়। কারণ, কর্মবিমুখ শিক্ষা মূল্যহীন। তথ্য-প্রযুক্তি বর্তমান বিশ্বে বিস্তার লাভ করছে। এটির সঙ্গে যে জাতি যত বেশি যুক্ত হচ্ছে তারা ততবেশি সাফল্য পাচ্ছে। আর এর জন্য মুখ্য ভূমিকা রাখে যুব সমাজ। তারা হচ্ছে জাতির চেঞ্জমেকার।’

আবদুল হামিদ বলেন, ‘সম্প্রতি কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘটে যাওয়া কয়েকটি ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুণ্ন করেছে। কোনও অভিভাবক তার সন্তানকে বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠান লাশ হয়ে ফিরে যাওয়ার জন্য নয়। কর্তৃপক্ষ সময় মতো পদক্ষেপ নিলে এ ধরনের ঘটনা অনেকাংশেই রোধ করা যেতো। তাই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এর দায় এড়াতে পারে না। ভবিষ্যতে কর্তৃপক্ষকে এ ধরনের ঘটনায় ত্বরিত পদক্ষেপ নিতে হবে।’
আরও পড়ুন..
ডাকসু প্রতিনিধিদের সম্পর্কে যা শুনি তা ভালো লাগে না: রাষ্ট্রপতি

/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

হাইকোর্টের রায়ের পর যে অপেক্ষা

পিলখানা হত্যাকাণ্ডহাইকোর্টের রায়ের পর যে অপেক্ষা

পিলখানা ট্র্যাজেডি: ১২ বছরেও শেষ হয়নি বিস্ফোরক আইনের মামলা

পিলখানা ট্র্যাজেডি: ১২ বছরেও শেষ হয়নি বিস্ফোরক আইনের মামলা

‘বন্দুকের নল নয় জনগণই ক্ষমতার উৎস’

‘বন্দুকের নল নয় জনগণই ক্ষমতার উৎস’

পিলখানা হত্যা দিবস আজ

পিলখানা হত্যা দিবস আজ

করোনাকালে বাংলাদেশের পাশে থাকায় ৬ এয়ারলাইন্সকে সম্মাননা

করোনাকালে বাংলাদেশের পাশে থাকায় ৬ এয়ারলাইন্সকে সম্মাননা

মাদকাসক্ত শিশু-কিশোরদের শনাক্তে মাঠে নেমেছে ডিএমপি

মাদকাসক্ত শিশু-কিশোরদের শনাক্তে মাঠে নেমেছে ডিএমপি

ভিকারুননিসাকে সতর্কতামূলক ৭ নির্দেশনা প্রতিযোগিতা কমিশনের

ভিকারুননিসাকে সতর্কতামূলক ৭ নির্দেশনা প্রতিযোগিতা কমিশনের

‘আহমদ শরীফের মাঝে সত্য বলার ক্ষমতা ছিল প্রবল’

জন্মশত বার্ষিকী অনুষ্ঠানে বক্তারা‘আহমদ শরীফের মাঝে সত্য বলার ক্ষমতা ছিল প্রবল’

১০ এপ্রিলকে ‘প্রজাতন্ত্র দিবস’ ঘোষণার দাবি রবের

১০ এপ্রিলকে ‘প্রজাতন্ত্র দিবস’ ঘোষণার দাবি রবের

ঢাকা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন: প্রথম দিন ভোট পড়েছে ৩৯৮৮

ঢাকা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন: প্রথম দিন ভোট পড়েছে ৩৯৮৮

টিকা নিলেন ২৬ লাখের বেশি মানুষ

টিকা নিলেন ২৬ লাখের বেশি মানুষ

সর্বশেষ

ভিপি নুরসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা: তদন্ত প্রতিবেদন জমা পড়েনি

ভিপি নুরসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা: তদন্ত প্রতিবেদন জমা পড়েনি

হাইকোর্টের রায়ের পর যে অপেক্ষা

পিলখানা হত্যাকাণ্ডহাইকোর্টের রায়ের পর যে অপেক্ষা

অস্ট্রেলিয়ায় ফেসবুক ও গুগল থেকে অর্থ আদায়ের আইন পাস

অস্ট্রেলিয়ায় ফেসবুক ও গুগল থেকে অর্থ আদায়ের আইন পাস

মোটরসাইকেলে চাপা দিয়ে পালিয়ে গেলো প্রাইভেটকার, নিহত ১

মোটরসাইকেলে চাপা দিয়ে পালিয়ে গেলো প্রাইভেটকার, নিহত ১

সোনারগাঁওয়ে শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী লোক ও কারুশিল্প মেলা

সোনারগাঁওয়ে শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী লোক ও কারুশিল্প মেলা

পিলখানা ট্র্যাজেডি: ১২ বছরেও শেষ হয়নি বিস্ফোরক আইনের মামলা

পিলখানা ট্র্যাজেডি: ১২ বছরেও শেষ হয়নি বিস্ফোরক আইনের মামলা

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে ৪১ জনের মৃত্যু

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে ৪১ জনের মৃত্যু

বিএনপি-জামায়াতকে নিষিদ্ধের দাবি যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের

বিএনপি-জামায়াতকে নিষিদ্ধের দাবি যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের

পরীক্ষিত নেতাকর্মীরাই দলের নেতৃত্বে আসবেন: তথ্যমন্ত্রী

পরীক্ষিত নেতাকর্মীরাই দলের নেতৃত্বে আসবেন: তথ্যমন্ত্রী

পুকুরে ডুবে যমজ দুই ভাইয়ের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে যমজ দুই ভাইয়ের মৃত্যু

‘বন্দুকের নল নয় জনগণই ক্ষমতার উৎস’

‘বন্দুকের নল নয় জনগণই ক্ষমতার উৎস’

এক জালে ধরা পড়লো চার লাখ টাকার মাছ

এক জালে ধরা পড়লো চার লাখ টাকার মাছ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘বন্দুকের নল নয় জনগণই ক্ষমতার উৎস’

‘বন্দুকের নল নয় জনগণই ক্ষমতার উৎস’

পিলখানা হত্যা দিবস আজ

পিলখানা হত্যা দিবস আজ

টিকা নিলেন ২৬ লাখের বেশি মানুষ

টিকা নিলেন ২৬ লাখের বেশি মানুষ

১ মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাক বাজেট আলোচনা

১ মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাক বাজেট আলোচনা

শাস্তি হিসেবে পার্বত্য এলাকায় বদলি, এই অপপ্রচার বন্ধের সুপারিশ

শাস্তি হিসেবে পার্বত্য এলাকায় বদলি, এই অপপ্রচার বন্ধের সুপারিশ

দেশে পৌঁছেছে ‘আকাশ তরী’

দেশে পৌঁছেছে ‘আকাশ তরী’

পার্বত্য চট্টগ্রামের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের বিষয়ে দিল্লির সঙ্গে আলোচনা করবে ঢাকা

পার্বত্য চট্টগ্রামের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের বিষয়ে দিল্লির সঙ্গে আলোচনা করবে ঢাকা


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.