সেকশনস

আমি দেশবাসীকে ভিক্ষুক বানাতে চাই না: বঙ্গবন্ধু

আপডেট : ১০ মার্চ ২০২০, ১০:৫৪

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশবাসীকে ভিক্ষুক বানাতে চান। তিনি বলেছেন,আমি তাদের কাজ দিতে চাই। মার্কিন জরুরি সাহায্য তহবিলের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আলাপকালে বঙ্গবন্ধু বলেন,‘আমি আপনাদের বলছি— বিদেশ থেকে সাহায্য আসুক আর নাইবা আসুক, বাংলাদেশের যেসব সম্পদ আছে, তা নিয়ে সে টিকে থাকবে।’ দেশের বাইরে বিভিন্ন পেশাজীবী যারা আছেন, তারা যে যেখানে থাকুক বাংলাদেশের নাগরিকদের প্রথম ও প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে— জাতির সেবা করা বলেও বঙ্গবন্ধু স্মরণ করিয়ে দেন।

নিক্সন স্বীকার করুন আর না-ই করুন

বঙ্গবন্ধু সুস্পষ্টভাবে বলেন, ‘বাংলাদেশের বাস্তবতাকে নিক্সন স্বীকার করুন আর নাইবা করুন, বাংলাদেশ টিকে থাকার জন্যই এসেছে এবং চিরদিন তা টিকে থাকবে। বিশ্ব বাংলাদেশকে এরমধ্যেই স্বীকার করে নিয়েছে। বিশ্বের কোনও শক্তি আর  বাংলাদেশের বাস্তবতাকে নস্যাৎ করতে পারবে না।’ বাসসের খবরে প্রকাশ, ১০ মার্চ মার্কিন একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আলাপকালে বঙ্গবন্ধু এই অভিমত ব্যক্ত করেন। ৭০ সদস্য বিশিষ্ট মার্কিন প্রতিনিধি দলটি সেসময়ে বাংলাদেশ সফর করছিল। তারা ১০ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে দেখা করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র সোভিয়েত ইউনিয়নকে স্বীকৃতি দিয়েছে ২০ বছর পর, চীনকে দীর্ঘ ২৩ বছর পর। কিন্তু নিক্সনকে পিকিং যেতেই হয়েছে।’

বাংলাদেশের প্রত্যেক অধিবাসী সমান

বাংলাদেশে বসবাসকারী বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মধ্যে যে বহুমুখী ঐতিহ্যবাহী আচার-আচরণ ও সংস্কৃতি রয়েছে, তার প্রতি প্রতিনিধিদলের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে নিগ্রোদের ব্যাপারে আপনারা যা করেছেন, এদেশে আমি কখনও তা করবো না। জাতি, ধর্ম ও সামাজিক প্রথা নির্বিশেষে বাংলাদেশের প্রতিটি অধিবাসী এদেশে সমান অধিকার ভোগ করবে।’ ধর্মনিরপেক্ষতা আমাদের ঘোষিত নীতি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশকে দেখে আপনাদের খুশি হওয়া উচিত। কেননা, যে পাকিস্তানের সঙ্গে আপনাদের নিক্সন সরকারের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে, সেই পাকিস্তানের চেয়েও বাংলাদেশ এখন অনেক বেশি সুখী, স্থিতিশীল ও স্বাভাবিক।

যোগাযোগ ব্যবস্থার চ্যালেঞ্জ

গভীর আত্মপ্রত্যয়ের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘মাত্র তিন মাস সময়ের মধ্যে আমার সরকার গ্রাম পর্যায়ে প্রশাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছে। নতুন জাতিকে গড়ে তোলার কাজ সর্বত্রই চলছে অবিরাম গতিতে।’ তিনি বলেন, ‘দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য আরও  ট্রাক ফেরি-লঞ্চ দরকার।’ তিনি সুনির্দিষ্ট করে বলেন, ‘পাকিস্তান হেলিকপ্টার ও অন্যান্য যানবাহনসহ আমাদের সম্পদ নিয়ে গেছে। নিয়ে গেছে বৈদেশিক মুদ্রা, বিমান ইত্যাদি। যা তারা নিয়ে যেতে পারেনি,তা এখানে ধ্বংস করে রেখে গেছে। তারা সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করেছে যোগাযোগ ব্যবস্থার।’

তিনি তার সাম্প্রতিক সোভিয়েত ইউনিয়ন সফরের উল্লেখ করে বলেন, ‘তারা আমাদের চারটি হেলিকপ্টার দিয়েছে। এগুলো দিয়ে বিভিন্ন স্থানে আমরা খাদ্যশস্য পাঠাতে পারবো। ভারত সরকার বাংলাদেশের জনগণকে মুক্ত হস্তে সাহায্য করার জন্য এগিয়ে এসেছে।’

বিদেশে বাংলাদেশের যেসব ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, বিজ্ঞানী ও দক্ষ শ্রমিক রয়েছে, তাদের দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হবে কিনা, এমন প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘চেষ্টা করার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। যে যেখানে থাকুক বাংলাদেশের নাগরিকদের প্রথম ও প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে জাতির সেবা করা। যুদ্ধবিধ্বস্ত জাতির সেবায় আত্মনিয়োগ করার জন্য দেশে ফিরে আসা তাদের কর্তব্য। তাদের জন্য এদেশের দ্বার চিরদিন উন্মুক্ত।’

একাত্তরে অসহযোগ চলছে

১৯৭১ সালের এই মাসে বাংলাদেশের মানুষ স্বাধীনতার লক্ষ্য সামনে রেখে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দেশব্যাপী অসহযোগ আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিল। সেদিন ছিল ১০ মার্চ, বুধবার। বঙ্গবন্ধু ঘোষিত অসহযোগ সংগ্রামের নতুন কর্মসূচি অনুযায়ী তৃতীয় দিনের মতো সবকিছু ছিল বন্ধ, অফিস-আদালত, স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়। শুধু খোলা ছিল নেতার নির্দেশে ব্যাংক ও ট্রেজারিগুলো। ১০ মার্চ তৎকালীন সামরিক শাসক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে কঠোর সতর্কবাণী উচ্চারণ করে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন— ‘বাংলার মানুষকে দমন করা যাবে না। মুক্তির লক্ষ্য অর্জনে তারা যেকোনও ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত।’ শাসকচক্র বৃহত্তর শক্তি গড়ে তোলায় তুষ্ট ছিল না। বাংলাদেশের অর্থনীতি ধ্বংসেরও ষড়যন্ত্র ছিল। এমনকি ঘূর্ণি দুর্গত এলাকায় ত্রাণ ও পুনর্বাসন কাজে অচলাবস্থা সৃষ্টি করা হয়েছিল।

 

 

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

মিয়ানমারে ১৮ বিক্ষোভকারী নিহতের ঘটনায় নিন্দা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের

মিয়ানমারে ১৮ বিক্ষোভকারী নিহতের ঘটনায় নিন্দা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের

শোষকচক্রের যেকোনও অপচেষ্টার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান বঙ্গবন্ধুর

শোষকচক্রের যেকোনও অপচেষ্টার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান বঙ্গবন্ধুর

পিএসসির মাধ্যমে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগে রাষ্ট্রপতির পরামর্শ

পিএসসির মাধ্যমে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগে রাষ্ট্রপতির পরামর্শ

শুরু হলো অগ্নিঝরা মার্চ

শুরু হলো অগ্নিঝরা মার্চ

পঞ্চম ধাপের মেয়র আ.লীগেরই সব, বিএনপি ও বিদ্রোহী মিলে ২

পঞ্চম ধাপের মেয়র আ.লীগেরই সব, বিএনপি ও বিদ্রোহী মিলে ২

 ‘বঙ্গবন্ধু অ্যাওয়ার্ড ফর ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন’ পাচ্ছেন ২ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠান

 ‘বঙ্গবন্ধু অ্যাওয়ার্ড ফর ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন’ পাচ্ছেন ২ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠান

প্রকল্পের অর্থ দেশের উন্নয়নে ব্যয় করতে হবে: পরিবেশমন্ত্রী

প্রকল্পের অর্থ দেশের উন্নয়নে ব্যয় করতে হবে: পরিবেশমন্ত্রী

কোটালিপাড়ায় শেখ হাসিনাকে বোমা পুঁতে হত্যাচেষ্টা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ  

কোটালিপাড়ায় শেখ হাসিনাকে বোমা পুঁতে হত্যাচেষ্টা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ  

বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে ইলেক্ট্রনিক পণ্য তৈরি করবে র‌্যাংগস

বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে ইলেক্ট্রনিক পণ্য তৈরি করবে র‌্যাংগস

বিক্ষোভে উত্তাল মিয়ানমার, পুলিশের গুলিতে নিহত ১৮

বিক্ষোভে উত্তাল মিয়ানমার, পুলিশের গুলিতে নিহত ১৮

সর্বশেষ

সিংগাইরে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

সিংগাইরে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১১ কোটি ৪৬ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১১ কোটি ৪৬ লাখ ছাড়িয়েছে

মিয়ানমারে ১৮ বিক্ষোভকারী নিহতের ঘটনায় নিন্দা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের

মিয়ানমারে ১৮ বিক্ষোভকারী নিহতের ঘটনায় নিন্দা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের

২৬ মাস ধরে তৃতীয় বর্ষে,  পরীক্ষার দাবিতে অনশনে ২ শিক্ষার্থী

২৬ মাস ধরে তৃতীয় বর্ষে, পরীক্ষার দাবিতে অনশনে ২ শিক্ষার্থী

মাদকের টাকা না পেয়ে মাকে হত্যা করলো মেয়ে!

মাদকের টাকা না পেয়ে মাকে হত্যা করলো মেয়ে!

দিনে ১০ কোটি মিনিট করে কমেছে আন্তর্জাতিক ইনকামিং কল

দিনে ১০ কোটি মিনিট করে কমেছে আন্তর্জাতিক ইনকামিং কল

সিগারেটের আগুনে পুড়লো ১০০ বিঘা জমির পান বরজ

সিগারেটের আগুনে পুড়লো ১০০ বিঘা জমির পান বরজ

শোষকচক্রের যেকোনও অপচেষ্টার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান বঙ্গবন্ধুর

শোষকচক্রের যেকোনও অপচেষ্টার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান বঙ্গবন্ধুর

সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জেলায় নিহত ৮

সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জেলায় নিহত ৮

১০৬টি চেক জাল করে ৩৬ লাখ টাকা লুটপাট!

১০৬টি চেক জাল করে ৩৬ লাখ টাকা লুটপাট!

হবিগঞ্জে বিএনপি প্রার্থীসহ ৪ মেয়র প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

হবিগঞ্জে বিএনপি প্রার্থীসহ ৪ মেয়র প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

গোপালগঞ্জে বিএনপি নেতা রিজভীর বিরুদ্ধে সমন

গোপালগঞ্জে বিএনপি নেতা রিজভীর বিরুদ্ধে সমন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

শোষকচক্রের যেকোনও অপচেষ্টার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান বঙ্গবন্ধুর

শোষকচক্রের যেকোনও অপচেষ্টার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান বঙ্গবন্ধুর

পিএসসির মাধ্যমে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগে রাষ্ট্রপতির পরামর্শ

পিএসসির মাধ্যমে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগে রাষ্ট্রপতির পরামর্শ

শুরু হলো অগ্নিঝরা মার্চ

শুরু হলো অগ্নিঝরা মার্চ

পঞ্চম ধাপের মেয়র আ.লীগেরই সব, বিএনপি ও বিদ্রোহী মিলে ২

পঞ্চম ধাপের মেয়র আ.লীগেরই সব, বিএনপি ও বিদ্রোহী মিলে ২

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের নতুন ‘হটস্পট’ হতে চায় মেঘালয়

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের নতুন ‘হটস্পট’ হতে চায় মেঘালয়

উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হয়েছে: ইসি সচিব

উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হয়েছে: ইসি সচিব

৪১তম বিসিএস পরীক্ষা পেছানোর পরিকল্পনা নেই

৪১তম বিসিএস পরীক্ষা পেছানোর পরিকল্পনা নেই


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.