X
সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

কার্পেটের যত্ন ও পরিষ্কার পদ্ধতি

আপডেট : ১৯ মার্চ ২০২০, ১৪:৩০
image

কার্পেট ঘরের সৌন্দর্য বাড়ালেও এতে ধুলাবালি জমে বেশি। এছাড়া পোকার আক্রমণ, তেলের ছোপ ও যত্নের অভাবে অকালেই কার্পেট হয়ে যেতে পারে মলিন। কার্পেটের যত্ন ও পরিষ্কার পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নিন।


কার্পেট কেনার আগে
কার্পেট কেনার আগে কয়েকটি বিষয় মনে রাখতে হবে। ঘরের মাপ অনুয়াযী কার্পেটের মাপ ও ডিজাইন বেছে নিন। কার্পেট কোন ঘরে রাখবেন তার উপরও নির্ভর করবে কী ধরনের কার্পেট কিনবেন। ড্রইং রুম, বেড রুম এবং শিশুদের রুমের কার্পেট ভিন্ন ভিন্ন হলেই ভালো। একরঙা কার্পেট সহজেই ময়লা হয়ে যায়। কিন্তু নকশাদার বা ডবল বুনুনির কার্পেট সহজে ময়লা হয় না। তাই শিশুর ঘরে রঙিন নকশাদার কার্পেট রাখুন। শিশুর ঘরের জন্য সুতি বা জুটের কার্পেট আদর্শ। কারণ এগুলো প্রয়োজনে সহজেই পরিষ্কার করা যায়। উল, সিল্কের কাশ্মীরি বা পারশিয়ান কার্পেট বেছে নিন বসার ঘরের জন্য।
যত্নে থাকুক কার্পেট
কার্পেটের কোনও কোনও জায়গায় চাপ বেশি পড়ে। যেমন আসবাবের পায়া, সোফাসেট বা সেন্টার টেবিলের সামনে ইত্যাদি। দীর্ঘদিন ধরে চাপ পড়লে কার্পেটের ওই জায়গা পাতলা হয়ে রঙ চটে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই এক্ষেত্রে আলাদা রাগ বা কার্পেট পেতে দিন কার্পেটের উপর। এতে কার্পেট অনেকদিন ভালো থাকবে।
কার্পেটের ধুলো পরিষ্কার করতে বছরে অন্তত দুই থেকে তিনবার কার্পেট পিটিয়ে ঝাড়া দরকার। বড় বারান্দা, ছাদ বা প্রশন্ত লনে কার্পেটটি উল্টো করে পেতে মোটা লাঠি বা কার্পেট ব্রাশের লম্বা হাতল দিয়ে পেটান। তবে শখের দামি কার্পেটের ক্ষেত্রে প্রফেশনালের সাহায্য নেওয়াই ভালো।
কার্পেট পরিষ্কার করার আরও একটি সহজ উপায় আছে। গোটা কার্পেটে প্রচুর পরিমানে মোটা দানার লবণ ছড়িয়ে দিন। তারপর শক্ত দাঁড়ার স্টিফ ব্রাশ দিয়ে জোরে জোরে ঘষে সাফ করুন। কার্পেটের জমাট বুনন যেদিকে, সেই দিকেই ডাস্টার বা ব্রাশ চালাবেন। উলের কার্পেট থেকে নতুন অবস্থায় বেশ কিছু রোঁয়া বের হতে থাকে। এই কার্পেট খুব জোরে ঘষে পরিষ্কার করা উচিৎ নয়। ব্রাশের বদলে ভ্যাকুয়াম বা হালকা ঝাড়ন দিয়ে পরিষ্কার করুন। সপ্তাহে অন্তত একদিন পরিষ্কার করুন।
কার্পেটে খাবার পড়ে গেলে খাবার তুলে নিয়ে সেই জায়গায় ভিনেগার বা লেবুর রস ছড়িয়ে দিন। এবার ইষদুষ্ণ সাবান-পানি দিয়ে ঘষে নিন। একটা পরিষ্কার কাপড় অ্যামোনিয়ায় ভিজিয়ে জায়গাটি মুছে নিন। শুকিয়ে গেলে ডিওডোরাইজার ছড়ান। খাবারের দাগ, গন্ধ পুরোপুরি দূর হবে। কার্পেটের দাগ ছোপ তোলার জন্য কোনও ক্লিন সলিউশন বা রিমুভার ব্যবহার করার আগে কার্পেটের কোনও একটি কোণায় ক্লিনারটি ঢেলে পরীক্ষা করে দেখে নিন রঙ চটে যাচ্ছে কি না বা কার্পেটর অন্য কোনও ক্ষতি হচ্ছে কি না। নিশ্চিত হলে তবেই ব্যবহার করুন।
পুরনো কার্পেট ফেলে দেবেন না। যেকোনও দরজিকে দিয়ে মাপমতো কাটিয়ে সেলাই করিয়ে নিন। দরজার সামনে বা বারান্দায় রাখার পাপোশ কিংবা বাথরুম রাগ বানিয়ে নিতে পারেন।

/এনএ/

সম্পর্কিত

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

দুধ যেন উপচে না পড়ে

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১১:৩৪

দুধ জ্বাল দেওয়ার সময় চোখটা সরালেই হলো, উপচে পড়বেই। যারা একটু ভুলোমনা, তাদের জন্য এটা বাড়তি এক যন্ত্রণা। দুধ উপচেপড়া ঠেকানোর আছে কিছু উপায়।

 

পানি

জ্বাল দেওয়ার আগে দুধে অল্প পরিমাণ বিশুদ্ধ পানি দিন। ফুটতে শুরু করলে ওই পানি এমনিতেই বাষ্প হয়ে যাবে। তবে লাভটা হলো, এতে দুধ অল্প আঁচে উপচে পড়বে না।

 

ঘি

দুধ জ্বাল দেওয়ার পাত্রের উপরের দিকে ভেতরের কিনারায় সামান্য ঘি মাখিয়ে দিন। উপচে পড়তে গিয়েও পড়বে না।

দুধ উপচে পড়া ঠেকানোর পদ্ধতি

কাঠের চামচ

উডেন স্প্যাটুলা তথা কাঠর চামচও ব্যবহার করা যায় এ কাজে। জ্বাল দেওয়ার সময় পাত্রের ঠিক ব্যাস বরাবর লম্বা করে একটি কাঠের চামচ রেখে দিন। ফোম তৈরি হলেও সেটা আবার নেতিয়ে যাবে।

 

পানির ছিটা

দুধ ফুলে উঠতে শুরু করলে দিশেহারা না হয়ে তার ওপর খানিকটা পানি ছিটিয়ে দিন। সঙ্গে সঙ্গে ফোমটা দেবে যাবে। আর যদি আঁচ কমাতে না চান, সেক্ষেত্রে পাত্রটা খানিকটা উপরে তুলে আলতো করে নাড়ান। এতেও দুধ উপচে পড়বে না।

/এফএ/

সম্পর্কিত

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৭:৫০

হলুদ খাওয়ার উপকারের কথা মোটামুটি সবারই জানা। তবে ত্বকের যত্নেও এর ব্যবহার হয়ে আসছে যুগ যুগ ধরে।

 

উজ্জ্বলতা বাড়ায়

আগে থেকেই কাঁচা হলুদ গায়ে মাখার চল রয়েছে। বিভিন্ন উৎসবেও ত্বকে হলুদ মাখা হয়। মূলত হলুদে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও আন্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান মানুষের ত্বকের অনাকাঙ্ক্ষিত দাগ দূর করে উজ্জ্বলতা বাড়ায়। দই, মধু ও হলুদ দিয়ে পেস্ট বানিয়ে মুখে ও ঘাড়ে লাগিয়ে ২০/২৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

 

ব্রণ দূর করে

ব্রণ নিয়ে টিনএজ বয়স থেকেই শুরু হয় মাথাব্যথা। হলুদ মিশ্রিত একটি প্যাক ব্রণ সমস্যা দূর করতে পারে সহজেই। এক চা চামচ দই ও এক চা চামচ মুলতানি মাটির  সঙ্গে হলুদ মিশিয়ে সঙ্গে খানিকটা গোলাপ জল দিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এবার মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত এ প্যাক ব্যবহারে ব্রণ যাবে পালিয়ে।

 

কালো দাগ হটাতে

মুখে বা চোখের নিচে কালো দাগ (ডার্ক সার্কেল) দূর করতে দুই টেবিল চামচ হলুদ গুঁড়ায় এক টেবিল চামচ দই ও দুই ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে প্যাক বানান। দাগের ওপর লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে চালিয়ে যেতে হবে কয়েকদিন।

 

ফাটা দাগ দূর করে

বিশেষ করে সন্তান জন্মদানের পর মায়েদের পেটের নিচে ফাটা দাগ দেখা দেয়। এক টেবিল চামচ নারিকেল তেলের সঙ্গে আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়া মিশিয়ে ফাটা দাগের জায়গাগুলোতে মেখে রাখুন এক ঘণ্টা পর্যন্ত। তারপর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে নিয়মিত ব্যবহার করুন।

/এফএ/

সম্পর্কিত

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৫:৩৬

পুষ্টির বিচারে মিষ্টি আলু স্বাভাবিক গোল আলুর মতো নয়। বরং ওটার চেয়ে ঢের এগিয়ে। একটি মাঝারি মিষ্টি আলুতেই প্রতিদিনকার চাহিদার চেয়ে চার গুণ বেশি ভিটামিন এ আছে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি হৃৎপিণ্ড ও কিডনি ভালো রাখার উপাদানও আছে এতে। ফাইবারেরও বেশ ভালো উৎস মিষ্টি আলু। আছে ভিটামিন বি, সি, ডি, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, থায়ামিন ও জিংক।

 

মিষ্টি আলুর ক্ষীর বানাতে যা যা লাগবে

  • ২ টেবিল চামচ ঘি।
  • ৪ কাপ দুধ।
  • ১ চা চামচ সবুজ এলাচ গুঁড়ো।
  • ৬টা কাঠবাদাম কুচি।
  • ৫০০ গ্রাম মিষ্টি আলু, গ্রেট করা।
  • ৬টা কাজুবাদাম কুচি।
  • দেড় কাপ চিনি।
  • ৫-৬ টুকরো জাফরান।

 

যেভাবে বানাবেন

  • একটি প্যানে মাঝারি আঁচে ঘি ঢালুন। গরম হয়ে এলে তাতে বাদামকুচিগুলো ভাজুন। বাদামের রং বাদামি হয়ে এলে তুলে রাখুন। বাড়তি ঘি-টাও রেখে দিন।
  • ওই প্যানে এবার গ্রেট করা মিষ্টি আলুর কুচিগুলো দিয়ে নেড়েচেড়ে পাঁচ মিনিট ভাজুন।
  • আলু খানিকটা নরম হয়ে আসতে শুরু করলে তাতে দুধ দিন। ১০ মিনিট রান্না করুন। এরপর চিনি ঢেলে নেড়েচেড়ে ভালো করে মিশিয়ে আরও ৫ মিনিট মাঝারি আঁচে রাখুন।
  • এলাচ গুঁড়ো ও জাফরান দিয়ে আরও ২-৩ মিনিট রান্না করুন।
  • এরপর আঁচ কমিয়ে তাতে ভেজে রাখা বাদামকুচি মিশিয়ে দিন। চাইলে গরম গরম পরিবেশন করতে পারেন, কিংবা রেখে দিতে পারেন ফ্রিজে।

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ০৮:০০

মাছ কিনতে বাজারে গেলেই বিপদে পড়ে যান অনেকে। মাছ টিপেটুপেও নিশ্চিত হতে পারেন না। সিদ্ধান্তহীনতায় কেটে যায় অনেকটা সময়। দরদামের চেয়েও তাদের টেনশনটা হলো, মাছ পচা হবে না তো? তাদের জন্য রইলো তাজা মাছ চেনার সহজ কিছু টিপস।

 

নাকের ওপর ভরসা

কাজটা একটু অস্বস্তিকর মনে হতে পারে। তবে তাজা মাছ চিনতে এটা বেশ কাজের। মাছটাকে সম্ভব হলে নাকের কাছে নিয়ে গন্ধ শুঁকে দেখুন। তাজা মাছ হলে বিশেষ কোনও গন্ধ পাবেন না। নদী বা সমুদ্রের তাজা মাছ হলে খানিকটা শ্যাওলা পানির গন্ধ পেতে পারেন। তবে সেটা নাকে ধাক্কা দেবে না। আর যদি কড়া আঁশটে গন্ধ পান, তবে বুঝতে হবে মাছটা পুরোপুরি পচা না হলেও বাসি। কিছু সময় পরই পচন ধরবে। এই গন্ধটা রান্নার পরও থাকবে।

 

চোখ লুকানো যায় না

মাছে যতই রাসায়নিক দেওয়া হোক, এর চোখ কিন্তু ঢাকা যায় না। তাই হাত দিয়ে ধরার আগে মাছের চোখ দেখুন। তাজা মাছের চোখটাও জ্বলজ্বলে হবে। চোখ যত সাদা ও ঘোলাটে হবে, ধরে নিতে হবে মাছটা তত পচে যাওয়ার কাছাকাছি পর্যায়ে আছে।

 

ত্বক পরীক্ষা

তাজা মাছের বাহ্যিকটা হবে বেশ চকচকে, যাকে বলে মেটালিক টেক্সচার। বাসি মাছের ত্বক হবে ফ্যাকাসে। আবার তাজা মাছের গায়ে জোরে হাত দিয়ে ঘষা দিলেও সহজে আঁশ ছুটে আসবে না। সবশেষে অনেকের মতো মাছটা টিপেও দেখুন। আঙুল সরানোর সঙ্গে সঙ্গে যদি বাউন্স করে আবার ত্বক সমান হয়ে যায় তবে মাছটা তাজাই আছে। পচা হলে দেবেই থাকবে কিংবা উঠে আসতে সময় লাগবে।

 

কানকোর রঙ

তাজা মাছের কানকো হাত দিয়ে তুলে দেখাতে বিক্রেতারা সবসময়ই তৎপর। তাজা মাছের কানকোর রঙ দেখতে ভেজা মনে হবে। আর বাসি মাছ হলে কানকোর রঙটাকে শুকিয়ে যাওয়া মনে হবে। আবার আঙুল দিয়ে পরীক্ষা করে দেখুন, রংটা আসল না নকল। তাজা মাছের কানকোর রঙটা হয় সচরাচর গাঢ় লাল বা মেরুন রঙের।

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ০৮:০০

কোরবানিতে রান্না মাংস খেতে আর ইচ্ছে করছে না? এবার চেষ্টা করে দেখুন ভিন্ন কিছু। সহজেই বানাতে পারেন বিফ চিজ বার্গার।

 

প্যাটির জন্য যা যা লাগবে

  • বড় চাকা ও হাড়ছাড়া আঁশযুক্ত মাংস ২০০ গ্রাম (২ পিসে ২০০ গ্রাম হয় এমন হলে ভালো)।
  • পরিমাণমতো লবণ।
  • তেজপাতা ২টি।
  • এলাচ ও লবঙ্গ ৫টি করে।
  • দারুচিনি বড় ১ টুকরা।

 

বার্গানের জন্য

  • বার্গার বান ৪ টি।
  • শশা, টমেটো, পেঁয়াজ, ক্যাপসিকাম ও লেটুস পাতা পরিমাণমতো।
  • টমেটো সস।
  • মাস্টার্ড সস
  • মেয়োনেজ পরিমাণমতো।
  • ঘি বা মাখন।
  • মজারেলা চিজ।

 

যেভাবে বানাবেন বিফ চিজ বার্গার

  • প্রথমেই মাংসটা তৈরি করে নিতে হবে। একটি হাঁড়িতে মেজারমেন্ট কাপে ২ কাপ পানি নিন। এতে মাংস ও মাংসের জন্য নেওয়া সকল উপকরণ দিয়ে মাঝারি আঁচে ৩০ মিনিট রান্না করুন।
  • পানি শুকিয়ে এলে কাঁটাচামচের মাধ্যমে দেখতে হবে মাংস নরম হয়েছে কি না। না হলে আরও কিছুটা পানি দিয়ে নরম না হওয়া পর্যন্ত জ্বাল দিন।
  • চুলা থেকে নামিয়ে কাঁটাচামচ দিয়ে মাংসগুলো ঝুরি বানিয়ে নিন।
  • এই ঝুরা মাংসে লবণ ও গ্রেটার দিয়ে গ্রেট করা চিজ দিন। মাস্টার্ড সস ও মেয়োনেজ দিয়ে ভালো করে মিক্স করুন।
  • এবার বানের প্রতিটিকে দুই ভাগ করে কেটে নিন। গরম তাওয়ায় ১টি বানের জন্য ১ চাচামচ ঘি বা বাটার দিয়ে বানগুলো গরম করে নিন।
  • বানের নিচের ও উপরের অংশে টমেটো সস লাগিয়ে নিন।
  • মাংসের মিশ্রণকে হাতের তালুতে নিয়ে চাপ দিয়ে টিকিয়ার মতো করে বানের নিচের অংশে দিন।
  • এর উপর শশা, টমেটো, পেঁয়াজ ও ক্যাপসিকাম দিন।
  • ওভেনে ১০ সেকেন্ড দিয়ে পরিবেশন করুন। ওভেন না থাকলে তাওয়াতেও গরম করা যাবে। এতে মাংসের মধ্যে দেওয়া চিজ গলবে।

মেয়োনিজ তৈরির রৈসিপি দেখে নিন এই লিংকে

/এফএ/

সম্পর্কিত

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

সর্বশেষ

করোনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে যাচ্ছে: ড. ফাউচি

করোনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে যাচ্ছে: ড. ফাউচি

উল্কার ঝলকে আলোকিত নরওয়ে!

উল্কার ঝলকে আলোকিত নরওয়ে!

বিদ্যুতের অভিযোগ সেল নিয়ে জানা নেই গ্রাহকের

বিদ্যুতের অভিযোগ সেল নিয়ে জানা নেই গ্রাহকের

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

ব্যবসায়ীর কাছে ২ কোটি টাকা দাবি, পরিদর্শক বদলি এসআই বরখাস্ত

ব্যবসায়ীর কাছে ২ কোটি টাকা দাবি, পরিদর্শক বদলি এসআই বরখাস্ত

পাথরের ধাক্কায় বিধ্বস্ত সেতু, ৯ পর্যটক নিহত

পাথরের ধাক্কায় বিধ্বস্ত সেতু, ৯ পর্যটক নিহত

কবিরাজের পানিপড়া খেয়ে নিস্তেজ শিশুকে টয়লেটে ফেলে দেন মা

কবিরাজের পানিপড়া খেয়ে নিস্তেজ শিশুকে টয়লেটে ফেলে দেন মা

ভারতের কাছে টি-টোয়েন্টিতেও হারে শুরু শ্রীলঙ্কার

ভারতের কাছে টি-টোয়েন্টিতেও হারে শুরু শ্রীলঙ্কার

পুড়ে গেছে ৩৬টি বসতঘর, বেঁচে আছে কবুতরগুলো

পুড়ে গেছে ৩৬টি বসতঘর, বেঁচে আছে কবুতরগুলো

অক্সিজেন কারখানায় অভিযানে শ্রমিকদের মারধরের অভিযোগ

অক্সিজেন কারখানায় অভিযানে শ্রমিকদের মারধরের অভিযোগ

মেয়র আইভীর মায়ের মৃত্যু

মেয়র আইভীর মায়ের মৃত্যু

ভালো খেলতে পারাকেই বড় করে দেখছেন সৌম্য 

ভালো খেলতে পারাকেই বড় করে দেখছেন সৌম্য 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

জিরাপানি কেন খাবেন, বানাবেন কী করে?

জিরাপানি কেন খাবেন, বানাবেন কী করে?

নবাবি স্বাদের গলৌটি কাবাব

নবাবি স্বাদের গলৌটি কাবাব

পাঁচ ত্বকের পাঁচ প্যাক

পাঁচ ত্বকের পাঁচ প্যাক

গরুর মাংসের আছে অনেক উপকার

গরুর মাংসের আছে অনেক উপকার

ঈদের রেসিপি : বিফ ব্রকোলি স্টার ফ্রাই

ঈদের রেসিপি : বিফ ব্রকোলি স্টার ফ্রাই

© 2021 Bangla Tribune