X
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ঢাকাতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৭ লক্ষাধিক হতে পারে: দ্য ইকোনমিস্ট

আপডেট : ০৬ জুন ২০২০, ১৪:২৬

কম সংখ্যক পরীক্ষার কারণে বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানে সরকারি পরিসংখ্যানের চেয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা অনেক ভয়াবহ হতে পারে বলে যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক সাময়িকী দ্য ইকোনমিস্টের এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাতেই আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে সাত লাখের বেশি হতে পারে। শুক্রবার ‘ইনফেকশন্স আর রাইজিং ফাস্ট ইন বাংলাদেশ, ইন্ডিয়া অ্যান্ড পাকিস্তান’ শিরোনামের প্রতিবেদনে এই দাবি করেছে সাময়িকীটি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক উদরাময় রোগ গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইসিডিডিআর,বি)-এর কর্মকর্তা জন ক্লেমেনসের অনুমান, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাতেই করোনা সংক্রমণের সংখ্যা ইতোমধ্যে সাড়ে সাত লাখ ছাড়িয়ে থাকতে পারে। তবে সরকারের তথ্য অনুযায়ী, শুক্রবার পর্যন্ত বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬০ হাজারের কম।

বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অনুসারে, শুক্রবার পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬০ হাজার ছাড়িয়েছে এবং মৃত্যু হয়েছে ৮ শতাধিক মানুষের। আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আক্রান্ত শনাক্তের ৯০তম দিনে এসে করোনাভাইরাস সংক্রমিত শীর্ষ ২০ দেশের তালিকায় ঢুকে গেছে বাংলাদেশের নাম।

লকডাউন প্রত্যাহারে দ্রুত ছড়াতে পারে সংক্রমণ

গত সপ্তাহ থেকে করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে জারি করা লকডাউন প্রত্যাহার করতে শুরু করেছে বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং ভারত। দ্য ইকোনমিস্ট লিখেছে, ‘বিশ্বের মোট জনসংখ্যা এক-পঞ্চমাংশের বেশি ১৭০ কোটি মানুষকে বিধি-নিষেধ মুক্ত করে দেওয়ায় বিপর্যস্ত অর্থনীতিতে স্বস্তি ফিরবে।’

এতে আরও বলা হয়েছে, ‘দক্ষিণ এশিয়ায় রোগের বিস্তার মোটামুটি শ্লথ করতে পেরেছে সংশ্লিষ্ট দেশগুলো কিন্তু থামাতে পারেনি। লকডাউন প্রত্যাহারের ফলে আবারও সংক্রমণ দ্রুত ছড়াতে পারে।’

‘সরকারিভাবে প্রকাশিত সাড়ে ৩ লাখের বেশি আক্রান্ত এবং প্রায় ৯ হাজার মানুষের মৃত্যু নিয়ে পরিসংখ্যানকে অপেক্ষাকৃত পরিমিত দেখাচ্ছে। তবে এখনও অনেক মানুষ আক্রান্ত হলেও গণনারে বাইরে রয়েছেন; লকডাউন প্রত্যাহারের আগে থেকেই তা নিয়ে ভয় ছিল। এখন সেই ভয় আরও বাড়ছে’−উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

এতে আরও বলা হয়েছে, ‘সংক্রমণের বর্তমান গতি অনুসারে প্রতি দুই সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে। তবে কিছু মডেলে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছে, এই অঞ্চলে করোনা সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছাবে আগামী জুলাইয়ের শেষের দিকে। শুধু তাই নয়, সেই সময়ে সরকারি পরিসংখ্যানেও আক্রান্ত ৫০ লাখে পৌঁছাতে পারে এবং মৃত্যু ছাড়াতে পারে দেড় লাখ।’

মর্গ বা কবরস্থান পাওয়া কঠিন

দ্য ইকোনমিস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই তিন দেশে করোনায় মৃতদের জন্য মর্গে, কবরস্থানে ও শ্মশানঘাটে জায়গা পাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। নারায়ণগঞ্জের পৌর কবরস্থানে মে মাসে ৫৭৫ জনের দাফন করা হয়েছে। সাধারণত প্রতিমাসে সেখানে আড়াইশ’র কম দাফন করা হয়।

তবে গত মাসে দাফন করা ৫৭৫ জনের মধ্যে মাত্র ৭০ জন করোনায় আক্রান্ত বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনটিতে চট্টগ্রামে কবর খনন কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ফরিদ উদ্দিনের বক্তব্য তুলে ধরা হয়েছে। তিনি বলেছেন, অনেক মানুষ মারা যাচ্ছে।

তিনি ও তার সঙ্গীরা গত চারদিন ধরে ঘুমানোর সময় পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন ফরিদ উদ্দিন। তিনি আরও বলেন, ‘আমরা প্রচণ্ড চাপে আছি। দোয়া করুন যেন সৃষ্টিকর্তা আমাদের ক্ষমা করে দেন এবং রোগটি ফিরিয়ে নেন।’  

/এএ/এমএমজে/

সম্পর্কিত

করোনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে যাচ্ছে: ড. ফাউচি

করোনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে যাচ্ছে: ড. ফাউচি

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০০:০৪

সীমান্ত বিরোধের জেরে ভারতের আসাম ও মিজোরামের সাধারণ মানুষের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে কমপক্ষে ৬ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। ছয়জনই আসামের নিরাপত্তা সদস্য। দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে এ নিয়ে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে কেন্দ্রের সহায়তা কামনা করেছেন তারা।

সোমবার আসামের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্ব শর্মা জানিয়েছেন, তার রাজ্যের ৬ পুলিশ সদস্য সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন। ‘আসামের ৬ পুলিশ সদস্য মিজোরাম সীমান্তে নিহতে দুঃখ পেয়েছি। পুলিশ জওয়ানরা তাদের সাংবিধানিক সীমানা রক্ষার জন্য জীবন দিয়েছেন। নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি’।

অন্যদিকে এ ঘটনায় শোক ও নিন্দা জানিয়েছেন মিজোরামের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লালচামলিয়ানা। পুরো ঘটনায় তিনি প্রতিবেশী রাজ্য সরকারকে দায়ী করে বলেন, আসাম সরকারের অযৌক্তিক আচরণের বিরুদ্ধে নিন্দা জানাচ্ছে তার রাজ্য সরকার। মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাঙ্গাও সমালোচনা করেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিভি জানিয়েছে, সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক হয় উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের। সেখানে নানা বিষয় নিয়ে অমতি শাহের সঙ্গে তাদের আলাপ হয়। এরপরই স্থানীয় সময় সোমবার মিজোরাম এবং আসামের সীমান্ত এলাকায় বিবাদে জড়ান দুই রাজ্যের মানুষ। আসামের চাচর জেলা ও মিজোরামের কোলাসিব জেলার স্থানীয় লোকজন ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে মোতায়েন করা হয় বাড়তি নিরাপত্তা সদস্য। কিন্তু তাতেও নিয়ন্ত্রণে আসেনি। সেখানে গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ৬ পুলিশ সদস্য প্রাণ হারান। তবে সাধারণ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এ নিয়ে দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। হতাহতের ঘটনায় একে অপরকে দায়ী করে অমিত শাহকে ট্যাগ করছেন তারা। এমনকি দোষীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে আহ্বান জানান।

মিজোরামের আইজল, কোলাসিব ও মামিতে জেলার সঙ্গে আসামের চাচর, হাইলাকান্দি ও করিমগঞ্জ জেলার ১৬৪ কিলোমিটারের বেশি সীমান্ত রয়েছে। সীমান্ত এলাকা নিয়েই দুই রাজ্যের বাসিন্দাদের মধ্যে বিরোধ রয়েছে দীর্ঘদিনের।

/এলকে/

সম্পর্কিত

পাকিস্তান বর্ডার ক্রসিং নিয়ে তালেবান ও আফগান সরকারের পাল্টাপাল্টি দাবি

পাকিস্তান বর্ডার ক্রসিং নিয়ে তালেবান ও আফগান সরকারের পাল্টাপাল্টি দাবি

ভারত-চীনের মধ্যে পারমাণবিক অস্ত্র প্রতিযোগিতা নেই: জয়শঙ্কর

ভারত-চীনের মধ্যে পারমাণবিক অস্ত্র প্রতিযোগিতা নেই: জয়শঙ্কর

জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে সম্মত হয়েছে আদিবাসী মুসলিমরা: আসামের মুখ্যমন্ত্রী

জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে সম্মত হয়েছে আদিবাসী মুসলিমরা: আসামের মুখ্যমন্ত্রী

বেশি সন্তান জন্ম দিলে মিলবে ১ লাখ রুপি পুরস্কার

বেশি সন্তান জন্ম দিলে মিলবে ১ লাখ রুপি পুরস্কার

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২৩:৩০

আফগানিস্তানের ন্যাশনাল আর্মি ও সীমান্ত পুলিশের অন্তত ৪৬ জন সদস্যকে আশ্রয় দিয়েছে পাকিস্তান। রবিবার তাদের আশ্রয় দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর আন্ত-বাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আফগান সেনাবাহিনীর কমান্ডার ৫ কর্মকর্তাসহ ৪৬ জন সেনা সদস্যের জন্য আশ্রয় ও সহযোগিতা চান। পাকিস্তান-আফগানিস্তান আন্তর্জাতিক সীমান্তে নিরাপত্তা পরিস্থিতির কারণে তারা তাদের সামরিক ফাঁড়ির নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখতে পারেননি।

পাকিস্তান সেনাবাহিনী আরও জানায়, এই বিষয়ে আফগানিস্তানের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তথ্য ও প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পাদনের জন্য যোগাযোগ করছে।

বিবৃতিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, যথাযথ প্রক্রিয়া শেষে এই সেনা ও কর্মকর্তাদের আফগান সরকারের কাছে সম্মানজনক উপায়ে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে ১ জুলাই আরও ৩৫ জন আফগান সেনা পাকিস্তানে আশ্রয় নিয়েছেন বলে আইএসপিআর-এর বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে। যথাযথ প্রক্রিয়ায় পরে তাদের আফগান সরকারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

সূত্র:ডন

/এএ/

সম্পর্কিত

তালেবানের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

তালেবানের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

করোনা টিকার মিশ্র ডোজ নিয়ে গবেষণায় সুখবর

করোনা টিকার মিশ্র ডোজ নিয়ে গবেষণায় সুখবর

চলতি বছরে আফগানিস্তানে রেকর্ড সংখ্যক হতাহত: জাতিসংঘ

চলতি বছরে আফগানিস্তানে রেকর্ড সংখ্যক হতাহত: জাতিসংঘ

১৬০ ফুট উঁচু থেকে পড়ে টিকটকার তরুণীর মৃত্যু

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২৩:৫২

টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে ১৬০ ফুট উচ্চতা থেকে পড়ে চীনের এক তরুণীর মৃত্যু হয়েছে। নিজের ভিডিও রেকর্ড করার সময় ক্রেন থেকে পড়ে মারা যান ২১ বছর বয়সী তরুণী জিয়াও কিউয়েমি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম সানের খবরে বলা হয়েছে, চীনের কুজহু শহরে নিজের ভিডিও বানাতে ক্রেন থেকে ভিডিও করছিলেন এই টিকটক তারকা। ক্যামেরার সামনে কথা বলছিলেন জিয়াও। হঠাৎ ওই ক্রেন থেকে থেকে পড়ে যান তিনি। মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে তার পরিবার জানায়, ভিডিও’র সময় অসচেতনার কারণেই পড়ে যায় সে।

গত মঙ্গলবার কাজ শেষে বেশিরভাগ সহকর্মী যখন বাসায় ফিরে গেছে তখনই টিকটক ভিডিও বানানোর চেষ্টা করেন তিনি। স্থানীয় সময় বিকাল ৫টা ৪০ মিনিটে ফোনটি হাতে ধরা অবস্থায় মাটিতে পড়তে দেখা যায় তাকে। জিয়াও ওই টাওয়ারের ক্রেন অপারেটরের দায়িত্বে ছিলেন।

এই তরুণী টিকটকার চীনে বেশ সুপরিচিতি। সংবাদমাধ্যমে এসছে, তার বহু ফলোয়ার রয়েছে। জীবন ঝুঁকিতে ফেলে অনেককেই টিকটক ভিডিও বানাতে দেখা যায়। এতে দুর্ঘটনায় পড়ে মৃত্যু হয়।

চলতি মাসে হংকংয়ের প্রভাবশালী তারকা সোফিয়া চেউং ছবি তোলার সময় জলপ্রপাত থেকে পড়ে মারা যান।

/এলকে/

সম্পর্কিত

চীনে আগুনে পুড়ে ১৪ জনের মৃত্যু

চীনে আগুনে পুড়ে ১৪ জনের মৃত্যু

১৫৫ কিলোমিটার বেগে চীনে আঘাত হানছে টাইফুন 'ইন-ফা'

১৫৫ কিলোমিটার বেগে চীনে আঘাত হানছে টাইফুন 'ইন-ফা'

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থার বিরুদ্ধে চীনের পাল্টা নিষেধাজ্ঞা

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থার বিরুদ্ধে চীনের পাল্টা নিষেধাজ্ঞা

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ওমরাহ পালনে আর বাধা নেই

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২২:১৭

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে বিদেশি মুসল্লিদের সৌদিতে ওমরাহ হজ পালনে নিষেধাজ্ঞা ছিল। তবে এবার তা প্রত্যাহার করে নিয়েছে সৌদি সরকার। আগামী ১০ আগস্ট থেকে সৌদিতে ওমরাহ পালন করতে পারবেন বিদেশি মুসল্লিরা। রবিবার সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ) এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানায়।

করোনা মহামারির মধ্যে সীমিত পরিসরে হজ পালনে সফল হয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটি। সংক্রমণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসায় ধীরে ধীরে কঠোর বিধিনিষেধে শিথিলতা আনছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় সৌদিতে ওমরাহ পালনে বিদেশিদের ওপর সাময়িক যে নিষেধাজ্ঞা ছিল তা তুলে নেওয়া হয়েছে। ওমরাহ পালনে বিদেশ থেকে আসা প্রত্যেক মুসল্লিকে মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে। 

১৪৪৩ হিজরি সনের ১ মহররম অর্থাৎ আগামী ১০ আগস্ট থেকে ওমরাহ পালনে ইচ্ছুক মুসল্লিরা সৌদিতে প্রবেশ করতে পারবেন। মক্কা ও মদিনার পবিত্র দুই মসজিদ পরিচালনাকারী পর্ষদের প্রধান আবদুল রহমান আল সুদাইস ওমরাহ পালনকারী ও মুসল্লিদের গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষগুলোকে দ্রুত প্রস্তুতি শেষ করার তাগিদ দেন।
তবে, সৌদির নাগরিক ও বাসিন্দারা রবিবার (২৫ জুলাই) থেকেই ওমরাহ পালন করতে পারছেন বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

/এলকে/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

১৬০ ফুট উঁচু থেকে পড়ে টিকটকার তরুণীর মৃত্যু

১৬০ ফুট উঁচু থেকে পড়ে টিকটকার তরুণীর মৃত্যু

সত্যি হতে চলেছে ‘মানব সমাজের পতন’ নিয়ে এমআইটি’র ১৯৭২ সালের পূর্বাভাস!

সত্যি হতে চলেছে ‘মানব সমাজের পতন’ নিয়ে এমআইটি’র ১৯৭২ সালের পূর্বাভাস!

সত্যি হতে চলেছে ‘মানব সমাজের পতন’ নিয়ে এমআইটি’র ১৯৭২ সালের পূর্বাভাস!

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২১:৪৭

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি)-এর ‘মানব সমাজের পতন’ নিয়ে ১৯৭২ সালের একটি পূর্বাভাস সত্যি হতে চলেছে। ওই সময় বলা হয়েছিল, আগামী দুই দশকে মানবসমাজ পতনের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যাবে। প্রায় অর্ধশতাব্দী পুরনো এই পূর্বাভাসটি এখন আবার আলোচনায় এসেছে নতুন একটি গবেষণার পর। ওই গবেষণায় দাবি করা হয়েছে, এমআইটি’র পূর্বাভাস সত্যি হতে পারে।

একটি অ্যাংলো-ডাচ বহুদেশীয় পেশাদার সার্ভিস নেটওয়ার্ক কেপিএমজি ইন্টারন্যাশনালের গায়া হ্যারিংটন এই নতুন গবেষণাটি সম্পাদন করেছেন। তার মতে, তিনি গবেষণা চালিয়েছেন এমআইটি’র পূর্বাভাস প্রমাণ বা অস্বীকার করার জন্য। তিনি জনসংখ্যা, শিল্পোৎপাদন, প্রজননের হার, জনসংখ্যার মাত্রা ও খাদ্য উৎপাদন ইত্যাদিসহ ১০টি গুরুত্বপূর্ণ ভ্যারিয়েবল নিয়ে গবেষণা করেন।

হেরিংটন উপসংহারে পৌঁছেছেন যে ২০৪০ সালের মধ্যে বিশ্ব সত্যিকার অর্থে ‘সর্বাত্মক সামাজিক পতন’ প্রত্যক্ষ করতে পারে। তার গবেষণার তথ্য এমআইটি’র পূর্বাভাসের নির্দিষ্ট দুটি মূল দৃশ্যের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এই দুটি হলো- প্রচলিত বাণিজ্য ও বিস্তৃত প্রযুক্তি।

হেরিংটনের প্রতিবেদনটি ইয়েল জার্নাল অব ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইকোলজিতে প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, প্রচলিত বাণিজ্য ও বিস্তৃত প্রযুক্তিতে এক দশকের মধ্যে বা এখন থেকে প্রবৃদ্ধি থেমে যেতে পারে। প্রচলিত উপায়ে বাণিজ্য পরিচালনা অর্থাৎ প্রবৃদ্ধি চলমান রাখা সম্ভব নয়।

কেপিএমজি’র গবেষকের গবেষণাটি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে বিস্তৃতভাবে প্রকাশিত হয়েছে। এসব সংবাদমাধ্যমের মধ্যে রয়েছে ভাইস, দ্য ডেইলি মেইল ও লাইভসায়েন্স। প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটেও গবেষণা প্রতিবেদনটি পাওয়া যাচ্ছে।

১৯৭২ সালের পূর্বাভাসে এমআইটি’র গবেষকরা ১২টি ক্ষেত্রে ভবিষ্যৎ প্রবৃদ্ধি অসম্ভব হতে পারে উল্লেখ করেছিলেন। প্রাকৃতিক সম্পদ খুব দুর্লভ হয়ে পড়ার কারণে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে। এছাড়া ব্যক্তিগত কল্যাণ সাধনও হ্রাস পাবে। ওই বছরের সবচেয়ে বেশি বিক্রীত বই দ্য লিমিটস টু এক্সপানসন-এ এই প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়েছিল। এতে একপর্যায়ে আসন্ন ‘বিপর্যয়’ সম্পর্কে বলা হয়েছিল, পৃথিবীজুড়ে জীবনমানের অবনতি ঘটবে কয়েক দশক ধরে এবং একপর্যায়ে তা মানবজাতির ‘ইতি’ ঘটাবে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

 

/এএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

তালেবানের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

তালেবানের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

চলতি বছরে আফগানিস্তানে রেকর্ড সংখ্যক হতাহত: জাতিসংঘ

চলতি বছরে আফগানিস্তানে রেকর্ড সংখ্যক হতাহত: জাতিসংঘ

করোনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে যাচ্ছে: ড. ফাউচি

করোনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে যাচ্ছে: ড. ফাউচি

তালেবান নেতা আখুন্দজাদাকে নিয়ে যা বললেন ট্রাম্প

তালেবান নেতা আখুন্দজাদাকে নিয়ে যা বললেন ট্রাম্প

সর্বশেষ

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

আনজাম মাসুদের সঙ্গে এবার ১৪ জন কণ্ঠশিল্পী!

আনজাম মাসুদের সঙ্গে এবার ১৪ জন কণ্ঠশিল্পী!

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

টিকা দিতে কারিগরি শিক্ষকদের তথ্য চেয়েছে সরকার

টিকা দিতে কারিগরি শিক্ষকদের তথ্য চেয়েছে সরকার

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

১৬০ ফুট উঁচু থেকে পড়ে টিকটকার তরুণীর মৃত্যু

১৬০ ফুট উঁচু থেকে পড়ে টিকটকার তরুণীর মৃত্যু

সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা করোনায় আক্রান্ত

সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা করোনায় আক্রান্ত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

করোনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে যাচ্ছে: ড. ফাউচি

করোনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে যাচ্ছে: ড. ফাউচি

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

ব্রিটে‌নে জা‌লিয়া‌তির দা‌য়ে বাংলা‌দেশি সমকামীর কার‌াদণ্ড

ব্রিটে‌নে জা‌লিয়া‌তির দা‌য়ে বাংলা‌দেশি সমকামীর কার‌াদণ্ড

করোনা আতঙ্কে দেড় বছর তাঁবুতে

করোনা আতঙ্কে দেড় বছর তাঁবুতে

ব্রিটেনে কয়েক লাখ শ্রমিক আইসোলেশনে, খাদ্যে ঘাটতির আশঙ্কা

ব্রিটেনে কয়েক লাখ শ্রমিক আইসোলেশনে, খাদ্যে ঘাটতির আশঙ্কা

ডেল্টার বিরুদ্ধে ফাইজার-অক্সফোর্ড কার্যকর, দিতে হবে দুই ডোজ

ডেল্টার বিরুদ্ধে ফাইজার-অক্সফোর্ড কার্যকর, দিতে হবে দুই ডোজ

করোনার উৎস অনুসন্ধানে আর সুযোগ দেবে না চীন

করোনার উৎস অনুসন্ধানে আর সুযোগ দেবে না চীন

© 2021 Bangla Tribune