X
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

মৌসুমি ফলের যত গুণ

আপডেট : ০৭ জুন ২০২০, ১০:৪৬
image

গ্রীষ্মকালকে ফলের ঋতু বা মধুমাস বলা হয়। এই মৌসুমে আম, জাম, কাঁঠাল, লিচু, জামরুল, আনারসসহ আরও নানা ধরনের ফল থাকে বাজারে। এই ভাইরাস আতঙ্কের সময়ে মৌসুমি ফল খেতে পারেন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য। রোগ ঠেকাতে কাজে দেওয়া এসব ফল এখন খুবই সহজলভ্য। তবে বাজার থেকে কিনে এনে সরাসরি খাওয়া যাবে না ফল। কিছুক্ষণ পানিতে ভিজিয়ে রেখে ভালোভাবে পরিষ্কার করে ধুয়ে শুকিয়ে তারপর খাবেন। জেনে নিন কোন ফলের কী গুণ।



আম
মৌসুমী ফলের মধ্যে আম হলো প্রধান। কাঁচা আম থেকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি পাওয়া যায়। জ্বর, সর্দি-কাশি এড়াতে কাঁচা আমের জুড়ি নেই। অন্যদিকে স্বাদ ও পুষ্টিগুণের দিক থেকে পাকা আমের তুলনা হয় না। পাকা আমে রয়েছে প্রচুর ক্যারোটিন। এটি যকৃতের জন্য ভীষণ উপকারী।
লিচু
লিচুর রসালো অংশটি তৃষ্ণা মেটাতে সহায়ক। কাশি, পেটে ব্যথা দূর করতেও এর জুড়ি নেই। তবে গ্যাস্ট্রিকের রোগীর এই ফল না খাওয়াটাই ভালো।
জাম
জামের রস ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুবই উপকারী। জামের কচি পাতা বেটে খেলে পেটের অসুখ ভালো হয়।
কাঁঠাল
জাতীয় ফল কাঁঠালে রয়েছে প্রচুর শর্করা, আমিষ ও ভিটামিন এ। কাঁচা কাঁঠাল তরকারি হিসেবে খাওয়া যায়। এছাড়াও কাঁঠালে রয়েছে প্রচুর ভেষজ গুণ।

বাঙ্গি
রসালো ফল বাঙ্গির পুরোটাই জলীয় অংশে ভরপুর। ভিটামিন সি, শর্করা ও সামান্য ক্যারোটিন রয়েছে এই ফলে।
তরমুজ
তরমুজে আছে লাইকোপেন, অ্যামাইনো অ্যাসিড, ভিটামিন, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও পানি। অতিরিক্ত ঘাম এবং তৃষ্ণা দূর করতে তরমুজের রস খুবই কার্যকরী। এই রস খেলে অল্পতেই ক্লান্তি দূর হয়।
আনারস
যারা জ্বরে ভুগছেন তারা নিয়মিত আনারসের রস খেতে পারেন। সুস্বাদু ও ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল আনারস। সর্দি-কাশিতেও আনারস খেলে উপকার পাওয়া যায়। এছাড়া কৃমি সারাতে আনারস খুবই কার্যকরী।
পেঁপে
পেঁপে প্রায় বারো মাসই পাওয়া যায়। কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে সাহায্য করে পাকা পেঁপে। কাঁচা পেঁপে ডায়রিয়া ও জন্ডিস সারায়। কাঁচা

জামরুল
রসালো ও হালকা মিষ্টি জামরুল গ্রীষ্মের অন্যতম ফল। এটি ভিটামিন বি২ সমৃদ্ধ ফল। ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এটি খুবই উপকারী।

লেখক: পুষ্টিবিদ

/এনএ/

সম্পর্কিত

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ১২:৫৯

ভুঁড়ি কত প্রকার এটা কোনও পরীক্ষায় না আসলেও উত্তরটা জানা থাকলে আছে কিছু উপকার। কারণ সব ভুঁড়ি একই কারণে গজায় না। ভুঁড়ি দেখে যেমন লোক চেনা যায়, আবার ভুঁড়ির গঠন দেখে বোঝা যায় সেটার কারণ। আর কারণ জানতে পারলে ভুঁড়িটাকে বাগে আনাও হবে সহজ।

 

স্ট্রেস বেলি

মানসিক চাপের প্রশ্নে আমরা যতই এড়িয়ে চলি না কেন, এর একটি বড় শারীরিক পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া আছে। অতিরিক্ত মানসিক চাপে থাকলে করটিসল নামের স্টেরয়েড হরমোনের মাত্রা বেড়ে তলপেটের আশপাশে চর্বির পরিমাণ বাড়িয়ে তোলে অস্বাভাবিক গতিতে। এ ধরনের ভুঁড়ি কমাতে চাই মানসিক প্রশান্তি। এর জন্য নিয়ম করে ইয়োগা করুন আর খেয়াল রাখুন ঠিকঠাক ঘুম হচ্ছে কিনা।

 

হরমোন বেলি

হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে এ ধরনের ভুঁড়ি তৈরি হয়। হাইপোথায়রয়েডিসম বা পিসিওএস এ ধরনের ভুঁড়ির জন্য দায়ী। এতে করে ভুঁড়ির পাশাপাশি সামগ্রিক ওজনও বেড়ে যেতে থাকে। এটাকে দমিয়ে রাখতে হলে অস্বাস্থ্যকর খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। নিয়মিত বাদাম ও মাছ খেতে হবে। পাশাপাশি থাইরয়েড সংক্রান্ত পরীক্ষা ও পরামর্শ নিতে হবে ডাক্তারের কাছ থেকে।

 

লো বেলি

যখন কারও শরীরের উপরের অংশ চিকন ও নিচের দিকটা, বিশেষ করে তলপেটের দিকটা চওড়া হয়ে থাকে, সেটাকে বলে লো বেলি। শুয়ে বসে কাটানোই এর কারণ। আর এ সমস্যা কাটাতে ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার ও প্রচুর পানি পান করতে হবে। পাকস্থলীর ব্যায়ামগুলোও করতে হবে নিয়মিত।

 

ব্লটেড বেলি

ভুঁড়ি ছাড়াও অনেকের পেটটাকে ফোলা ফোলা মনে হয়। এটাকে বলে ব্লটেড বেলি। হজমের সমস্যার কারণেই এমনটা হয়। এ সমস্যা থেকে বাঁচতে একসঙ্গে বেশি খাবার খাওয়া যাবে না। এড়িয়ে চলতে হবে কোমল পানীয়। ভারী খাবার খাওয়ার পরপরই পানি খাওয়া যাবে না।

/এফএ/

সম্পর্কিত

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

দুধ যেন উপচে না পড়ে

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১১:৩৪

দুধ জ্বাল দেওয়ার সময় চোখটা সরালেই হলো, উপচে পড়বেই। যারা একটু ভুলোমনা, তাদের জন্য এটা বাড়তি এক যন্ত্রণা। দুধ উপচেপড়া ঠেকানোর আছে কিছু উপায়।

 

পানি

জ্বাল দেওয়ার আগে দুধে অল্প পরিমাণ বিশুদ্ধ পানি দিন। ফুটতে শুরু করলে ওই পানি এমনিতেই বাষ্প হয়ে যাবে। তবে লাভটা হলো, এতে দুধ অল্প আঁচে উপচে পড়বে না।

 

ঘি

দুধ জ্বাল দেওয়ার পাত্রের উপরের দিকে ভেতরের কিনারায় সামান্য ঘি মাখিয়ে দিন। উপচে পড়তে গিয়েও পড়বে না।

দুধ উপচে পড়া ঠেকানোর পদ্ধতি

কাঠের চামচ

উডেন স্প্যাটুলা তথা কাঠর চামচও ব্যবহার করা যায় এ কাজে। জ্বাল দেওয়ার সময় পাত্রের ঠিক ব্যাস বরাবর লম্বা করে একটি কাঠের চামচ রেখে দিন। ফোম তৈরি হলেও সেটা আবার নেতিয়ে যাবে।

 

পানির ছিটা

দুধ ফুলে উঠতে শুরু করলে দিশেহারা না হয়ে তার ওপর খানিকটা পানি ছিটিয়ে দিন। সঙ্গে সঙ্গে ফোমটা দেবে যাবে। আর যদি আঁচ কমাতে না চান, সেক্ষেত্রে পাত্রটা খানিকটা উপরে তুলে আলতো করে নাড়ান। এতেও দুধ উপচে পড়বে না।

/এফএ/

সম্পর্কিত

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৭:৫০

হলুদ খাওয়ার উপকারের কথা মোটামুটি সবারই জানা। তবে ত্বকের যত্নেও এর ব্যবহার হয়ে আসছে যুগ যুগ ধরে।

 

উজ্জ্বলতা বাড়ায়

আগে থেকেই কাঁচা হলুদ গায়ে মাখার চল রয়েছে। বিভিন্ন উৎসবেও ত্বকে হলুদ মাখা হয়। মূলত হলুদে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও আন্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান মানুষের ত্বকের অনাকাঙ্ক্ষিত দাগ দূর করে উজ্জ্বলতা বাড়ায়। দই, মধু ও হলুদ দিয়ে পেস্ট বানিয়ে মুখে ও ঘাড়ে লাগিয়ে ২০/২৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

 

ব্রণ দূর করে

ব্রণ নিয়ে টিনএজ বয়স থেকেই শুরু হয় মাথাব্যথা। হলুদ মিশ্রিত একটি প্যাক ব্রণ সমস্যা দূর করতে পারে সহজেই। এক চা চামচ দই ও এক চা চামচ মুলতানি মাটির  সঙ্গে হলুদ মিশিয়ে সঙ্গে খানিকটা গোলাপ জল দিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এবার মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত এ প্যাক ব্যবহারে ব্রণ যাবে পালিয়ে।

 

কালো দাগ হটাতে

মুখে বা চোখের নিচে কালো দাগ (ডার্ক সার্কেল) দূর করতে দুই টেবিল চামচ হলুদ গুঁড়ায় এক টেবিল চামচ দই ও দুই ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে প্যাক বানান। দাগের ওপর লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে চালিয়ে যেতে হবে কয়েকদিন।

 

ফাটা দাগ দূর করে

বিশেষ করে সন্তান জন্মদানের পর মায়েদের পেটের নিচে ফাটা দাগ দেখা দেয়। এক টেবিল চামচ নারিকেল তেলের সঙ্গে আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়া মিশিয়ে ফাটা দাগের জায়গাগুলোতে মেখে রাখুন এক ঘণ্টা পর্যন্ত। তারপর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে নিয়মিত ব্যবহার করুন।

/এফএ/

সম্পর্কিত

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৫:৩৬

পুষ্টির বিচারে মিষ্টি আলু স্বাভাবিক গোল আলুর মতো নয়। বরং ওটার চেয়ে ঢের এগিয়ে। একটি মাঝারি মিষ্টি আলুতেই প্রতিদিনকার চাহিদার চেয়ে চার গুণ বেশি ভিটামিন এ আছে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি হৃৎপিণ্ড ও কিডনি ভালো রাখার উপাদানও আছে এতে। ফাইবারেরও বেশ ভালো উৎস মিষ্টি আলু। আছে ভিটামিন বি, সি, ডি, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, থায়ামিন ও জিংক।

 

মিষ্টি আলুর ক্ষীর বানাতে যা যা লাগবে

  • ২ টেবিল চামচ ঘি।
  • ৪ কাপ দুধ।
  • ১ চা চামচ সবুজ এলাচ গুঁড়ো।
  • ৬টা কাঠবাদাম কুচি।
  • ৫০০ গ্রাম মিষ্টি আলু, গ্রেট করা।
  • ৬টা কাজুবাদাম কুচি।
  • দেড় কাপ চিনি।
  • ৫-৬ টুকরো জাফরান।

 

যেভাবে বানাবেন

  • একটি প্যানে মাঝারি আঁচে ঘি ঢালুন। গরম হয়ে এলে তাতে বাদামকুচিগুলো ভাজুন। বাদামের রং বাদামি হয়ে এলে তুলে রাখুন। বাড়তি ঘি-টাও রেখে দিন।
  • ওই প্যানে এবার গ্রেট করা মিষ্টি আলুর কুচিগুলো দিয়ে নেড়েচেড়ে পাঁচ মিনিট ভাজুন।
  • আলু খানিকটা নরম হয়ে আসতে শুরু করলে তাতে দুধ দিন। ১০ মিনিট রান্না করুন। এরপর চিনি ঢেলে নেড়েচেড়ে ভালো করে মিশিয়ে আরও ৫ মিনিট মাঝারি আঁচে রাখুন।
  • এলাচ গুঁড়ো ও জাফরান দিয়ে আরও ২-৩ মিনিট রান্না করুন।
  • এরপর আঁচ কমিয়ে তাতে ভেজে রাখা বাদামকুচি মিশিয়ে দিন। চাইলে গরম গরম পরিবেশন করতে পারেন, কিংবা রেখে দিতে পারেন ফ্রিজে।

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ০৮:০০

মাছ কিনতে বাজারে গেলেই বিপদে পড়ে যান অনেকে। মাছ টিপেটুপেও নিশ্চিত হতে পারেন না। সিদ্ধান্তহীনতায় কেটে যায় অনেকটা সময়। দরদামের চেয়েও তাদের টেনশনটা হলো, মাছ পচা হবে না তো? তাদের জন্য রইলো তাজা মাছ চেনার সহজ কিছু টিপস।

 

নাকের ওপর ভরসা

কাজটা একটু অস্বস্তিকর মনে হতে পারে। তবে তাজা মাছ চিনতে এটা বেশ কাজের। মাছটাকে সম্ভব হলে নাকের কাছে নিয়ে গন্ধ শুঁকে দেখুন। তাজা মাছ হলে বিশেষ কোনও গন্ধ পাবেন না। নদী বা সমুদ্রের তাজা মাছ হলে খানিকটা শ্যাওলা পানির গন্ধ পেতে পারেন। তবে সেটা নাকে ধাক্কা দেবে না। আর যদি কড়া আঁশটে গন্ধ পান, তবে বুঝতে হবে মাছটা পুরোপুরি পচা না হলেও বাসি। কিছু সময় পরই পচন ধরবে। এই গন্ধটা রান্নার পরও থাকবে।

 

চোখ লুকানো যায় না

মাছে যতই রাসায়নিক দেওয়া হোক, এর চোখ কিন্তু ঢাকা যায় না। তাই হাত দিয়ে ধরার আগে মাছের চোখ দেখুন। তাজা মাছের চোখটাও জ্বলজ্বলে হবে। চোখ যত সাদা ও ঘোলাটে হবে, ধরে নিতে হবে মাছটা তত পচে যাওয়ার কাছাকাছি পর্যায়ে আছে।

 

ত্বক পরীক্ষা

তাজা মাছের বাহ্যিকটা হবে বেশ চকচকে, যাকে বলে মেটালিক টেক্সচার। বাসি মাছের ত্বক হবে ফ্যাকাসে। আবার তাজা মাছের গায়ে জোরে হাত দিয়ে ঘষা দিলেও সহজে আঁশ ছুটে আসবে না। সবশেষে অনেকের মতো মাছটা টিপেও দেখুন। আঙুল সরানোর সঙ্গে সঙ্গে যদি বাউন্স করে আবার ত্বক সমান হয়ে যায় তবে মাছটা তাজাই আছে। পচা হলে দেবেই থাকবে কিংবা উঠে আসতে সময় লাগবে।

 

কানকোর রঙ

তাজা মাছের কানকো হাত দিয়ে তুলে দেখাতে বিক্রেতারা সবসময়ই তৎপর। তাজা মাছের কানকোর রঙ দেখতে ভেজা মনে হবে। আর বাসি মাছ হলে কানকোর রঙটাকে শুকিয়ে যাওয়া মনে হবে। আবার আঙুল দিয়ে পরীক্ষা করে দেখুন, রংটা আসল না নকল। তাজা মাছের কানকোর রঙটা হয় সচরাচর গাঢ় লাল বা মেরুন রঙের।

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

সর্বশেষ

এই বছরই ইরাক ছাড়বে মার্কিন বাহিনী

এই বছরই ইরাক ছাড়বে মার্কিন বাহিনী

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

নাভালনি ও তার ঘনিষ্ঠদের ওয়েবসাইট ব্লক করলো রাশিয়া

নাভালনি ও তার ঘনিষ্ঠদের ওয়েবসাইট ব্লক করলো রাশিয়া

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

আনজাম মাসুদের সঙ্গে এবার ১৪ জন কণ্ঠশিল্পী!

আনজাম মাসুদের সঙ্গে এবার ১৪ জন কণ্ঠশিল্পী!

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

তাজা মাছ চেনার পাঁচ টিপস

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

রেসিপি : হয়ে যাক বিফ চিজ বার্গার

জিরাপানি কেন খাবেন, বানাবেন কী করে?

জিরাপানি কেন খাবেন, বানাবেন কী করে?

নবাবি স্বাদের গলৌটি কাবাব

নবাবি স্বাদের গলৌটি কাবাব

পাঁচ ত্বকের পাঁচ প্যাক

পাঁচ ত্বকের পাঁচ প্যাক

গরুর মাংসের আছে অনেক উপকার

গরুর মাংসের আছে অনেক উপকার

© 2021 Bangla Tribune