X
বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ২ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

‘রাখাইনে সংঘাতের পরিবেশ তৈরি করছে মিয়ানমার’

আপডেট : ০৬ জুলাই ২০২০, ০০:৫৭

মাসুদ বিন মোমেন মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী আরাকান আর্মি দমনের জন্য রাখাইনে সংঘাতপূর্ণ পরিবেশ তৈরি করছে এবং ক্লিয়ারেন্স অপারেশনের নামে সেখানে সহিংসতা চালাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন। রবিবার ( ৫ জুলাই) সিআরআই আয়োজিত রোহিঙ্গা ও কোভিড-১৯ বিষয়ক এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র সচিব এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, গত কয়েক মাসে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর সঙ্গে আরাকান আর্মির সংঘাতময় পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে। ক্লিয়ারেন্স অপারেশনের নামে সেখানে সহিংসতা চালানো হচ্ছে। এর ফলে বেসামরিক জনগণ হতাহত এবং একটি অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি হয়েছে। এটি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য সহায়ক পরিবেশ তৈরির ক্ষেত্রে সহায়ক নয়।

মাসুদ বিন মোমেন বলেন, মিয়ানমারের সঙ্গে প্রত্যাবাসন সংক্রান্ত যে চুক্তিগুলো রয়েছে তার অগ্রগতি কোভিডের কারণে ধীর হয়ে গেছে। তবে আমরা চেষ্টা করছি কীভাবে বেগবান করা যায়। আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে মিয়ানমারের দেওয়া রিপোর্ট যাচাই-বাছাই চলছে জানিয়ে সচিব বলেন, কিন্তু মাঠপর্যায়ে উন্নতি দেখা যাচ্ছে না। আন্তর্জাতিক অপরাধ কোর্ট ও আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালত দায়বদ্ধতা নিশ্চিত করার জন্য সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, যারা অপরাধ করেছে তাদের শাস্তি না হলে রোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়ার বিষয়ে অনাগ্রহ থাকবে।’

ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের পাঠানোর বিষয়ে তিনি বলেন, ভাসানচর কোভিডের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়। এখন পর্যন্ত সরকার ৩০০ মিলিয়ন ডলার খরচ করেছে ভাসানচরের জন্য। অধিক ঘনবসতি, রোগ সংক্রমণের আশঙ্কা, ভূমিধস, মানবপাচার, মাদক ও ছোট আগ্নেয়াস্ত্র চোরাচালান ক্যাম্পগুলোর জন্য বড় ঝুঁকি এবং সেখানকার যুব সমাজ উগ্রবাদের দিকে ঝুঁকে পড়ার আশঙ্কা আছে বলে জানান পররাষ্ট্র সচিব। তিনি বলেন, এত বেশি ঝুঁকি একটা ছোট জায়গায়। সে কারণে বাংলাদেশ সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেখানে জনবহুলতা কমানো হবে। আমরা ঝুঁকি কমাতে চাই। এজন্য ভাসানচরে কাজ শুরু করলাম এবং সেখানে তিন শতাধিক রোহিঙ্গা আছে। আমরা দেখলাম ঘূর্ণিঝড় আম্পানে সেখানে কিছুই হয়নি। সুতরাং আগামীতে আমরা আরও রোহিঙ্গাকে সেখানে নিয়ে যেতে চাই।

/এসএসজেড/এমআর/এমওএফ/

সর্বশেষ

মুখ খুলতে শুরু করেছেন ভুক্তভোগীরা

মুখ খুলতে শুরু করেছেন ভুক্তভোগীরা

ইসরায়েলি আগ্রাসন অব্যাহত, ফিলিস্তিনি শিক্ষার্থীকে গুলি করে হত্যা

ইসরায়েলি আগ্রাসন অব্যাহত, ফিলিস্তিনি শিক্ষার্থীকে গুলি করে হত্যা

এবার অল কমিউনিটি ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগ পরীমনির বিরুদ্ধে

এবার অল কমিউনিটি ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগ পরীমনির বিরুদ্ধে

সংসদ সচিবালয় কোয়ার্টার থেকে নারীর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় স্বামী রিমান্ডে

সংসদ সচিবালয় কোয়ার্টার থেকে নারীর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় স্বামী রিমান্ডে

আমি জীবনে একটা সিগারেটও খাইনি: তথ্যমন্ত্রী

আমি জীবনে একটা সিগারেটও খাইনি: তথ্যমন্ত্রী

হাসপাতালের বেড বাসায় নিচ্ছিলেন চিকিৎসক, আটকালেন জনতা

হাসপাতালের বেড বাসায় নিচ্ছিলেন চিকিৎসক, আটকালেন জনতা

খুলনা বিভাগে একদিনে শনাক্তের নতুন রেকর্ড

খুলনা বিভাগে একদিনে শনাক্তের নতুন রেকর্ড

এবার রোমান-দিয়ার প্যারিস অভিযান

এবার রোমান-দিয়ার প্যারিস অভিযান

মহামারিতেই বিয়েটা সেরে ফেললেন তারা

মহামারিতেই বিয়েটা সেরে ফেললেন তারা

রিজার্ভ থেকে শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেবে বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

রিজার্ভ থেকে শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেবে বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার থেকে ব্যাংকে লেনদেন সাড়ে ৩টা পর্যন্ত

বৃহস্পতিবার থেকে ব্যাংকে লেনদেন সাড়ে ৩টা পর্যন্ত

ওয়ারীতে লেগুনা উল্টে চালকের স্ত্রীর মৃত্যু

ওয়ারীতে লেগুনা উল্টে চালকের স্ত্রীর মৃত্যু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রিজার্ভ থেকে শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেবে বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

রিজার্ভ থেকে শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেবে বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

লকডাউন দিয়েও ঠেকানো যাচ্ছে না ১২ জেলার করোনার ঊর্ধ্বগতি

লকডাউন দিয়েও ঠেকানো যাচ্ছে না ১২ জেলার করোনার ঊর্ধ্বগতি

‘কোভিশিল্ড’ টিকা এক কোটি ৮১ হাজার ডোজ শেষ

‘কোভিশিল্ড’ টিকা এক কোটি ৮১ হাজার ডোজ শেষ

আগস্টে কোভ্যাক্সের অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা আসবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আগস্টে কোভ্যাক্সের অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা আসবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়াতে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির

ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়াতে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৬০, শনাক্ত প্রায় ৪ হাজার

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৬০, শনাক্ত প্রায় ৪ হাজার

‘ত্রাণ চাই না, বাঁধ চাই’, গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে সংসদে এমপি শাহজাদা

‘ত্রাণ চাই না, বাঁধ চাই’, গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে সংসদে এমপি শাহজাদা

বিধি-নিষেধ বাড়লো আরও এক মাস

বিধি-নিষেধ বাড়লো আরও এক মাস

গত ১০ বছরে এডিপির বাস্তবায়ন গড়ে ৮৫ শতাংশ

গত ১০ বছরে এডিপির বাস্তবায়ন গড়ে ৮৫ শতাংশ

বাজেট আলোচনার সময় অর্থমন্ত্রী সংসদে না থাকায় ক্ষোভ

বাজেট আলোচনার সময় অর্থমন্ত্রী সংসদে না থাকায় ক্ষোভ

© 2021 Bangla Tribune